রবিবার, ১৭ নভেম্বর ২০১৯ ১১:১৭:৪৩ এএম

ইসলাম নিয়ে যে বক্তব্য দিলেন মসজিদে নববির খতিব

ধর্ম | বৃহস্পতিবার, ৬ এপ্রিল ২০১৭ | ০৭:১৩:৫০ পিএম

ইসলাম ধর্ম জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস থেকে মুক্ত। ইসলামে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের কোনও স্থান নেই। যারা জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসে লিপ্ত তাদের সঙ্গে ইসলামের কোনও সম্পর্ক নেই- বলে জানিয়েছেন মসজিদে নববির খতিব শায়েখ ড. আব্দুল মহসিন বিন মোহাম্মদ আল কাশেম।

বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত ওলামা মাশায়েখ মহাসম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

মসজিদে নববির খতিব বলেন, ”আমাদের ধর্ম পবিত্র ও শান্তির ধর্ম। ইসলাম ধর্ম আমাদের শ্রদ্ধা করতে শিখিয়েছে। সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদকে ইসলাম সমর্থন করে না। ইসলাম ধর্ম ভ্রাতৃত্বের শিক্ষা দেয়। মিলেমিশে থাকার শিক্ষা দেয়। কোরআন আমাদের শিক্ষা দিয়েছে ঐক্যবদ্ধভাবে জীবনযাপন করার। ইসলাম ভ্রাতৃত্ব, শিক্ষা ও একে অপরকে শ্রদ্ধা করার শিক্ষা দেয়। ইসলাম এমন একটি ধর্ম যেটা বোঝা ও আমল করা সবার জন্য অতিসহজ। ইসলাম বিশ্বের সব মানুষের মানবতার ধর্ম। ইসলাম ক্ষমা করা ধর্ম।”

তিনি আরও বলেন, ”ইসলাম কোনও যুগের বিপক্ষে নয়। সুশৃঙ্খলভাবে জীবনযাপনের শিক্ষা দিয়েছে। আমাদের সবচেয়ে বড় পরিচয় আমরা মুসলমান। কোনও দেশ, কোনও সমাজ ও কোনও সীমানা আমাদের বিভক্ত করতে পারে না। যেখানেই থাকি না কেন আমাদের বড় পরিচয় আমরা মুসলমান। আজকের এ সম্মেলন ইসলামের সঠিক চেহারা তুলে ধরবে। বাংলাদেশের সঙ্গে সৌদি আরবের সম্পর্ক আগামীতে আরও মজবুত হবে।”

আজ বৃহস্পতিবার ভোর থেকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের চারপাশে পাঞ্জাবি-টুঁপি পরে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে সম্মেলনস্থলে আসতে শুরু করেন ওলামা মাশায়েখগণ। এরপর সকাল ১০টায় খুলে দেওয়া হয় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের প্রবেশপথ।

সম্মেলনস্থলের ভেতরে ও বাইরে পুলিশ ও গোয়েন্দারা নিরাপত্তায় নিয়োজিত রয়েছেন। প্রতিটি প্রবেশ কেন্দ্রের ব্যাপক তল্লাশির মাধ্যমে আগতদের সম্মেলনস্থলে প্রবেশ করানো হয়।

বিকেল তিনটার দিকে প্রধানমন্ত্রী সভামঞ্চে পৌঁছান। এরপর ভাষণ দেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ অাফজাল।

সৌদি আরবের ইমামদের বক্তব্য জঙ্গিবাদ দমনে সরকারের প্রচেষ্টাকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর বক্তব্যে বলেছেন, ইসলাম ধর্ম কখনও নিরীহ মানুষ হত্যা সমর্থন করে না। এখানে জঙ্গিবাদের কোনো ঠাঁই নেই। তিনি বলেন, সৌদি আরবের ইমামদের বক্তব্য জঙ্গিবাদ দমনে সরকারের প্রচেষ্টাকে এগিয়ে নেবে। আপনারা স্ব-স্ব এলাকায় তাদের বক্তব্যে আসা পবিত্র কোরআনের বাণী পৌঁছে দেবেন। ধর্মের নামে যেন কেউ ক্ষতি না করে, জঙ্গি কর্মকাণ্ড না করে।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘মুসলমান মুসলমানকে হত্যা করে ইসলামের সঙ্গে জঙ্গিবাদ জুড়ে দেওয়া হচ্ছে। ইসলামের সঙ্গে জঙ্গিবাদ জুড়ে দিলে আমি সাথে সাথে প্রতিবাদ করি। যারা জঙ্গিবাদে বিশ্বাস করে, জঙ্গিবাদটাই তাদের ধর্ম।…এটা আমাদের পবিত্র কোরআন শরিফের কথা।’

ইসলামকে হেয়কারীদের সুযোগ করে দেওয়া হয় উল্লেখ করে শেখ হাসিনা এই ধর্মের প্রকৃত শিক্ষা মানুষকে দিতে ওলামা-মাশায়েখদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, জঙ্গিবাদে যারা যাচ্ছে, তারা আত্মসমর্পণ করলে সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়া হবে।

ইসলামের বদনাম হতে দেওয়া হবে না উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী ‘আল্লাহর দেওয়া দায়িত্ব’ যথাযথভাবে পালন করতে সবার কাছে দোয়া চান। এ সময় তিনি বলেন, এ দেশের কোনো মানুষ গৃহহারা থাকবে না, ভূমিহীন থাকবে না। সেই পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন