রবিবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৭ ১২:৪২:৫০ এএম

চিকিৎসকসহ ১৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

জেলার খবর | দিনাজপুর | বুধবার, ২৫ জানুয়ারী ২০১৭ | ১১:৫২:১৬ পিএম

হত্যা মামলায় দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের এক চিকিৎসকসহ ১৮ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে।

দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান সহকারী অধ্যাপক ডা. মো. আমির উদ্দীনের বিরুদ্ধে ময়নাতদন্তের রিপোর্টে ভুল তথ্য দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। আদালত ১৮ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য করেছে।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার বিকেলে দিনাজপুরের জেলা ও দায়রা জজ হোসেন শহীদ আহমদের আদালতে ডা. মো. আমির উদ্দীনসহ ১৮ আসামির উপস্থিতিতে সকলের বিরুদ্ধে হত্যা মামলার অভিযোগ গঠন করা হয়। ৫ ফেব্রুয়ারি মামলার এজাহারকারীসহ পাঁচজন সাক্ষীকে আদালতে হাজির করতে বিচারক সমন জারির আদেশ দিয়েছেন।

জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (অতিরিক্ত পিপি) মো. তাহেরুল ইসলাম জানান, ২০১৫ সালের ৭ ডিসেম্বর খানসামা উপজেলার আলোকডিহি গ্রামের ইসাহাক আলীর জমিতে প্রতিপক্ষরা দাঙ্গা-হাঙ্গামা সৃষ্টি করে। এ সময় প্রতিপক্ষের আঘাতে ইসাহাক আলী ঘটনাস্থলে নিহত হয়। ইসাহাক আলীর ছেলে আব্দুর রহমান বাদী হয়ে প্রতিপক্ষের সাহাদাত আলীসহ ১৭ জনকে আসামি করে খানসামা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। নিহত ইসাহাক আলীর ময়না তদন্ত রিপোর্টে ডা. আমির উদ্দীন স্বাভাবিক মৃত্যু বলে রিপোর্ট দেয়। পরবর্তীতে তার রিপোর্টের বিরুদ্ধে এজাহারকারী আদালতে নারাজি দিলে বিচারক পুনরায় লাশের ময়না তদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগকে আদেশ দেয়। দ্বিতীয় ময়না তদন্তের রিপোর্টে ইসাহাক আলীকে হত্যা করা হয়েছে বলে চিকিৎসক মতামত দেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দিনাজপুর পিবিআই পুলিশ পরিদর্শক মো. মনিরুল ইসলাম ভুইয়া তার দাখিলকৃত অভিযোগপত্রে উল্লেখ করেন, প্রথম ময়না তদন্তকারী ডাক্তার তার রিপোর্টে স্বজনপ্রীতি ও দুর্নীতির মাধ্যমে আসামিদের পক্ষ নিয়ে নিহত ইসাহাক আলীকে স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে বলে মতামত দিয়ে হত্যা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। এর প্রেক্ষিতে মামলার এজাহার নামীয় আসামি ১৭ জন ও ময়না তদন্তকারী চিকিৎসক মো. আমীর উদ্দীনের বিরুদ্ধে তিনি আদালতে অভিযোগপত্র পেশ করেন।

এ ব্যাপারে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডা. মো. কামরুল আহসান বলেন, যেহেতু ফরেনসিক বিভাগের ডাক্তার মো. আমীর উদ্দীনের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ ফৌজদারি ঘটনা। তার অপরাধের বিষয় আদালত যা রায় দেয় তার প্রেক্ষিতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ডা. মো. আমীর উদ্দীন বলেন, ‘আমাকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে এ মামলায় জড়ানো হয়েছে। মামলায় ১৫ জানুয়ারি আদালত থেকে আমি জামিন নিয়েছি। মামলাটি নিয়ে উচ্চতর আদালতে যাব।’

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন