বুধবার, ২৬ জুলাই ২০১৭ ০৬:৩৫:৩৯ পিএম

রুবেল-সাকিবের জন্য অপেক্ষা

খেলাধুলা | সোমবার, ১৭ জুলাই ২০১৭ | ০৭:৫৫:০২ পিএম

অস্ট্রেলিয়া ও সাউথ আফ্রিকা সিরিজ সামনে রেখে মিরপুরে ফিটনেস ক্যাম্পে যোগ দিয়েছেন জাতীয় দলের সবাই। সামনে ব্যস্ত সূচি, ফিটনেস বাড়িয়ে নেওয়ার মোক্ষম সময় এটাই।

মাশরাফি-মুশফিকরা সবাই যখন সেই কাজটা করছেন, তখন ঘরে বসে আলস সময় কাটাতে হচ্ছে পেসার রুবেল হোসেনকে। একই অবস্থা অনাহূত চোটে পড়া সাকিব আল হাসানেরও। দুজনেরই তাই ফেরার অপেক্ষা।

ইংল্যান্ড থেকে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলে ফেরার পর হঠাৎই সামনে আসে রুবেলের চোয়ালে চোটের বিষয়টি। দ্রুতই অস্ত্রোপচারও করানো হয়। পরে রুবেলকে চার সপ্তাহের বিশ্রামে থাকতে বলেন চিকিৎসকরা। চলতি সপ্তাহেই বিশ্রামে কাটিয়ে ফিরবেন এই পেসার। আগামী রোববার থেকে শুরু করবেন পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার কাজ। তার দুই সপ্তাহ পর বল হাতে নিতে পারবেন।

বিসিবির চিকিৎসক মনিরুল আমিন আশা করছেন ৫ আগস্টের মধ্যেই ক্রিকেটীয় কর্মকাণ্ডে ফিরতে পারবেন রুবেল। সোমবার বিসিবি কার্যালয়ে সংবাদ মাধ্যমকে তিনি জানালেন, ‘ইতিমধ্যেই চার সপ্তাহের কাছাকাছি হয়ে গেছে। আশা করছি, চার সপ্তাহ পর রিহ্যাব প্রোগ্রামে ধীরে ধীরে সে লোয়ার বডি এক্সারসাইজ শুরু করতে পারবে। ছয় সপ্তাহ পর ফুল ট্রেনিং প্রোগ্রাম শুরু হবে। আর ৫ আগস্ট থেকে পূর্ণাঙ্গ কার্যক্রম।’

১০ জুলাই থেকে স্ট্রেন্থ ও কন্ডিশনিং কোচ মারিও ভিল্লাভারায়নের অধীনে মিরপুরে চলছে ফিটনেস ক্যাম্প। চলবে ২৮ জুলাই পর্যন্ত। তার আগেই অবশ্য বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশের অধীনে বিশেষ পেস বোলিং ক্যাম্প করতে যাচ্ছে বিসিবি। সেখানেও থাকা হবে না রুবেলের। সেজন্য আক্ষেপ ঝড়ল এই পেসারের কণ্ঠে, ‘থাকতে পারলে ভালো হত। এখন ইনজুরিতে তো কারও হাতে নেই।’

বার্মিংহামে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনাল ম্যাচের পর হোটেলের দরজার সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে চোয়ালে চোট পান রুবেল। দেশে ফিরে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হলে অস্ত্রোপচারের পরামর্শ দেওয়া হয়। গত ২১ জুন রাজধানীর ডেলটা হাসপাতালে হয় তার অস্ত্রোপচার।

অন্যদিকে গোড়ালির ইনজুরিতে পড়া সাকিব আল হাসানকে নিয়েও দুশ্চিন্তা নেই। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই ব্যাটিং-বোলিং শুরু করতে পারবেন এই অলরাউন্ডার। মনিরুল আমিন জানালেন, ‘সাকিবের ইনজুরির উন্নতি হচ্ছে। আশা করছি আগামী দুই-একদিনের মধ্যেই সে আপার বডি এক্সারসাইজ শুরু করে দিতে পারবে। তারপর লোয়ার বডি, সাইক্লিং, রানিং শুরু করে দিতে পারবে। ইনজুরির দিন থেকে বড়জোর ১০ দিন লাগবে পুরোদমে সব অনুশীলন শুরু করতে।’

আমিন জানান, ১৪ জুলাই বাঁ-পায়ের গোড়ালিতে চোট পান সাকিব। পরদিন মিরপুরে ব্যান্ডেজ বাঁধা পা নিয়ে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে হাঁটতে দেখা যায় এই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে। ইনজুরির বিষয়টি সামনে আসে ওইদিনই। বিসিবি সূত্রে জানা যায়, নিজ বাসার সিঁড়িতে পা মচকে চোট পেয়েছেন সাকিব। বিসিবির পক্ষ থেকে তাৎক্ষনিকভাবে অবশ্য বলা হয়েছিল, হয়ত জিম করতে গিয়ে ব্যথা পেয়েছেন সাকিব। কোচের কারণটি তাই পরিস্কার নয় এখনো। বিসিবির চিকিৎসকরাও এ ব্যাপারে জানাতে পারেননি কিছু।

স্পোর্টস ডেস্ক: অস্ট্রেলিয়া ও সাউথ আফ্রিকা সিরিজ সামনে রেখে মিরপুরে ফিটনেস ক্যাম্পে যোগ দিয়েছেন জাতীয় দলের সবাই। সামনে ব্যস্ত সূচি, ফিটনেস বাড়িয়ে নেওয়ার মোক্ষম সময় এটাই। মাশরাফি-মুশফিকরা সবাই যখন সেই কাজটা করছেন, তখন ঘরে বসে আলস সময় কাটাতে হচ্ছে পেসার রুবেল হোসেনকে। একই অবস্থা অনাহূত চোটে পড়া সাকিব আল হাসানেরও। দুজনেরই তাই ফেরার অপেক্ষা।

ইংল্যান্ড থেকে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলে ফেরার পর হঠাৎই সামনে আসে রুবেলের চোয়ালে চোটের বিষয়টি। দ্রুতই অস্ত্রোপচারও করানো হয়। পরে রুবেলকে চার সপ্তাহের বিশ্রামে থাকতে বলেন চিকিৎসকরা। চলতি সপ্তাহেই বিশ্রামে কাটিয়ে ফিরবেন এই পেসার। আগামী রোববার থেকে শুরু করবেন পুনর্বাসন প্রক্রিয়ার কাজ। তার দুই সপ্তাহ পর বল হাতে নিতে পারবেন।

বিসিবির চিকিৎসক মনিরুল আমিন আশা করছেন ৫ আগস্টের মধ্যেই ক্রিকেটীয় কর্মকাণ্ডে ফিরতে পারবেন রুবেল। সোমবার বিসিবি কার্যালয়ে সংবাদ মাধ্যমকে তিনি জানালেন, ‘ইতিমধ্যেই চার সপ্তাহের কাছাকাছি হয়ে গেছে। আশা করছি, চার সপ্তাহ পর রিহ্যাব প্রোগ্রামে ধীরে ধীরে সে লোয়ার বডি এক্সারসাইজ শুরু করতে পারবে। ছয় সপ্তাহ পর ফুল ট্রেনিং প্রোগ্রাম শুরু হবে। আর ৫ আগস্ট থেকে পূর্ণাঙ্গ কার্যক্রম।’

১০ জুলাই থেকে স্ট্রেন্থ ও কন্ডিশনিং কোচ মারিও ভিল্লাভারায়নের অধীনে মিরপুরে চলছে ফিটনেস ক্যাম্প। চলবে ২৮ জুলাই পর্যন্ত। তার আগেই অবশ্য বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশের অধীনে বিশেষ পেস বোলিং ক্যাম্প করতে যাচ্ছে বিসিবি। সেখানেও থাকা হবে না রুবেলের। সেজন্য আক্ষেপ ঝড়ল এই পেসারের কণ্ঠে, ‘থাকতে পারলে ভালো হত। এখন ইনজুরিতে তো কারও হাতে নেই।’

বার্মিংহামে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনাল ম্যাচের পর হোটেলের দরজার সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে চোয়ালে চোট পান রুবেল। দেশে ফিরে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হলে অস্ত্রোপচারের পরামর্শ দেওয়া হয়। গত ২১ জুন রাজধানীর ডেলটা হাসপাতালে হয় তার অস্ত্রোপচার।

অন্যদিকে গোড়ালির ইনজুরিতে পড়া সাকিব আল হাসানকে নিয়েও দুশ্চিন্তা নেই। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যেই ব্যাটিং-বোলিং শুরু করতে পারবেন এই অলরাউন্ডার। মনিরুল আমিন জানালেন, ‘সাকিবের ইনজুরির উন্নতি হচ্ছে।

আশা করছি আগামী দুই-একদিনের মধ্যেই সে আপার বডি এক্সারসাইজ শুরু করে দিতে পারবে। তারপর লোয়ার বডি, সাইক্লিং, রানিং শুরু করে দিতে পারবে। ইনজুরির দিন থেকে বড়জোর ১০ দিন লাগবে পুরোদমে সব অনুশীলন শুরু করতে।’

আমিন জানান, ১৪ জুলাই বাঁ-পায়ের গোড়ালিতে চোট পান সাকিব। পরদিন মিরপুরে ব্যান্ডেজ বাঁধা পা নিয়ে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে হাঁটতে দেখা যায় এই বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে। ইনজুরির বিষয়টি সামনে আসে ওইদিনই। বিসিবি সূত্রে জানা যায়, নিজ বাসার সিঁড়িতে পা মচকে চোট পেয়েছেন সাকিব।

বিসিবির পক্ষ থেকে তাৎক্ষনিকভাবে অবশ্য বলা হয়েছিল, হয়ত জিম করতে গিয়ে ব্যথা পেয়েছেন সাকিব। কোচের কারণটি তাই পরিস্কার নয় এখনো। বিসিবির চিকিৎসকরাও এ ব্যাপারে জানাতে পারেননি কিছু।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন