বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০৭:৩৮:০৭ এএম

আর্জেন্টিনার নিখোঁজ সাবমেরিনের ‘ব্যাটারিতে পানি ঢুকেছিল’

আন্তর্জাতিক | মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০১৭ | ১২:৪১:১৫ পিএম

আর্জেন্টিনার নিখোঁজ সাবমেরিনের বায়ু চলাচলের নলের মধ্য দিয়ে পানি ঢুকে তা একটি ব্যাটারিতে গিয়ে পড়ে এবং এ কারণে সেটিতে শর্টসার্কিট হয়েছিল বলে জানিয়েছেন এক নৌকর্মকর্তা।

১২ দিন আগে নিখোঁজ হওয়া সাবমেরিন সম্পর্কে সোমবার এ কথা বলেন আর্জেন্টিনার নৌবাহিনীর মুখপাত্র এনরিক বালবি। তিনি সাংবাদিকদের বলেন, নিখোঁজ হওয়ার আগে ক্যাপ্টেন জানিয়েছিলেন, বায়ু চলাচলের নলের মধ্যে পানি ঢুকেছে। ওই নলের মধ্যে দিয়ে পানি ঢুকে ব্যাটারির সংযোগকারী ট্রেতে চলে আসে। এতে করে বৈদ্যুতিক শটসার্কিট হয় এবং শিখা ছাড়াই আগুন লাগে বা ধোঁয়া ছড়াতে শুরু করে। পরে ক্যাপ্টেন সাটেলাইট কলের মাধ্যমে গোযোযোগ করেছিলেন। যেটা ছিল ত্রুটিপূর্ণ স্যাটেলাইট কল।

তিনি বলেন, ব্যাটারির সঙ্গে বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার পরও তারা নতুন কোনো ব্যাটারি সার্কিট না লাগিয়ে মার দেল প্লাটার উদ্দেশে যাত্রা অব্যাহত রাখে।

সাবমেরিনটি বিস্ফোরণের সময় ও স্থান শনাক্ত করার পর পাওয়া খবর অনুযায়ী, সাবমেরিনে থাকা যাত্রীদের বেঁচে থাকার আশা নেই বললেই চলে।

যদিও বিভিন্নভাবে অত্যন্ত জোর দিয়ে অনুসন্ধান চালানো হচ্ছে, তবু গত ১৫ নভেম্বরের পর থেকে সাবমেরিনের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি। এমন কি কোনো ধ্বংসাবশেষও পাওয়া যায়নি।

এদিকে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সাবমেরিনটিতে মাত্র সাত দিনের জন্য অক্সিজেন ছিল। এর আগে গত সপ্তাহে নৌবাহিনী থেকে বলা হয়েছিল, সাবমেরিনটি নিখোঁজ হওয়ার আগে ক্যাপ্টেন ব্যাটারিতে সমস্যার কথা জানিয়েছিলেন।

গত ১৫ নভেম্বর সকালে সবশেষ ওই সাবমেরিনটির সঙ্গে যোগাযোগ করতে পেরেছিলেন নৌবাহিনীর কর্মকর্তারা। উপকূল থেকে ৪৩০ কিলোমিটার দূরে ভালদেজ উপদ্বীপে যাওয়ার পর আর সেটার সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি। নিয়মিত শিডিউল অনুযায়ী ৪৪ জন ক্রু নিয়ে এআরএ স্যান হুয়ান সাবমেরিনটি দক্ষিণ আমেরকিার সবচেয়ে কাছের উসুয়ায়া থেকে বুয়েনস আয়ার্সের মার দেল প্লাটায় ফিরছিল।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন