সোমবার, ২২ জানুয়ারী ২০১৮ ১০:০৩:০৭ পিএম

পরিকল্পনা করেই কি মাঠে নেমেছেন সাকিব-তামিম?

খেলাধুলা | রবিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০১৭ | ১২:৫০:২৬ পিএম

বাংলাদেশ ক্রিকেটের ভরসা বা নির্ভরতার নাম সাকিব-তামিম। খেলার মাঠে যারা কিনা নিজেরাই একে অন্যের প্রতিদ্বন্দ্বী। টি ২০, ওয়ানডে কিংবা টেস্টে। সব ক্ষেত্রে একে অন্যকে ছাড়িয়ে যাচ্ছেন বার বার। তামিম ব্যাটিংয়ে বরাবরাই টিম বাংলাদেশের ১ নম্বর এবং ক্রিকেট বিশ্বে সেরাদের মধ্যে অন্যতম। অন্যদিকে সাকিব বিশ্বের নাম্বার ওয়ান অলরাউন্ডার।

ব্যাটিংয়ে সাকিবেকে ছাড়িয়ে গেলেও বোলিংয়ে পিছিয়ে তামিম। কেননা তামিম বোলিংয়ে তেমন আন্তরিক না হওয়ায় একাই রাজত্ব করছেন সাকিব।

যে ম্যাচে সাকিব-তামিমের বল-ব্যাট হাসবে, সেই ম্যাচে যে কোন শক্তিশালী দল পরাজিত হতে বাধ্য।

বিদেশীদের বিরুদ্ধে একসাথে খেললেও বিপিএলে একে অন্যের মহা প্রতিপক্ষ। দুজন নেতৃত্ব দিচ্ছেন দুই দলের হয়ে।

চলমান বিপিএল (২০১৭) আসরে ব্যক্তিগত অর্জনে তেমন সফল না হলেও অধিনায়ক হিসেবে সফল দুজনেই। বিশেষ করে তামিমের নেতৃত্বে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স সেমিফাইনাল নিশ্চিত করে, রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের সবার শীর্ষে।

অন্যদিকে সাকিবের দল ঢাকা ডায়নামাইটস গতকাল শনিবার গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে রংপুর রাইডার্সকে বিশাল রানে হারিয়ে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছে।

আর গতকাল শনিবার নিজ নিজ ম্যাচে নামার আগে যেন এক রকম পরিকল্পনা করেই মাঠে নেমেছেন সাকিব-তামিম। এতে তামিমের কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের প্রতিপক্ষ রংপুর রাইডার্স, সাকিবের দল ঢাকা ডায়নামাইটসের ছিল রাজশাহী কিংস। কুমিল্লার ভিক্টোরিয়ান্স অধিনায়ক টসে জিতে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে মাত্র ৯৭ রানে গুটিয়ে দেয় মাশরাফির রংপুরকে।

অন্যদিকে ঢাকা ডায়নামাইটসের অধিনায়ক টসে জিতে ২০৫ রানের পাহাড় গড়ে ৯৯ রানে হারিয়েছে রাজশাহী কিংসকে। সাকিব-তামিমে পরিকল্পনাটা এখানেই যে ব্যাটিং করলে ১০০ রানের বেশি রানে হারাতে প্রতিপক্ষকে অথরা বোলিং করলে ১০০ রানের মধ্যে আটকে দিতে হবে। শুধু তাই নয় প্রথম দু ওভারেই প্রতিপক্ষের ব্যাটিং লাইনআপও ধ্বংস করেছেন একিভাবে।

ঢাকা ডায়নামাইটসের অধিনায়ক সাকিব নিজেই নিয়েছেন মাত্র ৮ রান দিয়ে ৪ উইকেট, এতে প্রতিপক্ষের ব্যাটিং লাইনআপ ধ্বংস হয় যায়, জয় পায় ৯৯ রানের বিশাল ব্যবধানের।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন