রবিবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৭ ০২:৫৩:৪৮ পিএম

ইট পোড়াতে অবৈধ্য ভাটা প্রস্তুত, ঝিনাইদহ জেলার অধিকাংশ ভাটাই পুড়বে হাজার হাজার মন কাঠ

আতিকুর রহমান | জেলার খবর | ঝিনাইদহ | শুক্রবার, ১০ নভেম্বর ২০১৭ | ১০:৩১:১৬ এএম

সরকারী আইন লঙ্ঘন করে অবৈধ্য ভাবে ঝিনাইদহ জেলার ৬টি উপজেলার অধিকাংশ ইটভাটার মালিকরা ইটপোড়ানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে। ইটভাটা গুলোতে ইট তৈরির কাজ চলছে আর সেই ইট পোড়ানোর প্রস্তুতি হিসেবে হাজার হাজার মন কাঠ এনে জড়ো করছেন ইট পোড়ানোর জন্য।

পরিবেশ অধিদপ্তরের ছাড়পত্র ছাড়াই জেলার অধিকাংশ উপজেলার ইটভাটার মালিকরা লোকালয়ে এমনকি ফসলি জমির উপর অবৈধ্য ভাবে ইটভাটা নির্মান করে হাজার হাজার মণ কাঠ দিয়ে দেদারছে ইট পোড়ানোর কাজ চালিয়ে যাচ্ছে । ইট তৈরি এবং পোড়ানোর আগেই কিছু কিছু ইটভাটায় স্তুপ করা হচ্ছে খড়ি আর ফসলি জমির উপরি ভাগের মাটি।

গাছ কেটে ফেলার কারনে একদিকে পরিবেশ যেমন পরছে হুমকির মুখে তেমনি আবাদযোগ্য জমির টপ সয়েল কেটে ফেলায় ফসলি জমি হারাচ্ছে তার উর্বরশক্তি। বিশেষঙ্ঘদের মতে ইট একটি প্রয়োজনীয় বস্তু হলেও নিয়ম না মেনে ইট তৈরির কারণে কৃর্ষি জমি যেমন হ্রাস পাচ্ছে ,তেমনি আবাদি জমি হারাচ্ছে তার উর্বরতা। অপর দিকে সবুজ বেস্টনি উজার করে গাছ কেটে ফেলার কারণে হুমকির মুখে পড়ছে সামাজিক পরিবেশ।জানা যায় চলতি বছর মহেশপুর উপজেলায় রয়েছে প্রায় ২০টি ইটভাটা ।

এর মধ্যে কয়েকটার লাইসেন্স থাকলেও বাকি ইটভাটা গুলো লাইসেন্স বিহীন। অধিকাংশ ইটভাটা গুলো গড়ে উঠছে আবাদি জমির উপর। সরকারী নীতিমালায় রয়েছে আধুনিক ইটভাটা স্থাপন করতে হবে এবং কাঠের পরিবর্তে কয়লা দিয়ে ইট পোড়াতে হবে। কিন্তু কয়েকটি ভাটা মালিক তা মানলেও বাকিরা সরকারি আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে পুরাতন ফিট চিমনি পদ্ধতি ব্যবহার করছে। ইট প্রস্তুত ও ভাটা স্থাপন সংক্রান্ত কর্মকান্ড আইন থাকলেও অধিকাংশ ভাটা মালিক তা মানছেন না।

স্কুল-কলেজ, হাসপাতাল এমনকি সড়কের ৩ কিলোমিটারের মধ্যে ভাটা স্থাপন সরকারী আইন লঙ্ঘন হলেও অধিকাংশ ভাটামালিক তা তোয়াক্কা করে না। ফলে ভাটার বিষাক্ত ধোঁয়া ,ভাটার কাজে চালিত ফিটনেছ বিহীন গাড়ির ধুলাবালিতে সৃস্টি হচ্ছে নানা রোগব্যাধি।সাধানর মানুষ অভিযোগ করে বলেন, ইটভাটা তৈরির কারণে যেমন আবাদি জমি নষ্ট হচ্ছে ,তেমনি ইট পোড়াতে ফলজ,বনজ,ওষদি গাছ সহ নানা প্রজাতির গাছ কেটে ফেলা হচ্ছে।মহেশপুর উপজেলা কৃর্ষি কর্মকর্তা কৃর্ষিবিদ আবু তালহা বলেন, ইটভাটা তৈরির কারণে দিন দিন কৃর্ষি জমি হ্রাস পাচ্ছে।

এছাড়াও ভাটা গুলো আবাদি জমির কাছে হওয়ার ভাটার ধুলাবালি ও ধোঁয়ার কারণে আবাদী জমির ফসল উৎপাদন কমে যাচ্ছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন