বুধবার, ২০ জুন ২০১৮ ১১:২৫:৩৬ পিএম

ঢাকায় হামলার পরিকল্পনা ছিল কলকাতায় আটক জঙ্গিদের

জাতীয় | বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ | ১১:২৪:৫১ এএম

নাশকতামূলক কর্মকাণ্ডে যুক্ত থাকার অভিযোগে কলকাতার পুলিশ সামশাদ মিয়া ওরফে তনবির এবং রিয়াজুল ইসলাম ওরফে সুমন নামে দুই বাংলাদেশিকে আটক করেছে। মঙ্গলবার তাদের আটক করা হয়। কলকাতা পুলিশের দাবি, এই দু্ই বাংলাদেশি আনসারুল্লাহ বাংলা টিম (এবিটি)-এর সদস্য এবং তারা কলকাতায় আশপাশে আস্তানা গেড়ে বাংলাদেশে হামলার পরিকল্পনা করছিল।

সামশাদ ও রিয়াজুলের সঙ্গে মনোতোষ নামে স্থানীয় এক অস্ত্র ব্যবসায়ীকেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের আরও কয়েকজন সদস্য কলকাতায় অবস্থান করছে বলে ধারণা পুলিশের এবং তাদের খোঁজে অভিযান চলছে।

শুধু ঢাকা নয় কলকাতাতেও হামলার পরিকল্পনা ছিল আটক জঙ্গিদের। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হওয়া ডায়েরিতে তাদের পরিকল্পনার যে ছক কষা রয়েছে, তা চমকে ওঠার মতো। তারা কলকাতার বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান, এমনকী বহু বাস স্টপ, রেল স্টেশন পায়ে হেঁটে ঘুরেছে। যা ভবিষ্যতে নাশকতা চালানোর প্রাথমিক ধাপ বলেই গোয়েন্দাদের দাবি। তারা কথা বলতো প্রোটেক্টেড টেক্সট বা পিটি অ্যাপ ব্যবহার করে। হুন্ডির মাধ্যমে নিয়মিত টাকাও পেয়েছে তারা। সেই সঙ্গে বেশ কয়েকজন স্থানীয় বাসিন্দাকেও তারা নিজেদের দলে নিয়েছিল।

কলকাতা পুলিশের মতে, ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ছাত্র সামশাদ মিয়াঁ ওরফে তনবির ধনী ঘরের ছেলে। তার এক ভাই ইতালিতে থাকেন। ২০১৪ সালে সিলেটে পড়ার সময় মামুন নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে তার পরিচয় হয়। এই মামুনের হাতেই সামশাদের জিহাদের দীক্ষা। মামুনকে বাংলাদেশ পুলিশ আগেই গ্রেফতার করেছে। সামশাদের মগজধোলাই করেছিল এবিটি-র বাংলা টিমের প্রধান মেজর জিয়া। সামশাদ ও রিয়াজুল দেড় বছর আগে হায়দরাবাদের মান্নেগুড়ার এক কারখানায় কাজ করত। মাস তিনেক পরে ওই কারখানা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তারা কর্নাটকের বেলগাঁওতে নির্মাণকর্মী হিসেবে কাজ শুরু করেন। সেখানেই ভুয়া আইডিকার্ড ও প্যান কার্ড তৈরি করে সামশাদ। বেলগাঁওতে দু-তিন মাস কাজ করার পরে সামশাদ ও রিয়াজুল পুণেতে যায়। সেখানে কয়েক মাস থাকার পর হায়দরাবাদে ফিরে এসে একটি কম্পিউটার কোর্স করে তারা। এর পরে কয়েক মাস রাঁচী ও পটনায় কাটিয়ে এ বছর দুর্গাপূজার সময় কলকাতায় আসে তারা।

সামশাদদের সঙ্গে আটক মনোতোষের কাছ থেকে ভারত বা বাংলাদেশের কোনও পরিচয়পত্র পাওয়া যায়নি। তবে তিনি একাধিকবার অস্ত্র আইনে গ্রেফতার হয়েছেন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন