শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ ০৮:০৫:২৯ পিএম

কোটচাদপুরে কয়েক দিনের ব্যবধানে একই পরিবার থেকে ২ শিক্ষার্থী অপহরণ, জনমনে আতঙ্ক

আতিকুর রহমান | জেলার খবর | ঝিনাইদহ | শনিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৭ | ১১:০৬:৩১ এএম

কোটচাঁদপুর উপজেলার হরিন্দিয়া গ্রামে কয়েক দিনের ব্যবধানে একই পরিবার থেকে মাসুদ রানা ও মাসুম বিল্লাহ নামে কলেজ পড়–য়া ও মাদ্রাসার ছাত্র অপহরণ হয়েছে।

জানা যায়, গত বুধবার দিবাগত রাতে একটি সাদা মাইক্রোবাসে করে আনুমানিক রাত ১১ টার দিকে ৭-৮ জন সাদা পোশাকধারী লোক প্রশাসন হিসাবে পরিচয় দিয়ে মাসুম বিল্লাহ(১৭) ও কলেজ পড়ুয়া ছাত্র মাসুদুর রহমান নামে এক মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে অপহরণ করেছে।

মাসুম বিল্লাহর চাচা আবুল কালাম জানান, তারা বাড়ির সামনে এসে মাসুম বিল্লাহ বাড়ি খোঁজ করে। আমি তাদের জিঞ্জাসা করলে তারা বলে যে একটা কেসের জন্য তাকে জিঞ্জাসাবাদের জন্য দুই-এক দিনের জন্য নিয়ে যাব আর আমরা প্রশাসনের লোক।

তিনি জানান যে, হরিন্দিয়া গ্রামের আমিনুল ইসলামের পুত্র এবং একই গ্রামের হাজী আলতাফ হোসেন আলীম মাদ্রাসার আলেম প্রথম বর্ষের ছাত্র। সে বাড়ীতে এই সময় ঘুমিয়ে ছিল। মাসুম বিল্লাহ ঘর থেকে বেরিয়ে আসলে তাকে মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে যায় এবং বলে যে দুই-এক দিন জিঞ্জাসাবাদ শেষে তাকে ফিরিয়ে দিয়ে যাব।

বৃহস্পতিবার সকালে তার চাচা সহ বাড়ীর লোকজন তার খোঁজ করতে থানায় আসলে তার কোনো খোঁজ খবর পাই না এবং বিভিন্ন স্থানে খোঁজ খবর করে কিন্তু তার কোনো হাদিস পাই নাই। এতে তারা খুবই হতাশা গ্রস্থ হয় এবং তার খোঁজ করতে থাকে বিভিন্ন ভাবে।কোটচাঁদপুর থানার অফিসার ইনর্চাজ বিপ্লব কুমার সাহা বলেন এই ঘটনার আগে বা পরে এই ব্যাপারে কেউ পুলিশকে জানায়নি।

উল্লেখ্য গত ১২ই অক্টোবর মাসুম বিল্লাহ চাচাত ভাই মাকছুদুর রহমান ওরেফে মাসুদ রানা (২৪) কোটচাঁদপুর সরকারী কে,এম,এইচ কলেজের অর্নাস ৩য় বর্ষের ছাত্রকে গ্রামীণফোনের টাওয়ার বসানোর জায়গা দেখার জন্য একটি গ্রামীনফোনের স্ট্রিকার লাগানো মাইক্রোবসে করে বিকালবেলায় আপহরণ করে নিয়ে যায়। সে মোমিনুল ইসলামের মেজ ছেলে। তার এখনও কোনো খোঁজ পায়নি তার পরিবার। এই ব্যাপারে দুই দিন পরে একটি অপহরণ মামলা হয় কোটচাঁদপুর থানায়।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন