রবিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ১২:৫৬:২৫ পিএম

নির্যাতিতদের কাছেই ফিরে যাচ্ছেন রোহিঙ্গারা মুসলিমরা!

জেলার খবর | কক্সবাজার | শুক্রবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ | ০৪:৪৭:১৫ পিএম

মিয়ানমারে সন্ত্রাসী হামলার পর সেদেশের সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে পরিচালিত যৌথ অভিযান ও অমানবিক নির্যাতনে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের অনেকে নিজ দেশে ফিরতে শুরু করেছেন।

বিশেষ করে অবস্থাসম্পন্ন পরিবারের লোকেরা মিয়ানমার সীমান্তরক্ষী বাহিনীকে ফাঁকি দিয়ে কিংবা ম্যানেজ করে নিজ দেশে ঢুকে পড়ছেন। চলে যাওয়া রোহিঙ্গারা সেখানে আগের মতোই স্বাভাবিক জীবন-যাপন করছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। বিজিবি ও রোহিঙ্গা ক্যাম্প কমিটির সদস্যদের অনেকেই বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

জানা গেছে, গত কয়েকদিনে মিয়ানমারের ৯শ নাগরিক নাফ নদী দিয়ে নৌকা যোগে স্বদেশে চলে গেছেন। অবস্থাসম্পন্ন এসব লোক সহায়-সম্পদ রক্ষায় স্বইচ্ছায় মিয়ানমারে চলে গেছেন। টেকনাফ-উখিয়ায় অনিবন্ধিত রোহিঙ্গা ক্যাম্প এবং বিভিন্ন এলাকায় বিচ্ছিন্ন ভাবে অবস্থানরত মিয়ানমারের বিত্তশালী নাগরিকদের অনেকে নিজ দেশে চলে যেতে নানা ভাবে তত্পরতা চালাচ্ছেন।

মিয়ানমার থেকে আসা ৯শ’ রোহিঙ্গা নিজ দেশে চলে গেছেন জানিয়ে টেকনাফস্থ ২ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. আবুজার আল জাহিদ বলেন, অবস্থাসম্পন্ন আরো অনন্ত ১৪শ’ লোক স্বদেশে ফিরতে নানা ভাবে যোগাযোগ করছেন।

উল্লেখ্য, গত ৯ অক্টোবর বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী মিয়ানমারের অভ্যন্তরে সে দেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনীর বেশ কয়েকটি নিরাপত্তা চৌকিতে হামলা হয়। এতে সীমান্ত পুলিশের ১২ সদস্য নিহত হয়। এই হামলার জন্য রোহিঙ্গা মুসলমানদের দায়ী করে তাদের ওপর নির্যাতন চালায় মিয়ানমারের নিরাপত্তা বাহিনী। তাদের নির্যাতনে শতাধিক রোহিঙ্গা নিহত হয়েছে।

এরপর থেকে সীমান্তের বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশ করে। জাতিসংঘের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ৯ অক্টোবর রোহিঙ্গাদের ওপর সশস্ত্র বাহিনীর নিপীড়ন শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত মিয়ানমারের সংখ্যালঘু মুসলিম জনগোষ্ঠীর অন্তত ৭০ হাজার সদস্য বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন