মঙ্গলবার, ২৩ মে ২০১৭ ০৯:০৭:৫৪ এএম

৫২ ঘণ্টা পর জানানো হলো কুমিল্লার কোটবাড়ী আস্তানায় কোন জঙ্গি নেই

জেলার খবর | কুমিল্লা | শুক্রবার, ৩১ মার্চ ২০১৭ | ০৬:১০:২৮ পিএম

কুমিল্লার কোটবাড়ীর জঙ্গি আস্তানায় সোয়াটের তল্লাশি শেষ হয়েছে। ওই আস্তানায় কোনও জঙ্গি পাওয়া যায়নি তবে অনেক বিস্ফোরক আছে। ৫২ ঘণ্টা অভিযানের পর শুক্রবার (৩১ মার্চ) বিকালে এ তথ্য জানিয়েছেন চট্টগ্রাম পুলিশের ডিআইজি মো. শফিকুর রহমান।

ডিআইজি বলেন, ‘আমাদের মনে হচ্ছে এখন বাড়ির ভেতরে কেউ নেই। বাড়িওয়ালা বুধবার সকাল ১০টায় বাড়িতে জঙ্গি থাকার তথ্য দিয়েছিল। আমরা আসতে আসতে বেলা ৪টা বেজে যায়। এরপর আমরা বাড়িটিতে কর্ডন করে তালা লাগিয়ে দেই। এর মধ্যে হয়তো তারা বেরিয়ে গেছে। বাড়িওয়ালা আমাদের বলেছিলেন, দুজন জঙ্গি আছে। এর মধ্যে একজন বাড়িতে আছে, আরেকজন বেরিয়ে গেছে।’

ডিআইজি শফিকুর রহমান বলেন, ‘ সন্ধ্যার পর পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে অভিযান সম্পর্কে বিস্তারিত জানানো হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘জঙ্গি না থাকলেও ওই বাড়িতে ব্যাপক বিস্ফোরক আছে এটা আমরা নিশ্চিত হয়েছি। অভিযান এখনো চলছে।’

ডিআইজি জানিয়েছেন, সোয়াট টিমের সদস্যরা এখনো বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করেনি। তবে এর আগে অভিযান সংশ্লিষ্ট্র একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছির। সোয়াট টিমের সদস্যরা বাড়ির ভেতরে প্রবেশ করেছে। বাড়ির নিচতলা থেকে তারা একটি ব্যাগ উদ্ধার করেছে। ব্যাগের ভেতর কী আছে তা এখনো জানা যায়নি।

এর আগে শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে সোয়াট টিমের সদস্যরা অভিযান শুরু করে। অভিযান শুরুর কিছুক্ষণ পরই সেখান থেকে গোলাগুলির শব্দ শোনা যায়। এছাড়া ঘটনাস্থলে বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের সদস্যরা উপস্থিত রয়েছে।

জঙ্গি আস্তানা এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। ওই এলাকায় ঘিরে রেখেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। শুক্রবার সকাল থেকেই সোয়াট টিম ও বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের সদস্যরা অভিযান চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে। নির্বিঘ্নে অভিযান চালাতে এবং ক্ষয়ক্ষতি ও প্রাণহানি এড়াতে কোটবাড়ী এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। এছাড়া বিশ্ব রোড থেকে কোটবাড়ী এলাকা পর্যন্ত সব ধরনের যানবাহন চলাচলা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, কোটবাড়ীর নির্মাণাধীন ওই বাড়িটি বুধবার বিকাল থেকে ঘিরে রাখা হয়েছে। সিটি করপোরেশন নির্বাচনের কারণে বৃহস্পতিবার সেখানে অভিযান চালানো হয়নি। বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের সোয়াট ও বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের ২৪ জনের একটি টিম সদস্য কুমিল্লায় অবস্থান করছেন। চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মো. শফিকুল ইসলামসহ পুলিশের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে উপস্থিত আছেন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন