বৃহস্পতিবার, ২৪ আগস্ট ২০১৭ ১০:৪৪:১৩ এএম

ঘাটাইলের চার ইউপি নির্বাচনে আইনি বাধা নেই

জেলার খবর | টাঙ্গাইল | বুধবার, ৫ এপ্রিল ২০১৭ | ০৫:৫৪:৪৯ পিএম

টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার চার ইউনিয়ন নির্বাচনে আর কোন আইনি বাধা নেই। গত ২ ই এপ্রিল সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ ইউনিয়ন বিভক্তির বিরুদ্ধে করা রিটটি খারিজ করে দেওয়ায় এই চার ইউনিয়নে নির্বাচনের আর কোনো বাধা রইলো না।

ইউপিগুলো হলো, উপজেলার ধলাপাড়া, সন্ধানপুর এবং নবগঠিত সাগরদিঘী ও সংগ্রামপুর।

জানা যায়, ঘাটাইল উপজেলার ধলাপাড়া, রসুলপুর ও সন্ধানপুর এই তিনটি ইউনিয়ন আয়তন জনসংখ্যার ও ভোটার সংখ্যার দিক দিয়ে বৃহৎ। জনস্বার্থে এই তিনটি ইউনিয়ন ভেঙে আরো তিনটি নতুন ইউনিয়নসহ ছয়টি ইউনিয়ন গঠনের প্রস্তাব করে স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন ২০১৪ সালের ১২ই আগস্ট স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে পাঠায়। সীমানা ও ভোটার নির্ধারণ করে পাঠানো ইউনিয়ন ছয়টি হলো ধলাপাড়া, সাগরদীঘি, রসুলপুর, লক্ষিন্দর, সন্ধানপুর ও সংগ্রামপুর।

উপজেলা প্রশাসনের আবেদনের প্রেক্ষিতে সরকার গত ২১শে আগস্ট ২০১৪ সালে স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ এর ১৩ এর ৮ উপ-ধারা মোতাবেক বিভাজিত ছয়টি ইউনিয়নের গেজেট বিজ্ঞপ্তি আকারে প্রকাশ করে। গেজেট প্রকাশের পর পরই রসুলপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আবুল কাশেম ও ইউপি সদস্য আবুল হাশেম সন্ধানপুর ইউনিয়নের রেজাউল করিম এবং ধলাপাড়া ইউনিয়নের পক্ষে লিটন ভূঁইয়া ও কোরবান আলী পৃথক পৃথক ভাবে হাইকোর্টে ইউনিয়ন বিভক্তির বিরুদ্ধে রিট করেন। যাহা বিচারাধীন ছিল।

স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন, ২০০৯ এর বিধানে মামলা ও সীমানা সংক্রান্ত জটিলতা থাকলে তা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন না করার বিধান রয়েছে। এ অবস্থায় রিটটি নিষ্পত্তি না হওয়ায় এ তিনটিসহ নবগঠিত তিনটি ইউনিয়নে নির্বাচন করতে পারছিল না নির্বাচন কমিশন। এ অবস্থায় গত ২ই এপ্রিল সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ তিন ইউনিয়নের মধ্যে সন্ধানপুর ও ধলাপাড়া এই দুই ইউনিয়নের বিভক্তি নিয়ে করা রিটটি খারিজ করে দেয়। এর ফলে ধলাপাড়া, সন্ধানপুর এবং নবগঠিত সাগরদিঘী, সংগ্রামপুর ইউনিয়নে নির্বাচনে বাধা রইলো না। রিট নিষ্পত্তি না হওয়ায় রসুলপুর ও নবগঠিত লক্ষিন্দর ইউনিয়নের নির্বাচন স্থগিত রয়ে গেল।

উল্লেখ্য যে, গত ২০১৬ সালে ৪ঠা জুন অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে এসব ইউনিয়ন বাদ রেখে বাকি ৮ ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাচন অফিসার মো. মাহমুদুল আলম বলেন, আদালতের রায় পেলে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এ অবস্থায় উক্ত ইউনিয়নগুলোর নির্বাচনও নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের চিঠি ও নির্দেশনা মোতাবেক অনুষ্ঠিত হবে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন