বৃহস্পতিবার, ২৫ মে ২০১৭ ০১:৩৪:২১ এএম

মার্কিন দূতের অপসারণ দাবি তুরস্কের

আন্তর্জাতিক | বৃহস্পতিবার, ১৮ মে ২০১৭ | ১১:৫১:৫৬ পিএম

মার্কিন বিশেষ দূত ব্রেট ম্যাকগার্ককে অপসারণের দাবি তুলেছেন তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুশোগ্লু। তার দাবি, ম্যাকগার্ক কুর্দিদের প্রতি পক্ষপাতদুষ্ট।

মার্কিন কূটনীতিবিদ ম্যাকগার্ক ‘ইসলামিক স্টেট (আইএস)-বিরোধী আন্তর্জাতিক জোটের সমন্বয়ক হিসেবে কর্মরত আছেন। তুরস্কের দাবি, তিনি কুর্দি সশস্ত্র সংগঠন ‘পিপলস প্রটেকশন ইউনিটস’(ওয়াইপিজে) ও ‘কুর্দিস্তান ওয়ার্কার্স পার্টি’ (পিকেকে)-কে সমর্থন করে চলেছেন।

বৃহস্পতিবার চাভুশোগ্লু বেসরকারি এনটিভিকে বলেন, ম্যাকগার্ককে পদ থেকে সরিয়ে দেওয়াটাই সবচেয়ে ভালো হবে।

পিকেকে কয়েক দশক ধরে দক্ষিণ-পূর্ব তুরস্কে বিচ্ছিন্নতাবাদী যুদ্ধ চালাচ্ছে। তুরস্ক, আমেরিকা ও ইইউ একে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে গণ্য করে। অন্যদিকে, ওয়াইপিজে সিরীয় গৃহযুদ্ধে মার্কিনসমর্থিত ‘সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সেস’ (এসডিএফ)-এর গুরুত্বপূর্ণ অংশ। যুক্তরাষ্ট্র একে তার আইএসবিরোধী লড়াইয়ে প্রধান হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করতে চায়। কিন্তু আঙ্কারা মনে করে, ওয়াইপিজে পিকেকের অঙ্গ সংগঠন ছাড়া আর কিছু নয়।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ম্যাকগার্কের সমালোচনা তুর্কি সরকারের জন্য নতুন কিছু নয়। কিন্তু এই মুহূর্তে যখন আইএসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ও মতভেদ নিয়ে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে, তারই মধ্যে এই মন্তব্য যুক্তরাষ্ট্রের ওপর তুরস্কের চাপ সৃষ্টির চেষ্টা হতে পারে। তারা আরো বলেছেন, ওবামা প্রশাসনের নীতি তুরস্ককে ক্ষুদ্ধ করেছিল। তাদের প্রত্যাশা ছিল, ট্রাম্প মার্কিন নীতি পাল্টে দেবেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত তার কোনো লক্ষ্মণ দেখা যাচ্ছে না। তাই আঙ্কারা রাখঢাক ছাড়াই তাদের হতাশা ব্যক্ত করছে।

চাভুশোগ্লুর মন্তব্যের মাত্র দুই দিন আগে তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে আলোচনায় বসেন। এ সময় ওয়াইপিজের প্রতি মার্কিন সমর্থন নিয়েও আলোচনা হয়। পরে এরদোয়ান সংবাদমাধ্যমকে বলেন, সন্ত্রাসী ওয়াইপিজে ও পিকেকের সঙ্গে সহযোগিতা কখনোই সমর্থন করবেন না তারা।

ওয়াইপিজেসহ এসডিএফ সিরিয়ায় আইএসের স্বঘোষিত রাজধানী রাকায় ব্যাপক অভিযান শুরু করতে যাচ্ছে। ট্রাম্প তাদের সামরিক সাহায্য করারও ঘোষণা দিয়েছেন। এরদোয়ান জানান, তিনি ট্রাম্পকে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র ওয়াইপিজেকে সহায়তা করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তুরস্ক কখনোই তার অংশীদার হবে না।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন