বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮ ০৪:৪১:০৮ পিএম

বাংলাবান্ধায় শ্রমিকদের ৭ ঘন্টা সড়ক অবরোধ

জেলার খবর | পঞ্চগড় | রবিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০১৭ | ০৪:০১:৪৭ পিএম

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে পণ্য খালাস কাজের সুযোগের দাবিতে কুলি শ্রমিকদের একটি সংগঠন বাংলাবান্ধা-ঢাকা মহাসড়ক ৭ ঘন্টা অবরোধ করে রাখে।

রোববার সকাল ছয়টা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত বাংলাবান্ধা-ঢাকা মহাসড়কের সিপাইপাড়া বাজার এলাকায় এ অবরোধ চলে। এসময় উভয়পাশে শতাধিক যানবাহন আটকা পড়ে। দুভোর্গে পড়ে বন্দর দিয়ে ভারত-বাংলাদেশে যাতায়াতাকারী যাত্রী ও পর্যটকরা।

এ সময় অবরোধকারীরা মহাসড়কে শুয়ে, বসে যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। জানা যায়, তেঁতুলিয়া উপজেলা লোড আনলোড কুলি শ্রমিক ইউনিয়নের (২৬৩৪) সংগঠনের ১৫৪ জন সদস্যের সবাই কাজ করার সুযোগ পাচ্ছে। অথচ তেঁতুলিয়া উপজেলা লোড আনলোড কুলি শ্রমিক ইউনিয়নের (২৩০৫) মাত্র ৪০ জন সদস্য কাজ করার সুযোগ পেয়েছে। এ নিয়ে একাধিবার বৈঠক হলেও কোন কাজ না হওয়ায় বাধ্য হয়ে মহাসড়ক অবরোধ করেছে বলে জানান শ্রমিকরা।

ঘটনাস্থলে তেঁতুলিয়া থানার পরিদর্শক (ওসি তদন্ত) আব্দুস ছবুর ও ভজনপুর হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এনামুল হক ও বাংলাবান্ধা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কুদরত-ই-খুদা মিলনের হস্তক্ষেপে আগামী ৭ ডিসেম্বর আলোচনার আশ্বাসে দুপুর একটায় অবরোধ তুলে নেয় শ্রমিকরা।

তেঁতুলিয়া উপজেলা লোড আনলোড কুলি শ্রমিক ইউনিয়নের (২৩০৫) সভাপতি মো. গোলাম রসুল জানান, ‘বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরে দুটি কুলি শ্রমিক সংগঠনের মধ্যে সমহারে কাজ ভাগাভাগির দাবিতে এই অবরোধ করেছি। তেঁতুলিয়া উপজেলা লোড আনলোড কুলি শ্রমিক ইউনিয়নের (২৬৩৪ ) সংগঠনের ১৫৪ জন সদস্যের সবাই কাজ করার সুযোগ পাচ্ছে। আমাদের সংগঠনের মাত্র ৪০ জন সদস্য কাজ করার সুযোগ পেয়েছে। আমাদের সদস্য সংখ্যা ২৬০ জন। আমরা র্দীঘদিন ধরে আমাদের সংগঠনের সদস্যদের কাজ করার সুযোগ দাবি করে আসছি।

বাংলাবান্ধা ইউপি চেয়ারম্যান খুদরত- ই-খুদা মিলন জানান, ‘দুটি কুলি শ্রমিক ইউনিয়নের মধ্যে সমহারে কাজ বন্টনের দাবিতে কুলি শ্রমিকদের একটি সংগঠন অবরোধ করেছিল। পরে বিষয়টি নিয়ে আগামী ৭ ডিসেম্বর আলোচনার আশ্বাসে তারা অবরােধ তুলে নেয়।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন