সোমবার, ২৪ জুলাই ২০১৭ ১২:২৯:০২ পিএম

কুমিল্লার দাউদকান্দিতে জনতার চাপের মুখে বন্ধ হলো বাল্যবিয়ে

মো. আলী আশরাফ খান | জেলার খবর | কুমিল্লা | বুধবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৭ | ০১:৫৩:১২ পিএম

আজ ১৭ জানুয়ারি কুমিল্লার দাউদকান্দিতে জনতার চাপের মুখে বন্ধ হলো একটি বাল্যবিয়ে।

দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুর পশ্চিম বাজারের ইব্রাহিম খলিল ব্যাপারির বাড়িতে আজ সোমবার বিকালে এক কিশোর ও কিশোরীর বিয়ে বন্ধ করে দেয় স্থানীয়রা।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, মতলব (উ.) ধনাগোধার তালতলি গ্রামের আলী আহম্মদের পুত্র মোঃ বাবু হোসেন (১৫), নরসিংদী জেলার বরকান্দা গ্রামের ইদ্রিস মিয়ার মেয়ে রোজিনা আক্তার (১২) কে নিয়ে পালিয়ে এসে আশ্রয় নেয় দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুরের পশ্চিম বাজারের ভাড়া বাড়িতে।

শুধু তাই নয়, আজ বিকালে বাবু হোসেনের বাবা আলী আহম্মদ ও শাহিদা বেগম তাদের বিয়ের সব আয়োজনও করে ফেলে। এ খবর পেয়ে এলাকার লোকজন তাদেরকে আটক করে। একর্পযায়ে স্থানীয়রা উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শামীমা সুলতানা সঙ্গে যোগাযোগ করে এই বিয়ে বন্ধ করে দেয়। পরে ছেলের বাবা ও মা এই মর্মে অঙ্গিকার করেন যে, তারা মেয়েটিকে তার পরিবারের কাছে সঠিকভাবে পৌঁছে দেবেন এবং তাদের বিয়ে দেবেন না। যদি এই অঙ্গিকারের কোন ব্যতিক্রম হয় তাহলে আইনের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে তারা বাধ্য থাকবেন এবং যে কোন শাস্তি তারা মাথা পেতে নেবেন।

তাদের এ অঙ্গিকার নামায় স্বাক্ষর করার সময় উপস্থিত ছিলেন, মানবাধিকার কর্মী রোজিনা আক্তার, সমাজকর্মী সাইফুল ইসলাম স্বপন, সাংবাদিক মিলি তালুকদার, পশ্চিম বাজারের বাসিন্দা মোঃ দয়াল মিয়া, কবির হোসেন, মোঃ সাইদুল প্রমুখ।

এব্যাপারে দাউদকান্দি উপজেলা ইভটিজিং, বাল্যবিয়ে ও যৌতুক প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক মো. আলী আশরাফ খান বলেন,‘বাল্যবিয়ে একটি সামাজিক অভিশাপ। এই অভিশাপের আগুনে শুধু ব্যক্তি ও পরিবারই নয়, পুরু সমাজ দগ্ধ হয়। সুতরাং বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে প্রশাসনের পাশাপাশি সমাজ সচেতনদেরও এগিয়ে আসা জরুরি’।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন