সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮ ১২:৪৮:৫৯ এএম

সৌম্য, মুস্তাফিজ, তাসকিন: নতুন বছরে আপন ছন্দে ফেরা খুব জরুরি

খেলাধুলা | বুধবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০১৭ | ০৬:৫৪:৫৬ পিএম

যে রাস্তা খুঁজে পেয়েছিলেন ২০১৬ সালে, তিনজনই তা হারিয়ে ফেলেছেন ২০১৭তে এসে। ২০১৮ সাল সৌম্য, মোস্তাফিজ, তাসকিনের জন্য যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি গুরুত্বপূর্ণ লাল-সবুজের ক্রিকেটের জন্য। এই তিনজনের ফর্মীহনতায় ক্রিকেট সংশ্লিষ্ট অনেকেই চিন্তিত। তাদেরই একজন বিকেএসপির সাবেক কোচ নাজমুল আবেদিন ফাহিম।

নতুন বছরে তিন তরুণের আপন ছন্দে ফেরা খুব জরুরি বলে মনে করেন বিকেএসপির সাবেক এই কোচ, ‘মোস্তাফিজকে আমরা কিছুটা হলেও খুঁজে পাইনি। সেটা ইনজুরির কারণে হোক বা অন্য কোনো কারণে হোক। তাসকিনকেও আমরা যেভাবে চেয়েছিলাম সেভাবে পাইনি। সৌম্যকেও কিছুটা হারিয়েছি। তরুণ খেলোয়াড়দের কাছ থেকে যতটা আশা করেছিলাম ততটা পাইনি। তাদের মধ্যে সম্ভাবনা আছে। তাদের ঘিরে যে আশার জাল বুনছি সেটা হয়তো সত্যি হবে নতুন বছরে।’

নাজমুল আবেদিন মনে করেন সৌম্য-মোস্তাফিজ-তাসকিন নতুন বছরে জ্বলে উঠতে পারলে বাংলাদেশ আরও এক ধাপ উপরে উঠ যাবে, ‘ওরা যদি ভাল খেলতে পারে, বাংলাদেশ টিম খুব তাড়াতাড়ি আরেকটা লেভেলে যেতে পারবে। ওরা কিন্তু ৫-৭-১০ বছরে নিজেদের তৈরি করে এই জায়গায় নিয়ে এসেছে। তাদের কাজে লাগাতে হবে।’

নাজমুল আবেদিন মনে করেন তাদের ফেরার জন্য দলের মাঝে স্থিতিশীলতা গুরুত্বপূর্ণ, ‘আমার মনে হয় এজন্য দলের মাঝে স্থিতিশীলতা খুব গুরুত্বপূর্ণ। আমরা একটুতেই খুব অস্থির হয়ে যাই ভেতরে ও বাইরে। এটা দলে স্থিতিশীলতা নষ্ট করে। এটা সত্যি কথা, অনেকেই ভালো খেলছে আবার অনেকেই খেলছে না। এটা নিয়ে আমরা যত অস্থির হবো দল তত খারাপ খেলবে। দলকে সুযোগটা দেওয়া উচিত। একটা দল ধীরে ধীরে বদলায়। দলের ১১ জনই ভাল খেলে না বা ফর্মে থাকে না। যে ভালো খেলোয়াড় অফ ফর্মে থাকে, সেও কিন্তু আস্তে আস্তে ফর্মে আসে। একটা সময় যখন বেশিরভাগ খেলোয়াড় ফর্মে চলে আসে তখনই ওই দলটা ভালো পারফরম্যান্স করে। যে দলের ড্রেসিংরুমের পরিবেশ যত ভাল, ম্যানেজমেন্ট যত ভাল তারা তত বেশি ওই ধরনের পরিবেশে থাকতে পারে। আর সেটাই কিন্তু এগিয়ে নেয় ভাল পারফরম্যান্সের দিকে। আশা করবো সেরকম একটা দলে রূপান্তরিত হবো আমরা আর সেটি ২০১৮ সালের মধ্যেই।’

নাজমুল আবেদিন আশা করেন গত কয়েক বছরে দেশ-বিদেশে ভাল খেলার যে অভিজ্ঞতা সেটি সামনের সময়ে ভালোভাবেই কাজে দেবে, ‘আন্তর্জাতিক খেলায় ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সের দাম নেই। এজন্য বোঝাপড়া, পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ থাকা জরুরি। আমাদের দলে এখন অনেক বৈচিত্র্য। সাহস বেড়েছে, কেন ভাল করতে পারবো না। আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। দেশে নিয়মিত ভাল খেলি, বিদেশেও ভাল করতে শুরু করেছি। বিগত কয়েক বছরের দারুণ কিছু অভিজ্ঞতা নিশ্চয়ই সামনে কাজে দেবে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন