রবিবার, ২৫ জুন ২০১৭ ০৭:৪৯:১৬ পিএম

এফবিআইয়ের তদন্ত ইতিহাসের সবচেয়ে ‘ভূতুড়ে কাণ্ড’ : ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক | শুক্রবার, ১৯ মে ২০১৭ | ০১:৫৩:৩০ এএম

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপ নিয়ে এফবিআইয়ের তদন্তকে ইতিহাসের সবচেয়ে ‘ভূতুড়ে কাণ্ড’ হিসেবে অভিহিত করেছেন।

২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের অভিযোগে তদন্ত শুরুর পর এফবিআইয়ের প্রাক্তন প্রধান জেমস কোমিকে গত সপ্তাহে বহিষ্কার করেন ট্রাম্প। তদন্ত চালিয়ে নিতে ও তদারক করতে এফবিআইয়ের প্রাক্তন প্রধান বরার্ট মুলারকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

এর পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার ট্রাম্প এক টুইটে বলেন, ‘আমেরিকার ইতিহাসে একজন রাজনীতিবিদের বিরুদ্ধে এটিই সবচেয়ে বড় ভূতুড়ে তদন্তের ঘটনা।’

এর আগে মার্কিন নির্বাচনে রাশিয়ার সম্ভাব্য হস্তক্ষেপ ও ট্রাম্পের নির্বাচনী শিবিরের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার তদন্তে এফবিআইয়ের সাবেক পরিচালক রবার্ট মুলারকে নিয়োগ দেয় দেশটির বিচার বিভাগ।

যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয় থেকে জানানো হয়েছে, জনগণের স্বার্থেই প্রশাসনের বাইরের কাউকে এই তদন্ত ভার দেওয়া হয়েছে। মুলারের এই নিয়োগকে স্বাগত জানিয়েছেন ডেমোক্রেট ও রিপাবলিকান দলের সদস্যরা।

এফবিআইয়ের সাবেক পরিচালক বার্ট মুলার পেশায় আইনজীবী। তিনি ১২ বছর গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআইয়ের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

মুলারের নিয়োগ ঘোষণা শেষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রড রোজেনস্টেইন বলেছেন, জনস্বার্থেই আমাকে এই তদন্তে এমন এক ব্যক্তিকে নিয়োগ দিতে হয়েছে যিনি সাধারণ চেইন অব কমান্ডের আওতায় স্বাধীন বৃত্তির চর্চা করেন।

নিয়োগের পর প্রতিক্রিয়ায় মুলার বলেছেন, ‘আমি এই দায়িত্ব গ্রহণ করছি এবং আমার সর্বোচ্চ সামর্থ্য দিয়ে এই কাজ শেষ করব।’

হোয়াইট হাউজ থেকেও মুলারের নিয়োগকে স্বাগত জানানো হয়েছে। ট্রাম্প এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘রাশিয়ার সঙ্গে আমার নির্বাচনী শিবিরের কোনো সম্পর্ক নেই আমাদের জানা সেই বিষয়টিই এই তদন্তে নিশ্চিত হবে।’

মার্কিন নির্বাচনে রাশিয়ার সম্ভাব্য হস্তক্ষেপ ও ট্রাম্পের নির্বাচনী শিবিরের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার বিষয়ে তদন্ত করছিলেন এফবিআইয়ের প্রধান জেমস কোমি। গত সপ্তাহেই তাকে বরখাস্ত করে বিতর্কিত হন ডোনাল্ড ট্রাম্প।


তথ্যসূত্র : বিবিসি অনলাইন

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন