মঙ্গলবার, ২৩ জানুয়ারী ২০১৮ ০১:৫২:২৭ এএম

শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের হাল ধরছেন হাতুরুসিংহে?

খেলাধুলা | সোমবার, ২০ নভেম্বর ২০১৭ | ০১:৫৪:৫০ এএম

দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে অপদস্থ হওয়ার পর ঢাকায় না ফিরে কেন কোচ চন্দিকা হাতুরুসিংহা অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে ইমেলে পদত্যাগের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড বিসিবিকে।

কেন এই সিদ্ধান্ত এখনো তা অন্তত সংবাদমাধ্যমের কাছে খোলাসা করেননি তিনি। বিসিবি জানলেও মুখ খুলছে না। বোর্ড এমনকী এখনো আনুষ্ঠানিকভাবে তার পদত্যাগ পত্র গ্রহণ করেননি।

তবে কলম্বোতে স্থানীয় সাপ্তাহিক সানডে টাইমসের ক্রীড়া সম্পাদক চাম্পিকা ফার্নান্দো বিবিসি বাংলাকে জানিয়েছেন, তিনি মোটামুটি নিশ্চিত যে হাতুরুসিংহা শ্রীলঙ্কার জাতীয় দলের কোচের দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। ডিসেম্বরের মাঝামাঝি তিনি এই দায়িত্ব নিতে পারেন।

"বিভিন্ন সূত্রে যে সব ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে তাতে ডিসেম্বর মাসের কোনো একটি সময়ে হাতুরুসিংহা শ্রীলঙ্কা জাতীয় ক্রিকেট দলের হেড কোচের দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন। জুন মাসে গ্রাহাম ফোর্ড চলে যাওয়ার পর থেকে শ্রীলঙ্কা উদগ্রীব হয়ে একজন কোচ খুঁজছে। এবার বোর্ডের প্রথম সারির পছন্দের তালিকায় ছিলেন হাতুরুসিংহা।"

মি ফার্নান্দো বলেন, শ্রীলঙ্কার ক্রীড়ামন্ত্রী বুধবার মন্ত্রীসভার বৈঠকের পর বলেছেন তারা হাতুরুসিংহাকে রাজী করাতে সমর্থ হয়েছেন। "মন্ত্রী ভেঙ্গে বলতে চাননি, কিন্তু তিনি একরকম নিশ্চিত যে হাতুরুসিংহা খুব শীঘ্রি দলের হাল ধরছেন।"

শ্রীলঙ্কা বোর্ড এখন অপেক্ষা করছে বাংলাদেশ বোর্ড কাগজ-পত্রে তাকে কখন ছেড়ে দেবে, সেটার জন্য। তা পেলেই, আগামী মাসের মাঝামাঝি তার সাথে চুক্তি সই হবে বলে জোর ধারণা। "আমাদের কাছে যে খবর, হাতুরুসিংহা তার পদত্যাগ চূড়ান্ত করতে অস্ট্রেলিয়া থেকে এ মাসেই বাংলাদেশ যাচ্ছেন। পরপরই তিনি কলম্বো আসবেন।"

বাংলাদেশ বোর্ডের কর্মকর্তারা অন্তত প্রকাশ্যে বলছেন, হঠাৎ কেন হাতুরুসিংহা পদত্যাগের সিদ্ধান্ত তারা বুঝতে পারছেন না। শ্রীলঙ্কা দলের চাকরির জন্যই কি বাংলাদেশ ক্রিকেট ছাড়ছেন হাতুরুসিংহা ? সেটাই কি একমাত্র কারণ? তিনি কতটুকু জানেন ?

চাম্পিকা ফার্নান্দো বলেন, বাংলাদেশ ক্রিকেটে বোর্ডের সাথে তার কিছু সমস্যা নিয়ে কানাঘুষো শুনেছেন তিনি। "সেটাও হয়তো তার সিদ্ধান্তকে কিছুটা হলেও প্রভাবিত করেছে। কিন্তু এটা সত্যি যে, শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড হাতুরুসিংহাকে ফিরিয়ে আনতে খুবই আগ্রহী ছিল। ২০১০ সালে দেশ ছেড়ে অস্ট্রেলিয়ায় পাড়ি জমানোর আগে তিনি দলের শ্যাডো কোচ ছিলেন। সুতরাং শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট বোর্ড ভবিষ্যতে কোনো এক সময় দলের দায়িত্ব নেওয়ার জন্য তাকে তৈরি করছিলো।"

কিন্তু সেসময় বোর্ডের কিছু কর্মকর্তার সাথে সম্পর্কের অবনতি হলে, হাতুরুসিংহা দেশ ছাড়েন। এমনকী ২০১৬ সালে গ্রাহাম ফোর্ডকে নেওয়ার আগেও শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড তার কাছে প্রস্তাব পাঠিয়েছিল। কিন্তু অন্যান্য কিছু কারণে শেষ পর্যন্ত সেটি তখন আর এগোয়নি। "কিন্তু এবার শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড তাকে আনতে সমর্থ হয়েছে।"

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের শীর্ষ কর্তাদের উদ্ধৃত করে কয়েকটি মিডিয়ায় খবর বেরিয়েছে তারা এখনও পুরোপুরি হাল ছাড়েননি। হাতুরুসিংহা ঢাকায় আসলে শেষবারের মত তারা চেষ্টা করবেন তিনি যেন ২০১৯ বিশ্বকাপ পর্যন্ত থাকেন। নিদেনপক্ষে জানুয়ারিতে শ্রীলঙ্কার সাথে হোম সিরিজ পর্যন্ত যেন থাকেন।

হাতুরুসিংহা বা শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড কি তাতে রাজী হতে পারে?

চাম্পিকা ফার্নান্দো বলেন, শ্রীলঙ্কা বোর্ড চাইছে যত দ্রুত সম্ভব হাতুরুসিংহা যেন যোগ দেন। "জানুয়ারিতে বাংলাদেশের সাথে সিরিজ জেতার জন্য বোর্ড উন্মুখ। সুতরাং বাংলাদেশে ঐ অ্যাওয়ে সিরিজে হাতুরুসিংহে বাংলাদেশ দলের দায়িত্বে থাকবেন - এমন সম্ভাবনায় বোর্ড মোটেও খুশি হবেনা। বাংলাদেশ সিরিজের আগেই বোর্ড তাকে চাইবে, সন্দেহ নেই।-বিবিসি

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন