রবিবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৭ ০২:৫৪:০৪ পিএম

লামায় সরকারি সিল মারা ১৮৪ বস্তা চাল আটক

জেলার খবর | বান্দরবন | বুধবার, ৯ আগস্ট ২০১৭ | ০৬:৪৯:০১ পিএম

লামা বাজারের রনি ষ্টোর নামের একটি দোকান থেকে আজ বুধবার দুপুর সাড়ে বারটার সময় ১৮৪ বস্তা সরকারি চাল আটক করেছে লামা উপজেলা নির্বাহী র্কমর্কতা খিন ওয়ান নু ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) লামা সায়দ ইকবাল।

চালের বস্তার গায়ে খাদ্য অধিদপ্তরের খাদ্য বান্ধব কর্মসূচি ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের ভিজিডি ২০১৭ কর্মসূচির চাল ও খাদ্য বান্ধব র্কমসূচি খাদ্য অধিদপ্তর খাদ্য মন্ত্রণালয় লেখা রয়েছে। প্রতিটি বস্তা এ চাউলের ওজন রয়েছে ৩০ কেজি করে।

আজ বুধবার দুপুরে লামা বাজারের রনি ষ্টোরের মালিক রনি কর্মকার চালের বস্তা পরিবর্তন করার সময় উপস্থিত জনগণ উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি জানান। সহকারী কমিশনার (ভূমি) লামা দোকানে গিয়ে চালের গুদাম তালা মেরে সিলগালা করে দেন।
রনি ষ্টোরের মালিক রনি কর্মকার জানিয়েছেন, চাল গুলো আলীকদম খাদ্য গুদাম থেকে মঙ্গলবার বিকালে আব্দুর রহিম নামক এক ডিলার লামা বাজারে এনে আমার দোকানে পৌঁছে দিয়েছেন।

ডিলার আব্দুর রহিম আমাকে বলেন, ৩০ কেজি করে প্রতি বস্তায় চাউল রয়েছে। তবে এ চাউলের গুলো খুলে সব বস্তার চাউল এক করে ৫০ কেজি করে মেপে ১৬৪০ টাকা হিসাব ধরে আমাকে বিক্রি করে। আমার চাউলের গুদামে চাউলের বস্তা গুলো খুলে ৫০ কেজি করে বস্তা করছিলো আলীকদমের ডিলার আব্দুর রহিম।

তবে আলীকমের এ চাউল ব্যাবসায়ী আব্দুর রহিম বলেন, আমি এ চাউল গুলো গতকাল আলীকদম খাদ্য অফিস থেকে উত্তোলন করে লামা বাজারের চাউল ব্যবসায়ী রনি র্কমকারের কাছে ৩০ কেজি বস্তায় ১৮৪ বস্তা চাউল বিক্রি করি।

আলীকদম খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মংহ্লাপ্রু মার্মা বলেছেন, চালগুলো আলীকদম খাদ্য গুদাম থেকে গত ৮ আগষ্ট তারিখে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়ে আর কোন তথ্য দিতে রাজি হননি।

আলীকদম উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম জানিয়েছেন, আটককৃত চালগুলো আলীকদমের বিভিন্ন ইউনিয়নের দুর্গমের ভিজিডির চাল। খাদ্য গুদাম কর্মকর্তার সহায়তায় চালগুলো বিতরণ না করে সুযোগ বুঝে ডিলারের মাধ্যমে সংশ্লিষ্টগণ কালো বাজারে বিক্রয় করে দিয়েছে।

বান্দরবান জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক সুবীর নাথ চৌধুরী জানিয়েছেন, গত ৩০ জুন ভিজিডি কর্মসূচির সর্বশেষ ডিও ছাড় করা হয়েছে। বর্তমান অর্থবছরের ডিও ছাড়ার মত কর্মসূচির কোন বরাদ্দ আসে নাই। বন্যার কিছু চাল জিআর খাতের বরাদ্দ ছাড়া হয়েছে। জুনের পরে খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির কোন চালের ডিও প্রদান করা হয় নাই। তবে খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির ব্লক মারা বস্তা দিয়ে ভিজিডি কর্মসূচির চালের প্যাকেট করা হয়েছে।

লামা উপজেলা নির্বাহী অফিসার খিন ওয়ান নু বলেন, রনির দোকার থেকে ১৮৪ বস্তা চাউল আটকের বিষয়ের সত্যতা নিশ্চত করেছেন এবং চাউল গুলোর বিষয়ে যাচাই বাছাই চলছে এখনো।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন