শনিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৭ ০৯:৪৮:৫৮ এএম

নারায়ণগঞ্জে পাওনা টাকা আদায়ে ব্যবসায়ীকে শিকলে বেঁধে নির্যাতন

জেলার খবর | নারায়ণগঞ্জ | বুধবার, ২৯ মার্চ ২০১৭ | ১১:৩১:৪৫ এএম

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে এক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে পাওনা টাকা আদায়ে এক জমি ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে শিকলে বেঁধে রাতভর নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নে ৭নং ওয়ার্ডের সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা মোশারফ মেম্বারের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ উঠে।পুলিশ খবর পেয়ে ইউপি সদস্যের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ওই ব্যবসায়ীকে উদ্ধার করে। এসময় পুলিশ ওই ইউপি সদস্যসহ দুজনকে গ্রেফতার করে।

তবে গ্রেফতারকৃত ওই ইউপি সদস্য ও তার পরিবারের লোকজনদের দাবি, পাওনা টাকা পরিশোধ করতে টালবাহানা করায় ব্যবসায়ী বিল্লাল হোসেনকে আটক রেখে সেই টাকা উদ্ধারের চেষ্টা চালানো হয়েছিল। তাকে অপহরণ করা বা মারধরের কোনো ঘটনা ঘটেনি।এ ঘটনায় ওই ব্যবসায়ী বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

এদিকে জমি ব্যবসায়ী অপহরণের ঘটনা পুলিশকে গোপনে অবহিত করেছে এমন অভিযোগ তুলে বকুল আহাম্মেদ নামের অপর এক যুবলীগ নেতার ওপর হামলা চালায় মোশারফ সমর্থিত লোকজন। মুমূর্ষু অবস্থায় বকুলকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।এ ঘটনায় থানায় পৃথক আরও একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বারদী ইউনিয়নের ফুলদী গ্রামের আফাজুদ্দিনের ছেলে জমি ব্যবসায়ী বিল্লাল হোসেন সোমবার রাতে স্থানীয় একটি চায়ের দোকানে বসে চা পান করছিলেন।এসময় পিরোজপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের সদস্য ও ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি মোশারফ হোসেনের নেতৃত্বে ৮-১০ জনের একটি দল পাওনা টাকা আদায় করতে বিল্লালকে জোরপূর্বক একটি সিএনজিতে তুলে ইউপি সদস্যের বাড়িতে নিয়ে যান।

পরে মোশারফ ও তার সহযোগীরা ব্যবসায়ী বিল্লালের পায়ে শিকল দিয়ে ঘরের খুঁটির সঙ্গে বেঁধে রেখে নির্যাতন চালায়।খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল মঙ্গলবার সকালে মোশারফের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে বিল্লালকে শিকলে বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার করে।এসময় পুলিশ ভবনাথপুর গ্রামের অপর একটি বাড়ি থেকে ইউপি সদস্য মোশারফ ও তার চাচাতো ভাই শাহজাহানকে গ্রেফতার করে।

বিল্লালকে আটকের কথা পুলিশকে অবহিত করেছে অভিযোগ তুলে এ ঘটনার পর ভবনাথপুর গ্রামের যুবলীগ নেতা বকুলের ওপর হামলা চালায় মোশারফ সমর্থিত লোকজন। এসময় তারা ওই যুবলীগ নেতাকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে।সোনারগাঁ উপজেলা যুবলীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম নান্নু বলেন, মোশারফকে যুবলীগ থেকে সম্প্রতি বহিষ্কার করা হয়েছে।

উদ্ধার হওয়া ব্যবসায়ী বিল্লাল জানান, জমি কিনে দেয়ার জন্য মোশারফ তার কাছে কয়েক লাখ টাকা দিয়েছিল। জমি কিনে না দেয়ায় এবং টাকা ফেরত না দেয়ায় তাকে বারদী থেকে সিএনজি যোগে তুলে আনে মোশারফ মেম্বার ও তার সহযোগীরা। পরে তাকে শিকল দিয়ে বেঁধে রেখে দু’দফা নির্যাতন চালানো হয়।

এ ব্যাপারে গ্রেফতার মোশারফ জানান, বিল্লাল হোসেন জমি কিনে দেয়ার কথা বলে বায়না বাবদ তার কাছ থেকে ছয় লাখ টাকা অগ্রিম নিয়ে যায়। পরে জমি কিনে না দেয়ায় সে টাকা ফেরত দেয়ার একাধিকবার প্রতিশ্রুতি দেয় এবং টাকা ফেরতে টালবাহানা শুরু করে।

ইউপি সদস্য মোশারফ বলেন, এজন্য বিল্লালকে ডেকে এনে আটকে রেখে টাকা আদায় করার চেষ্টা চালানো হয়েছিল। তবে, তার ওপর কোনো নির্যাতন চালানো হয়নি।

সোনারগাঁ থানার ওসি শাহ মো. মঞ্জুর কাদের জানান, এ ঘটনায় থানায় পৃথক দুটি অভিযোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন