বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০১:২২:১১ এএম

শিল্পী আনুশেহর ভাইয়ের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ

নগর জীবন | মঙ্গলবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭ | ১১:৪১:৫১ এএম

বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে বনানীর হোটেল সুইটড্রিমে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ওই ঘটনায় সঙ্গীতশিল্পী আনুশেহ আনাদিলের ভাই কুশান ওমর সূফিকে আসামি করে গত ১৩ ডিসেম্বর বনানী থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেছেন ভুক্তভোগী তরুণী। যদিও ঘটনাটি প্রকাশ হয় ১৭ ডিসেম্বর।

সোমবার সন্ধ্যায় বনানী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবদুল মতিন পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, ধর্ষণের অভিযোগে ভুক্তভোগী তরুণী মামলা করেছেন। মামলা হওয়ার পরই আমরা তদন্ত শুরু করেছি।

তিনি বলেন, ভিকটিমকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ পাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। রিপোর্ট এখনো হাতে পাইনি, রিপোর্টে ধর্ষণের আলামত পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মামলার এজহারে ওই তরুণী অভিযোগ করেন, কুশান ওমর সূফি তাকে বিয়ে করার আশ্বাস দিয়ে দেশের বাইরে যান। দেশে ফেরার পর গত ১৯ নভেম্বর তিনি কুশানের সঙ্গে বিয়ের ব্যাপারে কথা বলতে তার বাসায় যান। কিন্তু কুশানের বড় বোন আনুশেহ তাকে বাসায় ঢুকতে দেননি। পরে কুশান তাকে আলোচনা করার জন্য ২০ নভেম্বর রাত ১২টা ২০ মিনিটে বনানীর হোটেল সুইট ড্রিমের ৮০৫নং রুমে নিয়ে যান। কিন্তু সেখানে বিয়ের বিষয়ে কথাবার্তা না বলে হঠাৎ করে কুশান তাকে মারধর শুরু করেন।

একপর্যায়ে রাত আনুমানিক দেড়টার দিকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দেখিয়ে তাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন।

তিনি আরো বলেন, ২০ নভেম্বর সকালে বিষয়টি বনানী থানায় জানানো হলে পুলিশ কুশানকে থানায় নিয়ে যায় এবং আমাকে অভিযোগ করতে বলে। তখন কুশানের আত্মীয়রা এলে তাদের সামনে সে ক্ষমা চায় এবং ২১ নভেম্বর বিয়ে করবে বলে সম্মতি জানায়। বিয়ের দিন ধার্য হওয়ায় এবং সাক্ষীদের সামনে লিখিত মীমাংসা হওয়ায় আমি তখন কোনো অভিযোগ করিনি।

এজাহারে ওই তরুণী আরো বলেন, পরদিন ২১ নভেম্বর কুশানের বাসায় গেলে তার বোন আনুশেহ আনাদিল, বোনের স্বামী শ্বেত পান্ডু ব্লুববার্গ, আত্মীয় সাজলী আমাকে বাসায় ঢুকতে বাধা দেন, মারধোর ও হুমকি দিয়ে তাড়িয়ে দেয়। কুশানকে তারা অন্য কোথাও পাঠিয়ে দেন এবং দুই এক দিনের মধ্যে বিদেশে পাঠিয়ে দেবেন বলে জানান। পরে এসব অভিযোগ জানিয়ে ২৩ নভেম্বর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করি (জিডি নং ৯৩৫)।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন