বুধবার, ১৭ জানুয়ারী ২০১৮ ০৭:০৭:১১ এএম

আমতলীতে প্রতারনা মামলায় কাজীর ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

জেলার খবর | বরগুনা | রবিবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৭ | ০৬:৩১:২৫ পিএম

আমতলীতে নিকাহ রেজিস্ট্রার কাজী মোঃ অলি উল্লাহ প্রতারনা করে নিকাহ রেজিস্ট্রার খাতায় ২লক্ষ টাকা দেনমোহরের পরিমান বাড়িয়ে ১২ লক্ষ টাকা করার মামলায় আদালত আজ ২ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চাওড়া ইউনিয়নের আউয়াল নগর গ্রামের হানিফ ফকিরের পুত্র জহিরুল এর সাথে গত ০৬ সেপ্টেম্বর দক্ষিন আমতলী গ্রামের আলম বিশ্বাসের নাবালিকা কন্যা শারমিনের রেজিষ্ট্রি বিবাহ সম্পন্ন করেন কাজী ওলি উল্লাহ। বিয়েতে ২লাখ টাকা দেন মোহরের ১লক্ষ টাকা উসুল ধার্য করা থাকলেও কাবিননামার কপি সংগ্রহ করে তাতে ১২লাখ টাকা দেনমোহরের ২লক্ষ টাকা উসুল ধার্য করা দেখতে পেয়ে জহিরুলের ভাই মোঃ সাইফুল ইসলাম আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট এক লিখিত অভিযোগ দাখিল করলে বিষয়টি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারকে তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। পাশাপাশি বিষয়টি একাধিক পত্রিকায় প্রকাশিত হলে এলাকায় ব্যপক ঝড় উঠে এবং কাজী অলি উল্লাহ সাথে সাথে আত্মগোপন করে।

অবশেষে জহিরুল ইসলামের ভাই মোঃ সাইফুল ইসলাম ১১ নভেম্বর কাজী অলি উল্লাহর বিরুদ্ধে বাল্য বিয়ের কাবিন নামায় ২লক্ষ টাকার পরিবর্তে ১২লক্ষ টাকা লিখে কাবিননামা সরবরাহ করার বিরুদ্ধে আমতলী থানায় মামলা দায়ের করে। যার আমতলী থানার মামলা নং০৯, তারিখ-১১/১১/২০১৭ ইং, ধারাঃ ৪২০/৪০৬৬/৪৬৮/৪৭১দন্ডবিধি ও রেজিস্ট্রেশন আইনের ৮১ধারা।

অতঃপর ১২ নভেম্বর দুপুরে আমতলী থানার এসআই মোঃ মনিরুল ইসলাম কাজী উল্লাহকে তারিকাটা বাজার থেকে গ্রেফতার করে ৩ দিনের রিমান্ড আবেদন করলে আদালত আজ রবিবার উক্ত আবেদন শুনানীর জন্য দিন ধার্য রাখেন। শুনানী শেষে বিজ্ঞ বিচারক ২দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, গত বছর তালতলী উপজেলার শিকারী পাড়া এলাকায় ৮ম শ্রেণীর একটি মেয়ের বিবাহ পড়ানোর সময় মোবাইল কোর্ট কাজী অলি উল্লাহকে এক মাসের সাজা প্রদান করেন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন