বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ০৭:০১:২০ পিএম

নেত্রকোনায় ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় শিক্ষককে মারধর (ভিডিওসহ)

জেলার খবর | নেত্রকোনা | বুধবার, ২৯ মার্চ ২০১৭ | ১০:১৪:২১ এএম

ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় নেত্রকোনা জেলা শহরের সবচেয়ে পুরোনো ঐতিহ্যবাহী পিদ্যাপীঠ দত্ত উচ্চ বিদ্যালয়ে বখাটে যুবকরা অনধিকার প্রবেশ করে অফিস কক্ষে হামলা চালিয়ে শিক্ষক কর্মচারীদের মারপিট ও আসবাবপত্র ভাংচুর করেছে।



বখাটেদের হামলায় শিক্ষক কর্মচারীসহ ৪ জন আহত হয়েছেন। এ ন্যাক্কারজনক ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শনিবার দুপুরে। আহতরা হলেন, শিক মাহবুবুর রহমান পলাশ, সিনিয়র অফিস সহকারী শরীফ উদ্দিন খান পাঠান, পিয়ন মিনা বেগম ও বেদেনা আক্তার।

স্কুলের সিনিয়র অফিস সহকারী আহত শরীফ উদ্দিন খান পাঠানসহ আহত শিক্ষক ও কর্মচারীরা বলেন, প্রতিদিনের ন্যায় গতকাল শনিবারও বিদ্যালয় ছুটির সময় স্কুলের গেইটে মেয়েদের নিরাপদে প্রবেশ এবং বের হয়ে যাওয়ার ব্যাপারে শিক্ষক ও স্কুলের কর্মচারীরা নিজেরা দাঁড়িয়ে থেকে ইভটিজারদের তাড়িয়ে দেন।

এ সময় প্রভাবশালী আওয়ামীলীগ নেতা নেত্রকোনা পৌরসভার প্যানেল মেয়র-২ হেলাল উদ্দিন শেখ’র ছেলে অন্য স্কুলের ছাত্র উর্ধ্ব শেখ তার বন্ধুদেরকে নিয়ে গেইটের সামনে অযথা দাঁড়িয়ে থেকে ইভটিজিং করতে নিষেধ এবং তাদেরকে সেখান থেকে সড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করলে উর্ধ্ব শেখ স্কুলের শিক্ষক কর্মচারীদের দেখে নেয়ার হুমকি দেয়।

এর কিছুক্ষণ পরই সে তার দলবল নিয়ে স্কুলে অনধিকার প্রবেশ করে অফিস কক্ষে হামলা চালিয়ে শিক্ষক কর্মচারীদেরকে মারপিট ও আসবাবপত্র ভাংচুর করে। স্কুলে ঢুকে শিক্ষক কর্মচারীদের মারপিট ও আসবাবপত্র ভাংচুরের ঘটনা সর্বত্র ছড়িয়ে পড়লে স্কুলের ছাত্র শিক্ষক অভিভাবক ও এলাকাবাসীর মাঝে চরম ক্ষোভ ও উত্তেজনা দেখা দেয়।

এ সময় শিক্ষকরা ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদেরকে শান্ত থেকে আইনী ব্যবস্থা নেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি শান্ত রাখার চেষ্টা করে।

স্কুলের প্রধান শিক এ বি এম শাহ্জাহান কবীর সাজু জানান, ইভটিজিং এর প্রতিবাদ করায় বখাটে যুবকরা স্কুলে ঢুকে শিক্ষক কর্মচারীদের উপর হামলা ও ভাংচুর করেছে।

এতে চার জন শিক্ষক কর্মচারী আহত হয়েছে। এটি এই বিদ্যালয়ের ইতিহাসে একটি ন্যাক্কারজনক ঘটনা। বিদ্যালয়ে এমন ঘটনা ঘটলে অভিভাবকরা কি করে তাদের মেয়েদেরকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠাবেন? আমি এ ন্যাক্কার জনক ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

এ ব্যাপারে নেত্রকোনা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আবু তাহের দেওয়ান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, স্কুল কর্র্তৃপক্ষ মামলা দিলে অবশ্যই হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন