মঙ্গলবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭ ১২:৫২:৩৩ এএম

দিনাজপুরে অনুষ্ঠিত হলো ‘উপমহাদেশের সর্ববৃহত্তম ঈদ জামাত’

জেলার খবর | দিনাজপুর | সোমবার, ২৬ জুন ২০১৭ | ০৭:৫৯:৩১ পিএম

প্রায় সাড়ে চার লাখ মুসল্লির সমাগমে দিনাজপুরে অনুষ্ঠিত হলো ‘উপমহাদেশের সর্ববৃহত্তম ঈদের জামাত’। দিনাজপুরের গোর-এ-শহীদ বড় ময়দানে আজ সোমবার সকাল ৯টায় এ ঈদের জামাতে ইমামতি করেন,আলহাজ মাওলানা শামসুল হক কাসেমি। নামাজে অংশ নেয় বিচারপতি এনায়েতুর রহিম,হুইপ ইকবালুর রহিম,জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম,পুলিশ সুপার হামিদুল আলমসহ প্রায় সাড়ে চারলক্ষাধিক মুসল্লি।

দিনাজপুর জেলা শহর ছাড়াও আশপাশের জেলা ও উপজেলা থেকেও এ ঈদের জামাতে স্বতঃস্ফুতভাবে অংশ নেয় ধর্মপ্রান মুসল্লিরা।

শোলাকিয়াকে ছাড়িয়ে এই প্রথম বারের মতো এই ময়দানে এক সাথে ৫ লক্ষাধিক মুসল্লির ঈদের নামাজ আদায় ব্যবস্থা করা হয়। জামাতে প্রায় সাড়ে ৪ লাখ মুসল্লি অংশ নেয়। উপমহাদেশের সর্ববৃহত এই ঈদের জামাত কয়েকটি টেলিভিশন চ্যানেল সরাসরি সম্প্রচার করে। ঈদের জামাত সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য সর্বোচ্চ নিরাপত্তাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়।

উপমহাদেশের সর্ববৃহত ঈদের এই জামাত সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হওয়ায় সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন এই ঈদগাহ মাঠ তৈরীর উদ্যোক্তা জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি।
তিনি বলেন,এ আমাদের অর্জন। দিনাজপুরবাসী’র গৌরব। ভবিষ্যত প্রজন্মের জন্য আর্শিবাদ। যা পৃথিবীর মানুষ দেখবেন। অনুভব করবেন।

দিনাজপুর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো.আব্দর রহমান ফেস বুকে তার ফেসবুক স্টেটাসে লিখেছেন, “সত্যিই অভিভূত। এত বিশাল জন সাগরের ঢেঊ দেখা হয়েছে কিনা জানি না। তবে প্রত্যাশার চাইতে লাখো লাখো জনতার এ বিশাল সমাবেশে রচিত হল নতুন ইতিহাস। শোলাকিয়ার রেকর্ড় ভেঙ্গে দিনাপুরের বহৎ নয় বরং বৃহত্তম জামাত। আয়োজন ছিল পাঁচ লক্ষের। কিন্তু সে সীমানা পেরিয়ে তার চাইতেও অধিক জনতা। অতিতে দিনাজপুরের মানুষ সাগর দেখেনি জন্য রামসাগরকেই সাগর ভাবত। জানিনা আজ তা জনসাগর কিনা।

তিনি আরও লিখেন, ধন্যবাদ মাননীয় হুইপ জনাব ইকবালুর রহিম মহোদয়কে, যিনি ২০১৪ সালে এই ঈদের জামাতে ঘোষণা দিয়েছিলেন তাঁর এমন অভিব্যাক্তি। অনেক চেলেঞ্জ মোকাবিলা করে সে সপ্ন আজ সত্যি হল। জেলা প্রশাসন সহ সকল সামরিক ও বেসামরিক দপ্তর সবাই একযোগে তা বাস্তবায়নে তৎপর ছিলেন। বড় মাঠ নামের এই ময়দান এখন বৃহত্তম ময়দান। দিনাজপুরকে দেশ ও বিদেশে চিনবে নতুনভাবে। বড়মাঠ হোক দিনাজপুরের সর্বস্তরের জনগণের ঐক্যের প্রতিক। আসুন আমরা সকলে বিনির্মাণ করি এক নতুন ও সমৃদ্ধ দিনাজপুর।”

দিনাজপুরের বাসিন্দা বর্তমানে আমেরিকান নাগরিক শাহীন খান এ ঈদের জামাতে নামাজ আদায়ের জন্য এবার দেশে এসেছেন। তিনি বলেছেন,আমার জীবনে এমন ঈদের জামাত দেখিনি কখনও। আমি দেশে এসে এই বৃহত্তম ঈদ জামাত পড়তে পেরে স্বার্থক।


বীরগঞ্জ উপজেলা থেকে এই ঈদগাহ ময়দানে নামাজ আদায় করতে আসা ৭০ বছরের বৃদ্ধ ইমামুদ্দিন জানালেন, শেষ বয়সে শেষ পাওনাটা পেলাম এই ঈদ জামাতে নামাজ পড়ে। এতো মানুষের সাথে এক কাতারে নামাজ পড়তে পারবো কখনো ভাবিনি।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর মালিকাধীন দিনাজপুরের গোর-এ-শহীদ বড় ময়দানের এই বিশাল মাঠে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে প্রায় ৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যায়ে নান্দনিক সৌন্দর্য মন্ডিত করে নির্মিত হয়েছে ঈদগাহ মিনার।

দৃষ্টি নন্দন এই ঈদগাহ মিনার এ রয়েছে ৫২টি গম্বুজ। প্রধান গম্বুজের সামনে রয়েছে মেহরাব,৪৭ ফুট উচ্চতা ইমাম দাঁড়ানোর স্থান। এর পাশাপাশি রয়েছে ৫১টি গম্বুজ। এছাড়াও ৫১৬ ফুট দৈর্ঘেও ৩২টি আর্চ নিমার্ণ করা হয়েছে। প্রতিনি গম্বুজ ও মিনারে রয়েছে বৈদ্যুতিক বাতি। রাত হলেই যা ঈদগাহ ময়দানকে আলোকিত করে তোলে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন