বৃহস্পতিবার, ২৯ জুন ২০১৭ ০২:৫৬:৪২ পিএম

ডিম খাওয়া ভালো নাকি খারাপ? কী বলছেন চিকিত্‌সকেরা

স্বাস্থ্য | সোমবার, ১৩ মার্চ ২০১৭ | ১২:৫০:৫৫ পিএম

একটা বয়সের পর ডিম খাওয়া ভাল না খারাপ? এ এক চিরন্তন ডিবেট। হাই স্ট্রেসড সোশ্যাল লাইফে যাঁরা চল্লিশের কোঠায় পা রেখেছেন, তাঁদের অনেকেই এখন রোজ ডিম খেতে গেলে দুবার ভাবেন।

বয়স্কদের ক্ষেত্রে তো কথাই নেই। ডিমের দিকে তাকানোও যেন অপরাধ! সাম্প্রতিক গবেষণা কিন্তু বলছে অন্য কথা। বয়স্কদের জন্য ডিমকে আর নিছক ভিলেন হিসেবে দেখতে রাজি নন ডাক্তাররা।

ডিমের হাজার ফান্ডা। কিন্তু সেই সবই যেন তরুণ দিনগুলোর জন্য। মরিচ ছেটানো পোচ অথবা পেঁয়াজ লঙ্কায় ঠাসা অমলেট। ডিমের কারি থেকে ডিমের ভুজিয়া। এসবে যেন তারুণ্যেরই অধিকার! বয়সের বলিরেখা একটু স্পষ্ট হল কী ব্যস্। ডিম ঢুকে পড়ল এই তালিকায়।



ফল যা হওয়ার তাই। বয়স বাড়তেই খাদ্য তালিকা থেকে ডিমকে ডিভোর্স। কিছু ক্ষেত্রে ডাক্তাররা ডিম এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেন।

১. হার্টের সমস্যা

২. উচ্চ মাত্রায় কোলেস্টরল

৩. আর্থারাইটিস

বয়সের সঙ্গে যেহেতু এসব সমস্যা এসেই যায়, তাই অটোমেটিক্যালি ডিমেও নিষেধাজ্ঞা জারি হয়ে যায়।

একষট্টি বছর বয়স। এমন বারোশো জনকে নিয়ে সমীক্ষা করেছিলেন কানাডার কয়েকজন গবেষক। তাতে দেখা গেছে, যাঁরা সপ্তাহে দুটো করে ডিম খান, তাঁদের শরীরে ক্যারোটিড প্লেক তৈরি হওয়ার প্রবণতা বেশি। ক্যারোটিড প্লেক মোমের মতন এক ধরনের পদার্থ যা ধমনীতে বসে গিয়ে রক্ত চলাচলে বাধা সৃষ্টি করে।

কানাডার আরেক গবেষক, ব্রিটিশ ডায়েটিক অ্যাসোসিয়েশনের সদস্য হেলেন বন্ড বলছেন অন্য কথা। তিরিশ বছরের গবেষণায় তাঁর দাবি, কোলেস্টরেলের মাত্রার ওপর ডিমের কোনও প্রভাব সে অর্থে নেই। বয়স হলেও ডিম খাওয়া চালিয়ে যেতে পারেন।

কোন যুক্তিতে এত বড় অভয় দিচ্ছেন ডাক্তারবাবুরা? আমেরিকান জার্নাল অফ ক্লিনিক্যাল নিউট্রিশন এবং ইউনিভার্সিটি অফ আলবার্টার গবেষকরা বলছেন, একটি বড় ডিমে ৭০ ক্যালোরি থাকে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন