শুক্রবার, ২৮ জুলাই ২০১৭ ০৭:০৫:২৯ পিএম

পোষাক না কেনায় কাস্টমারকে মারতে এলো ইনফিনিটির সেলসম্যান

নগর জীবন | শুক্রবার, ২৩ জুন ২০১৭ | ০৭:২২:৫৬ পিএম

ট্রায়াল দিয়ে পোষাক না কেনায় রাজধানীর বসুন্ধরা সিটি কমপ্লেক্সে অবস্থিত
ইনফিনিটি মেগামলে কাস্টমারদের লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগটি নিজের
ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখে শেয়ার করেন ঘটনায় লাঞ্ছনার শিকার হাসান মাহমুদ
তুষার। 


তুষার ২৩ জুন শুক্রবার দুপুরে তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে জানান, ট্রায়াল
দিয়ে পছন্দ হয়নি বলে পোষাক না কেনার কারণে ইনফিনিটি মেগামলের বিক্রয়কর্মীরা
তাকে জামার হ্যাঙ্গার দিয়ে মারতে আসেন। তিনি লেখেন, ‘পোষাক পছন্দ হয়নি,
কিনবেন না, তাহলে ট্রায়াল কেন দিলেন? এই ঘটনার জের ধরে বসুন্ধরার ইনফিনিটির
সেলসম্যানরা হ্যাংগার খুলে কাস্টমারদের মারধোর করার জন্য তেড়ে আসে। আজকে
ফ্যামিলিসহ নিজেই এই ঘটনার শিকার হয়ে এলাম। এদেশে ভিকটিমরা যে কি পরিমাণ
অসহায় সেরকম একটা ঘটনার জলজ্যান্ত সাক্ষী হলাম আমি নিজেই। কাস্টমাররা বাঁধা
দিতে এলে ম্যানেজারসহ ১২/১৩ জন সেলসম্যান কাস্টমারদের গায়ে হাত তোলে।
শেষপর্যন্ত ম্যানেজার, সেলসম্যান এবং সিকিউরিটির লোকজনের তোপের মুখে পড়ে
কোন ধরনের বিচার ছাড়াই আমাদের বাসায় ফিরে আসতে হয়েছে।’



ঘটনার আকস্মিকতায় হতভম্ব হয়ে পড়েন তারা। পরবর্তীতে অভিযোগ করবেন বলে
জানালে মেগামলটির ম্যানেজার এবং সেলসম্যানরা ক্ষেপে গিয়ে বলে, ‘যার কাছে
ইচ্ছা তার কাছে কমপ্লেইন করেন। দেখমুনে কী হয়।’ তা ছাড়া ঘটনার সময় উপস্থিত
থাকা অন্যান্য ক্রেতাদের উদ্দেশ্যে মেগামলটির ম্যানেজার বলেন, ‘ভাই যান তো,
আমাদের এখানে প্রায়ই এরকম হয়। কিছু লোক আসেই গ্যাঞ্জাম করতে।’ ম্যানেজারের
আরেক ধাপ ওপরে বিক্রয়কর্মী। সে চিৎকার করে বলতে থাকে ‘নিচে নাম, পুইত্তা
ফালামু! কার কাছে কম্পলেইন করবি কর! কী হইব দেখি!’ 


পরবর্তীতে ফেসবুকে আরও একটি পোস্ট দিয়ে তুষার জানান, ইনফিনিটির ঘটনার
সত্যতা নিয়ে অনেকে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। কিন্তু ঘটনাটি যে সত্য সেটি
উল্লেখ করে তিনি বলেন, ইনফিনিটি তাদের ফেসবুক পেইজ থেকে এ ঘটনার জন্য দুঃখ
প্রকাশ করে দুটি পোস্ট দেয়। পরবর্তীতে পোস্টের নিচে জনসাধরণের তোপের মুখে
পোস্টগুলো সরিয়ে নেয় ইনফিনিটি। বর্তমানে পেইজটি ডিঅ্যাক্টিভ করে রাখা
হয়েছে। 



এদিকে এ ঘটনার পরপরই ইনফিনিটি তাদের ফেসবুক পেইজে জানায় যে, কাস্টমারের
সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করার কারণে ওই সেলসম্যানকে বরখাস্ত করা হয়েছে। তবে
তুষার মেগামলটির ক্ষমতার অপব্যবহার নিয়েও প্রশ্ন তোলেন। ম্যানেজার এখনও
স্বপদে বহাল থাকার বিষয়টি এবং ফেসবুকের জনপ্রিয় এক গ্রুপে ঘটনা সংক্রান্ত
স্ট্যাটাসগুলো সরিয়ে নেওয়ার বিষয়গুলো তার প্রমাণ দেয়। 


এ ব্যাপারে ইনফিনিটি মেগামল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে প্রতিষ্ঠানটির কাস্টমার কেয়ার প্রতিনিধি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। তিনি বলেন, ‘আমরা এ ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছি। এ
ব্যাপারে আমাদের ম্যানেজমেন্ট কাজ করছে। খুব শিগগির আমরা এ ব্যাপারে কথা
বলতে পারব।' তা ছাড়া ইনফিনিটির ফেসবুক পেইজটি ঠিক করা হচ্ছে বলেও জানান
তিনি।


খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন