বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯ ১২:৪৫:২৯ পিএম

হতদরিদ্রের তালিকায় জনপ্রতিনিধি-আইনজীবীদের নাম!

জেলার খবর | নোয়াখালী | শনিবার, ২২ অক্টোবর ২০১৬ | ০৫:০৭:৫১ পিএম

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে হতদরিদ্রের তালিকায় আইনজীবী, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক দলের নেতা, প্রবাসী ও চাকরিজীবীদের নাম রয়েছে।

হতদরিদ্রের তালিকায় মুছাপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা নোয়াখালী জেলা ও দায়রা জজ আদালতের আইনজীবী মো. নুরুল ইসলাম (কার্ড নং ৭০৮০৮), চরফকিরা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য এন ইসলাম, চরএলাহি ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ নেতা রহমত উল্যাহ, আমেরিকা প্রবাসীর বাবা মো. আবুল খায়ের, একই পরিবারের ৫ জন জাহাজে চাকরিরত, যৌথ পরিবারের খাদিজা খাতুন, রুহুল আমিন, দুইজন প্রবাসী ছেলের বাবা নুর উদ্দিন, আছাদুল হক, বেসরকারি চাকরিজীবী ইব্রাহিম খলিল ও ধনাঢ্য গৃহস্থ কামাল উদ্দিনের নাম রয়েছে।

প্রথম মাসে চাল উত্তোলনের পর বিষয়টি জানাজানি হয়। পরে অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিনে তদন্ত করে নাম উল্লেখিতদের হতদরিদ্রের তালিকা থেকে নাম বাদ দেয়া হয়েছে।

উপজেলার ৮ ইউনিয়নের ৬৪৩৫ পরিবারকে ১০ টাকা কেজি দরে চাল দেয়ার সরকারি কর্মসূচি হিসেবে হতদরিদ্রদের তালিকা করা হয়। ডিলার নিয়োগে দলীয়করণ এবং হতদরিদ্রদের তালিকা প্রস্তুতে স্বজনপ্রীতি, দলীয়করণ, আত্মীয়করণ ও কার্ড প্রদানের সময় অর্থ আদায়ের কারণে সরকারের 'খাদ্যবান্ধব' কর্মসূচি নিয়ে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ ওঠেছে।

সুবিধাভোগী কার্ডধারীরা অভিযোগ করেন, প্রতিজনকে ৩০ কেজি চাল দেয়ার পরিবর্তে ওজনে ২৫-২৬ কেজি চাল দিচ্ছেন ডিলাররা। আবার কোনো কোনো ডিলার প্রতি কেজি চাল ১০ টাকার পরিবর্তে ১১-১২ টাকা হারে গুদাম খরচের নামে আদায় করে নিচ্ছে।

এসব অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ ছালেহ্ উদ্দিন  বলেন, অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় হতদরিদ্রদের তালিকা থেকে চরএলাহি ও মুছাপুর ইউনিয়নের কয়েক জনের নাম বাতিল করা হয়েছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন