শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ ০৮:০৩:২২ পিএম

ট্রাম্পের পরমাণু হামলার ‘অবৈধ’ হুকুম প্রতিহতের ঘোষণা

আন্তর্জাতিক | রবিবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৭ | ০২:৩৮:১৫ পিএম

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পরমাণু হামলার কোনো অবৈধ হুকুম দিলে তা প্রতিহত করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন দেশটির পরমাণু অস্ত্রবাহিনীর (স্ট্র্যাটেজিক ফোর্স) শীর্ষ কমান্ডার জেনারেল জন হিটেন।

জেনারেল হিটেন জানিয়েছেন, স্ট্র্যাটেজিক কমান্ডের প্রধান হিসেবে তিনি প্রেসিডেন্টকে এ বিষয়ে উপদেশ দিয়েছেন এবং আশা করছেন, পরমাণু হামলার বৈধ বিকল্প খুঁজে পাওয়া যাবে।

পরমাণু হামলার হুমুক দেওয়ার ক্ষেত্রে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের কর্তৃত্ব কতটা- এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটে শুনানি হওয়ার কয়েক দিন পর জেনারেল হিটেন তার অবস্থান তুলে ধরলেন।

শুনানিতে সিনেটরদের মধ্যে কেউ কেউ আশঙ্কা প্রকাশ করেন, দায়িত্বজ্ঞানহীনভাবে পরমাণু হামলার নির্দেশ দিয়ে ফেলতে পারেন ট্রাম্প। আবার কেউ কেউ মনে করেন, আইনপ্রণেতাদের হস্তক্ষেপ ছাড়া-ই এ ধরনের হুকুম দেওয়ার অধিকার আছে প্রেসিডেন্টের। গত ৪০ বছরেরও বেশি সময়ের মধ্যে সিনেটে এ ধরনের প্রথম শুনানি ছিল এটি।

আগস্ট মাসে ট্রাম্প বলেন, যুক্তরাষ্ট্রকে হুমকিতে রাখলে উত্তর কোরিয়াকে ‘এমনভাবে ধ্বংস করা হবে, যা বিশ্ব আগে কখনো দেখেনি’। পরে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ভাষণে উত্তর কোরিয়াকে ‘সম্পূর্ণ ধ্বংস’ করে দেওয়ার হুমকি দেন তিনি।

গত মাসে সিনেটের বৈদেশিক সম্পর্কবিষয়ক কমিটির রিপাবলিকান চেয়ারম্যান বব করকার প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ‘যুক্তরাষ্ট্রকে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের পথে ঠেলে দেওয়ার’ অভিযোগ তোলেন।

শনিবার কানাডায় হালিফ্যাক্স ইন্টারন্যাশনাল সিকিউরিটি ফোরামে এক বক্তব্যে জেনারেল হিটেন বলেন, ‘এসব বিষয়ে আমরা অনেক ভাবছি। যখন আপনার ঘাড়ে এই দায়িত্ব, তখন এ নিয়ে না ভেবে কীভাবে পারবেন?’ তিনি বলেন, ‘আমি প্রেসিডেন্টকে উপদেশ দিয়েছে, এখন তিনি বলবেন কী করতে হবে।’

ট্রাম্পের হুকুম সম্পর্কে জেনারেল হিটেন বলেন, ‘‘যদি তার নির্দেশ অবৈধ হয়, তাহলে ভাবুন কী হতে যাচ্ছে? আমি বলব, ‘মি. প্রেসিডেন্ট, এটি অবৈধ।’ ভাবুন, এরপর তিনি কী বলতে পারেন? তিনি বলবেন, ‘তাহলে কী বৈধ?’ পরিস্থিতি যাই হোক তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে মিশ্র সক্ষমতার কিছু বিকল্প উপায় নিয়ে আমরা তখন ভাবব এবং এভাবেই কাজ চলবে।’’ তিনি আরো বলেন, ‘এটি জটিল কিছু নয়।’

জেনারেল হিটেন এ বিষয়ে আরো বলেন, ‘যদি অবৈধ হুকুম জারি করেন, তাহলে আপনি জেলে যাবেন। জীবনের বাকি সময় আপনাকে জেলে কাটাতে হবে।’

জেনারেল হিটেনের মন্তব্য নিয়ে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া দেখাননি প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প।

তথ্যসূত্র : বিবিসি অনলাইন

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন