বৃহস্পতিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৭ ১১:৩৫:২৪ পিএম

তোপ দাগলেন আইসিসির বিরুদ্ধে

খেলাধুলা | রবিবার, ১৩ আগস্ট ২০১৭ | ০২:৪৩:৩১ এএম

পাল্লেকেলেতে সিরিজের তৃতীয় তথা শেষ টেস্টে দলের অন্যতম সেরা স্পিনার রবীন্দ্র জা়ডেজাকে পাবেন না বিরাট কোহলি। ভারত অধিনায়ক যে কতটা হতাশ, তা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে ম্যাচের আগের দিন তাঁর কথাবার্তায়। কোহলি দাবি তুলেছেন, আইসিসি’র নিয়ম স্বচ্ছ করা হোক। যাতে ক্রিকেটারেরাও গোটা পদ্ধতিটা সহজে বুঝতে পারেন।

তৃতীয় টেস্টের আগের দিন সাংবাদিক সম্মেলনে কোহলি বলেছেন, ‘‘আমার মনে হয় ক্রিকেটারদের আরও সচেতন করা উচিত। আশা করছি এখন থেকে একটা মৌলিক নিয়ম থাকবে। কারণ, পরিস্থিতি অনুযায়ী নিয়ম বদলে যাওয়াটা একেবারেই কাম্য নয়।’’

ছয় ডিমেরিট পয়েন্টের জন্য টেস্টে বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বর বোলার জাডেজাকে এক ম্যাচ নির্বাসিত করেছে আইসিসি। দ্বিতীয় টেস্টে ম্যাচের সেরা ক্রিকেটারকে তাই সিরিজের শেষ টেস্টে পাচ্ছেন না কোহলি। সেটা যে ভারতীয় শিবিরের কাছে


বড় ধাক্কা, কোহলির কথাবার্তাতেই তার স্পষ্ট ইঙ্গিত। ‘‘নিয়মে একটা সামঞ্জস্য থাকলে সকলেরই সুবিধা হয়। তাতে ক্রিকেটারেরা মাঠে কীরকম আচরণ করা উচিত, সে ব্যাপারে আরও সতর্ক হয়ে যেতে পারে। এতে ক্রিকেট খেলাটারই ভাল হবে,’’ বলেছেন কোহলি।

ক্রিকেটারদের নিয়ম জানা উচিত, এরকম মন্তব্য করার পাশাপাশি কোহলি জানিয়েছেন, শাস্তি দেওয়ার সময় আইসিসি’রও ধারাবাহিক হওয়া উচিত। অতীতে দেখা গিয়েছে, ভারতীয় ক্রিকেটারদের ওপর ছোটখাট অপরাধের জন্য বারবার নেমে এসেছে আইসিসি’র নির্বাসনের খাঁড়া। অথচ দোষ করেও পার পেয়ে গিয়েছেন উপমহাদেশের বাইরের অনেক ক্রিকেটার। কিছুদিন আগে ভারত-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট সিরিজে যেমন ডিআরএস নিয়ে ড্রেসিংরুমের সাহায্য চেয়ে ইঙ্গিত করার পরও কোনও শাস্তি হয়নি স্টিভ স্মিথের। যা নিয়ে ঝড় উঠেছিল।

কোহলি শুক্রবার বলেছেন, ‘‘প্রথমত আমাদের জানতে হবে নিয়মটা কোন কোন ক্ষেত্রে প্রযোজ্য এবং মাঠে থাকার সময় কোন ব্যাপারগুলো খেলোয়াড়দের মাথার রাখা উচিত। মাঠে অনেক কিছু ঘটে। যার মধ্যে অনেক কিছুই পরিস্থিতির চাপে বা উত্তেজনাবশত ঘটে যায়।’’ তিনি যোগ করেছেন, ‘‘কিন্তু কেউই জানে না কখন এক, দুই বা তিন পয়েন্ট কাটা যাবে। আমার মনে হয় ক্রিকেটারদের মনোভাব বিবেচনা করে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত। কোনও ছোট অপরাধও যদি উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ঘটানো হয়, তাহলে সেটা ক্রিকেটারদের বিরুদ্ধে যাবেই।’’

দলের পারফরম্যান্সে ধারাবাহিকতা বজায় রাখার ওপর জোর দিচ্ছেন কোহলি। ‘‘ধারাবাহিক খেলতে গেলে আগে নিশ্চিত করতে হবে যে, ক্রিকেটারেরা যাতে নিয়মিতভাবে খেলার সুযোগ পায়,’’ বলেছেন কোহলি। ইঙ্গিত দিয়েছেন, জাডেজার জায়গায় প্রথম একাদশে ঢোকার দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন চায়নাম্যান স্পিনার কুলদীপই।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন