শুক্রবার, ১৮ আগস্ট ২০১৭ ০৫:৩০:৫৯ এএম

লালমনিরহাট জেলা সাব রেজিস্ট্রারকে শোকজ

জেলার খবর | লালমনিরহাট | শুক্রবার, ২১ এপ্রিল ২০১৭ | ০২:০৫:৪৩ পিএম

লালম‌নিরহাট জেলা সাব রেজিস্ট্রার সরকার লুৎফুল কবীরকে শোকজ ক‌রে‌ছেন আদালত। নিয়ম বহির্ভূতভাবে ইউনিয়ন নিকাহ রেজিস্ট্রার নিয়োগ দা‌নের ব্যাপারে ১৫ দিনের মধ্যে তাকে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দিয়েছেন বিজ্ঞ আদিতমারী সহকারী জজ আদালতের বিচারক (ভারঃ) সাদেকীন হাবীব বাপ্পী। বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে এ নির্দেশ দেন ওই বিচারক।

এর আগে বুধবার জেলা সাব রেজিস্ট্রারকে প্রধান করে পাঁচজনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন দুর্গাপুর ইউনিয়নের নিকাহ রেজিস্ট্রার মাহমুদুল হাসান।

মামলার বিবরণে জানা যায়, আদিতমারী উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের নিকাহ রেজিস্ট্রার প্রায়ত সুলতান আহমেদের মৃত্যুজনিত শূন্য পদে তার ছেলে মাহমুদুল হাসানকে ২০০৮ সালের ১১ মার্চ অস্থায়ী নিকাহ রেজিস্ট্রার হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়।

দীর্ঘ ৯ বছর ধরে ওই ইউনিয়নের নিকাহ রেজিস্ট্রারের দায়িত্ব পালন করে আসছেন তিনি। চলতি বছরের ৮ মার্চ জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে নিকাহ রেজিস্ট্রারদের পরিচয়পত্র প্রদান অনুষ্ঠানে দুর্গাপুর ইউনিয়নের নিকাহ রেজিস্ট্রার হিসেবে মাহমুদুল হাসানকে পত্র প্রদান করে জেলা রেজিস্ট্রার।

এদিকে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয় কর্তৃক নিকাহ রেজিস্ট্রার মাহমুদুল হাসানের লাইসেন্স বাতিল ঘোষণা না করেই ওই পদে নিয়োগের জন্য আদিতমারী উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার ২৮ ফেব্রুয়ারি একটি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন।

এ নিয়োগ অবৈধ দাবি করে তা বাতিল করার আদেশ প্রদানে ১৯ এপ্রিল বুধবার আদিতমারী সহকারী জজ আদালতে পাঁচজনকে বিবাদী করে একটি মামলা করেন মাহমুদুল হাসান।

এ মামলার অন্য বিবাদীরা হলেন- আদিতমারী উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার এসএম কামরুল হাসান, দুর্গাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছালেকুজ্জামান প্রামানিক, ভেলাবাড়ি ইউপি নিকাহ রেজিস্ট্রার এজাজুল ইসলাম ও লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক।

মামলাটি আমলে নিয়ে বৃহস্পতিবার বিজ্ঞ বিচারক ওই নিয়োগ প্রক্রিয়া অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা আদেশ প্রদান করেন। সেই সাথে এ নিয়োগ কেন অবৈধ্য নয়, তার উপযুক্ত কারণ দর্শানোর জন্য আগামি ১৫ দিনের মধ্যে জেলা সাব রেজিস্ট্রার সরকার লুৎফুল কবীরসহ বিবাদীদেরকে নির্দেশ প্রদান করেন।

এ মামলার বাদি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট রাজা মিঞা জানান, জেলা রেজিস্ট্রারের যোগসাজশে আদিতমারী সাব-রেজিস্ট্রার যে নিয়োগ প্রক্রিয়া গ্রহণ করেছেন তা সম্পূর্ণ অবৈধ ও সুস্পষ্ট আইনের লঙ্ঘন। বিজ্ঞ আদালত অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা দিয়েছেন। আগামী দিনে স্থায়ী নিষেধাজ্ঞা দিবেন বলেও তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

আদিতমারী উপজেলা সাব রেজিস্ট্রার এসএম কামরুল হোসেন ও জেলা রেজিস্ট্রার সরকার লুৎফুল কবীরের মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে তাদের দু’জনের ব্যবহৃত মোবাইল বন্ধ পাওয়া যায়।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন