সোমবার, ২৬ জুন ২০১৭ ০৪:২৮:৪৯ এএম

রিপনের ফাঁসি আজ: প্রস্তুত রাখা হয়েছে জল্লাদ ও ফাঁসির মঞ্চ

আইন আদালত | সিলেট | বুধবার, ১২ এপ্রিল ২০১৭ | ০১:৫১:৩২ পিএম

জঙ্গিনেতা মুফতি আব্দুল হান্নানের সহযোগী সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে থাকা মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দেলোয়ার হোসেন রিপনের ফাঁসি হবে আজ বুধবার মধ্যরাতে। ফাঁসি কার্যকরের প্রস্তুতি রয়েছে কারা কর্তৃপক্ষের। জোরদার করা হয়েছে কারাগারের নিরাপত্তা। প্রস্তুত রাখা হয়েছে জল্লাদ ও ফাঁসির মঞ্চ।

সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মো. ছগির মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ফাঁসি কার্যকরে চারজন জল্লাদসহ ১০ জনকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জঙ্গি রিপনের পরিবারকেও বিষয়টি জানানো হয়েছে। রিপনের প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ হওয়ার চিঠি মঙ্গলবার হাতে পাওয়ার পর ফাঁসি কার্যকরের সব প্রস্তুতি শুরু হয়। এখন শুধু অপেক্ষা কতৃপক্ষের নির্দেশনার।

বুধবার কতৃপক্ষের নির্দেশ আসার পর এখন ফাঁসির চূড়ান্ত প্রস্তুতিও সম্পন্ন করা হয়েছে। ফাঁসির রায় কার্যকরের আগে নিয়ম অনুযায়ী পরিবারের সদস্যরা আরেকবার দেখা করার সুযোগ পাবেন।

কারাসূত্র জানায়, সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের কনডেম সেলে রাখা হয়েছে জঙ্গি রিপনকে। ফাঁসি কার্যকরের পূর্ব প্রস্তুতির অংশ হিসাবে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

এদিকে,গত মঙ্গলবার রিপনের সঙ্গে তার পরিবারের লোকজন দেখা করেছেন। সাক্ষাতের সময় রিপনের মা সমিরুন্নেছা মিলি,বাবা আবু ইউসুফ,ভাই শামসুল মোহাম্মদ শিপন ও ভাবি সামিয়া উর্মি উপস্থিত ছিলেন। এসময় তারা প্রায় আধা ঘণ্টা রিপনের সঙ্গে কথা বলেন। যাওয়ার সময় কারা কর্তৃপক্ষের কাছে আবদার রেখে যান ফাঁসির আগে যেন তাদের ফের সাক্ষাতের সুযোগ দেয়া হয়।

এর আগে মঙ্গলবার (১১ এপ্রিল) সকালে রাষ্ট্রপতির কাছে করা রিপনের প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ সংক্রান্ত স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠি সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে পৌঁছে। এরপর তা রিপনকে পড়ে শোনানো হয়।

উল্লেখ্য, সিলেটের হযরত শাহজালালের (রা.) মাজারে ২০০৪ সালের ২১ মে আনোয়ার চৌধুরীর ওপর গ্রেনেড হামলা হয়। হামলায় আনোয়ার চৌধুরী, সিলেটের জেলা প্রশাসকসহ অর্ধশতাধিক ব্যক্তি আহত এবং পুলিশের দুই কর্মকর্তাসহ তিনজন নিহত হন। ওই মামলায় ২০০৮ সালের ২৩ ডিসেম্বর বিচারিক আদালত ৫ আসামির মধ্যে মুফতি হান্নান, শরীফ শাহেদুল বিপুল ও দেলোয়ার হোসেন রিপনকে মৃত্যুদণ্ড এবং মহিবুল্লাহ ও আবু জান্দালকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ১৯ মার্চ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে মুফতি হান্নানের রিভিউ আবেদন খারিজ করে আগের রায় বহাল রাখেন। এরপর তিন আসামিই রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করেন। রাষ্ট্রপতি আবেদন খারিজ করে দেন। এখন ফাসি কার্যকরে আর কোনও আইনি বাধা নেই। মুফতি হান্নান ও বিপুল গাজীপুর হাইসিকিউরিটি কারাগারে বন্দি আছেন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন