বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০২:২৭:৩৯ পিএম

‘মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্য, একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারেনা?’

মো: হেলাল উদ্দীন খান | উপসম্পাদক | শনিবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৬ | ০৫:১৪:৪৩ পিএম

‘মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্যএকটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারেনা?’

দুঃখ ভরাক্রান্ত এক বুক আক্ষেপ নিয়ে বলতে হয় "হে মানুষ তুমি আবার মানুষ হও" হে উপর ওয়ালা  প্রতিটি মানুষের হৃদয়ে তুমি আবার ভালোবাসা ও সম্প্রীতি ফিরে দাও। আপনারা সবাই ভুপেন হাযারিকার কথা শুনেছেন নিশ্চয়, যখন স্কুলে পড়তাম ভারতের বিখ্যাত এই গায়ক ভুপেন হাযারিকার একটি গান খুব শুনতাম এই গানটি খুব পপুলার ছিল,
‘মানুষ মানুষের জন্য, জীবন জীবনের জন্যএকটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারেনা?’

সীমানা নির্ধারণের দিক দিয়ে আমাদের বাংলাদেশের সীমানা সবার মুখস্ত তারপরেও বলতে হয় বাংলাদেশর ভূখণ্ড মিয়ানমারের চাইতে অনেক ছোট তারপরেও এই ছোট্ট ভূখণ্ডে ১৬ কোটির উপরে  মানুষের বসবাস। এখানে মুসলমান, হিন্দু, বৌধ্য,খ্রিস্টান সহ প্রায় সব ধরনের মানুষের বসবাস আছে বলা হয়ে থাকে বাংলাদেশ একটি সম্প্রীতির দেশ। মুক্তিযুদ্ধ দেখিনি কিন্তু আমারবাবার মুখে অনেক মুক্তিযুদ্ধের ঘটনা শুনেছি তিনি বলেন তখন কেউ জাত ধর্ম বিচার করেনি সবাই একটি কথাই ভাবত তাহলো কিভাবে মুক্ত হবে দেশ। 

কিন্তু আজ এই প্রিয় স্বাধীন দেশটিকে খুব অচেনা মনে হয় কারন হিন্দুদের উপর নির্যাতন,সাঁওতালদের উপর আক্রমণ সহ শিশু নির্যাতন ও নারী নির্যাতন অপ্রতিরোধ্য ভাবে বেড়েই চলেছে জানিনা এ কোন পরাধীনতার ছোঁয়া বা রাজনীতির খেলা আমার জানা নাই আপনাদের কাছে প্রশ্ন ? রেখে গেলাম জানা থাকলে দয়া করে বলবেন। আমাদের প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রি শেখ হাসিনা ও তার সরকার যে কোন সন্ত্রাস মোকাবেলায় বধ্য পরিকর হওয়া সত্তেও কেন এই সব ঘটনা ঘটছে ? তারপরও প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ় পদক্ষেপ ও তীক্ষ্ণ বিচার বিবেচনার কারনে দেশে আজ শান্তি বিরাজ করছে। 

আমি ঢাকাতে ভাড়া থাকি ভাগ্য ক্রমে আমার প্রতিবেশী ছিল একজন বৌদ্ধ্য পরিবার আচার আচরণের দিক দিয়ে খুবই শান্ত ও ভদ্র। একদিন আমার ছেলেকে একটি পিঁপড়া কামড় দিলে সে পিঁপড়া টিকে মেরে ফেলে এই অবস্থা দেখে আমার প্রতিবেশী সেই বৌদ্ধ্য পরিবার এর একজন বলল বাবু "জীব হত্যা মহা পাপ" কখন ও কোন জীবকে হত্যা করিও না। তখন তার এই কথা শুনে মনে হল বাহ কতই না মহান ধর্মের লোক এই  বৌদ্ধ্যরা। যারা একটি পিঁপড়া মারতে পারেনা তারা কিভাবে মানুষ হত্যা করবে? 


বলছিলাম মিয়ানমারের রোহিঙ্গা তথা মুসলিম গণহত্যার কথা প্রতিনিয়ত ফেসবুক সহ বিভিন্ন মাধ্যমে অনেক দিন ধরেই দেখা যাচ্ছে মিয়ানমারের জনগণ তথা বৌদ্ধ্য সম্প্রদায় দ্বারা সেখানকার রোহিঙ্গা তথা মুসলিম সম্প্রদায়ের উপর বিভিন্ন নির্যাতন ও গণহত্যার ছবি কি হৃদয় বিদারক এক একটি ছবি মানুষ হয়ে কিভাবে মানুষের প্রতি এই রকম পাশবিক নির্যাতন তারা করতে পারে?

শুধু প্রাপ্ত বয়স্কদের কেই নয় এমনকি ছোট্ট ফুটফুটে বাচ্চাদের সাথেও পশুর মতো আচরণ করছে। তাদেরকে বলি আজ তোমার শিশুটিকে যদি অন্য কেউ এভাবে নির্যাতন করে তোমার কেমন লাগবে? নাকি তোমার বৌদ্ধ্য ধর্মে নীয়ম পরিবর্তন করেছো ? কি অপরাধ এই রোহিঙ্গাদের তারা মুসলিম এটাই কি তাদের অপরাধ? কি অপরাধ ঐ শিশু গুলোর যারা কোন ধর্ম বুঝেনা জাত বুজেনা কোন ভেদাভেদ বুঝেনা যারা চায় মায়ের বুকে একটু আশ্রয় তোমরা সেই  আশ্রয় টুকুও কেড়ে নিলে। পুড়িয়ে দিলে তার মাকে। হত্যা করলে তার বাবাকে। তোমাদেরকে উপরওয়ালা কোন মাটি দিয়ে গড়িয়েছে নাকি জলন্ত আগুন দিয়ে গড়া তোমাদের হৃদয়? 
Image result for Rohingya killed

আমি বাংলাদেশ ছাত্রলীগ নামক ফেসবুক পেজ কে ধন্যবাদ দিতে চাই কারন তারা একটি স্ট্যাটাস দিয়েছে "রোহিঙ্গাদের জন্য বাংলাদেশের সীমান্ত খুলে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা-ইউএনএইচসিআর" অথচ, মিয়ানমারকে হত্যা, নিপীড়ন বন্ধ করার কথা একবারও বলছে না তারা। 

তাদের কণ্ঠে কণ্ঠ মিলিয়ে আমিও বলতে চাই কোথায় তোমাদের বিশ্ব মানবাধিকার সংস্থা, আজ কোথায় তাদের মানবতা কোথায় তাদের বিচার ? আজ কেন বিশ্ব নেতারা চুপ মেরে বসে আছেন? নাকি মিয়ানমারের বৌদ্ধ্যদের সাথে আপনাদেরও মানবিক দিকগুলি হারিয়ে ফেলেছেন? নাকি বিশ্ব মানবাধিকার সংস্থা নামে সবই আপনাদের ব্যবসা? 

পরিশেষে বলতে চাই কাউকে বা কোন সম্প্রদায়কে আঘাত দেওয়ার জন্য কথাগুলি লিখিনি যদি কেউ আঘাত পেয়ে থাকেন তবে আমাকে ক্ষমা করে দিবেন।

লেখক, মো: হেলাল উদ্দীন খান, উপ-সম্পাদক, ইউরোবিডিনিউজ.কম

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন