রবিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ১২:৪৯:৩৫ পিএম

‘মহাসড়কে দুর্ভোগ থেকে রেহাই পেতে ধৈর্য ধরতে হবে’

জাতীয় | মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭ | ০৯:০৭:১৪ পিএম

মহাসড়কে দুর্ভোগ থেকে রেহাই পেতে ধৈর্য ধরতে হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তরে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম ওমরের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী এ কথা জানান। মঙ্গলবার সংসদ অধিবেশনের শুরুতে প্রশ্নোত্তর পর্ব অনুষ্ঠিত হয়।

সড়ক পরিবহন মন্ত্রী বলেন, ‘এ বছর ৯ মাস টানা বৃষ্টি হয়েছে। জন্মযন্ত্রণা মেনে নিতে হবে। আমাদের বাস্তবতা বুঝতে হবে। রাস্তা করতে একটু সময় লাগে। ধৈর্য ধরুন, অপেক্ষা করুন। সময় মতো শেষ হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘মাননীয় সংসদ সদস্য দুর্ভোগের কবলে আছেন। জন্মকালের যন্ত্রণাটা কেউ কি অস্বীকার করতে পারবেন? মেয়র হানিফ ফ্লাইওভার নিয়ে মানুষের কত দুর্ভোগ, কত কষ্ট! আড়াইঘণ্টার জায়গায় এখন আড়াই মিনিট লাগছে। ধৈর্য ধরতে হবে। একটি বড় রাস্তা করা হচ্ছে। আপনারাও ক্ষমতায় ছিলেন, করেননি। প্রশস্ত রাস্তা করা হচ্ছে। চার লেন করার একটা যন্ত্রণা আছে। আমাদের এটা মেনে নেওয়া উচিত। চিন্তা করতে হবে এবার একবছরের মধ্যে ৯ মাস বৃষ্টি হয়েছে। টানা ভারী বর্ষণ। তিন দফায় বন্যা, এই দুর্যোগের মোকাবিলা কীভাবে আমরা করবো। বৃষ্টির মধ্যে কি কাজ করা যাবে?’

নুরুল ইসলাম ওমর তার প্রশ্নে যানজট হলে বগুড়া থেকে ঢাকায় আসতে ১৬ ঘণ্টা, আর অন্যসময়ে অন্তত ৮ ঘণ্টা লাগে উল্লেখ করে বলেন, ‘এলেঙ্গায় চার লেনের কাজ স্লো এগুচ্ছে।’ কাজ কতদিনে শেষ হবে আর দুর্ভোগ কতদিনে দূর হবে- একথা তিনি জানতে চান।

তৃতীয় স্প্যানের পর সাত থেকে ১০ দিনের ব্যাবধানে স্প্যান বসতে থাকবে, বেগম উম্মে রাজিয়া কাজলের প্রশ্নের জবাবে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘গত ৩০ সেপ্টেম্বর প্রথম স্প্যান স্থাপনের মাধ্যমে পদ্মা সেতু দৃশ্যমান হয়েছে। এর মাধ্যমে প্রকল্পের ৪৮ শতাংশ ভৌত কাজ সম্পন্ন হয়েছে। অক্টোবর পর্যন্ত এ সেতুর উল্লেখযোগ্য প্যাকেজগুলোর ভৌত অগ্রগতির মধ্যে মূল সেতু নির্মাণ ৫১ শতাংশ, নদী শাসন ৩৪ দশমিক ২০ শতাংশ, জাজিরা সংযোগ সড়ক ৯৯ দশমিক ৬০ শতাংশ এবং মাওয়া সংযোগ সড়ক ও সার্ভিস এরিয়া-২ পুরোপুরি সম্পন্ন হয়েছে।

অ্যাডভোকেট নাভানা আক্তারের সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাযর্ক্রম প্রসঙ্গে মন্ত্রী জানান, খুবই শিগগিরই আরও দুটি স্প্যান বসবে। তৃতীয় স্প্যানটি বসানোর পর ৭/১০ দিনের ব্যবধানে একটি করে স্প্যান বসতে থাকবে। এভাবে ৪১টি স্প্যান বসানো হবে।

প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে স্প্যান বসানোর কাজ উদ্বোধন করতে সরকারের পরিকল্পনা ছিল উল্লেখ করে সেতুমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা ঐতিহাসিক ওই মুহূর্তে প্রধানমন্ত্রীকে চেয়েছিলাম। ওই সময় শারীরিক অসুস্থতার কারণে প্রধানমন্ত্রী দেশে থাকতে পারেননি। প্রধানমন্ত্রীর জন্য আমরা অপেক্ষা করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তিনি জবাবে বলেছিলেন, এক মিনিটও পদ্মা সেতুর কাজ বিলম্বিত হবে না। আমি পরে গিয়ে কাজ দেখে আসবো।’

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন