বুধবার, ২২ নভেম্বর ২০১৭ ০৪:৪৮:৪৪ এএম

দাঁড়িয়ে পানি পান করে শরীরের যে মারাত্মক ক্ষতি করছেন আপনি !

স্বাস্থ্য | সোমবার, ৩০ অক্টোবর ২০১৭ | ১১:৫২:৪৫ এএম

পানি ছাড়া জীবন অচল। পানিশূণ্যতার কারণে দেহে নানা রোগ হতে পারে। তাই প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান করা প্রয়োজন। মানবদেহের প্রায় তিন ভাগের দুই ভাগই পানি। তাই পানি ছাড়া মানুষের পক্ষে বেঁচে থাকাটা অসম্ভব। আর সুস্থভাবে বেঁচে থাকতে পানি পানের বিকল্প নেই। অনেকে হয়তো জানেন দৈনিক পানি পানের পরিমান।পানি অবশ্যই খেতে হবে। পানি যদি কম খাওয়া হয়, তাহলে কিডনি শরীরের আবর্জনাগুলো পরিষ্কার করতে পারবে না। প্রাপ্তবয়স্কদের দুই থেকে তিন লিটার পানি পান করতে হবে। পানির পিপাসা লাগলেও তাকে আবার খেতে হবে। কিন্ত অনেকেই হয়তো জানি না পানি পানের সঠিক পদ্ধতি সম্পর্কে।

পরিসংখ্যান বলছে, বিশ্বের প্রায় ৪৫-৫০ শতাংশ মানুষেরই এই বিষয়ে কোনও জ্ঞান নেই। ফলে পানি পান করে সবাই তৃষ্ণা তো মেটাচ্ছে কিন্তু সেই সঙ্গে শরীরেরও মারাত্মক ক্ষতি করে ফেলছে। যেমন ধরুন, কখনই দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে পানি পান করা উচিত নয়।


ফাইল ছবি
দাঁড়িয়ে পানি পান করলে শরীরে ভিতরে থাকা ছাকনিগুলো সংকুচিত হয়ে যায়। ফলে ঠিক মতো কাজ করতে পারে না। ফলে পানিতে উপস্থিত অস্বাস্থ্যকর উপাদানগুলো রক্তে মিশতে শুরু করবে।

ফলে এক সময়ে গিয়ে শরীরে টক্সিনের মাত্রা এতটাই বেড়ে যাবে যে একাধিক অঙ্গের উপর তার খারাপ প্রভাব পড়তে শুরু করে।

দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে পানি পান করলে শরীরে আরও নানাভাবে ক্ষতি হয়। যেমন-

পাকস্থলীতে ক্ষত সৃষ্টি হয়

দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে পানি পান করলে তা সরাসরি পাকস্থলীতে গিয়ে আঘাত করে। সেই সঙ্গে স্টমাকে উপস্থিত অ্যাসিডের কর্মক্ষমতাও কমিয়ে দেয়। ফলে বদ হজমের আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। সেই সঙ্গে পাকস্থলির কর্মক্ষমতা কমে যাওয়ার কারণে তলপেটে যন্ত্রণাসহ আরও নানা সব শারীরিক অসুবিধা দেখা দেয়।

আর্থ্রাইটিসে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়

দাঁড়িয়ে পানি খাওয়ার সঙ্গে আর্থ্রাইটিসের সাথে সরাসরি যোগ রয়েছে। এক্ষেত্রে শরীরের ভিতর থাকা কিছু উপকারি রাসায়নিকের মাত্রা কমতে শুরু করে। ফলে জয়েন্টের কর্মক্ষমতা কমে যাওয়ার কারণে এই ধরনের রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়। যারা ইতিমধ্যেই এই রোগে আক্রান্ত হয়েছেন তারা ভুলেও দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে পানি পান করবেন না।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন