সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮ ০৬:১৯:০৫ এএম

মির্জা গালিবকে স্মরণ করছে ‘গুগল ডুডল’

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি | বুধবার, ২৭ ডিসেম্বর ২০১৭ | ১০:১২:১২ পিএম

উর্দু ও ফার্সি সাহিত্যের প্রতিভাবান কবি মির্জা আসাদুল্লাহ খান গালিবকে তাঁর ২২০তম জন্মদিনে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেছে সার্চ ইঞ্জিন নামে পরিচিত গুগল। ২৭ ডিসেম্বর বুধবার মির্জা গালিবের ২২০তম জন্মদিন।

গুগল ডুডল একটি ছবিতে দেখা গেছে সে সময়ের আলোকে চিত্রায়িত একটি ভবন, যার বেলকোনিতে হাতে খাতা ও কলম নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন মির্জা গালিব। ছবির পটভূমিতে দেখা যায় সূর্য ও একটি সুন্দর মসজিদ।

মির্জা আসাদুল্লাহ খান গালিব ১৭৯৭ সালে আগ্রায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছিলেন ভারতবর্ষে মোঘল সাম্রাজ্যের শেষ ও ব্রিটিশ শাসনের শুরুর দিকে একজন উর্দু এবং ফার্সি ভাষার কবি। তাঁর সময়কালে মোঘল সাম্রাজ্য তার ঔজ্জ্বল্য হারায় এবং শেষে ১৮৫৭ সালের সিপাহি বিদ্রোহের মধ্য দিয়ে ক্ষমতাচ্যুত হয়। তিনি তাঁর লেখায় এ ঘটনাগুলো বর্ণনা করেছেন সুনিপুণভাবে।
মহাবিদ্রোহের সময়কার তার সেই দিনলিপির নাম ‘দাস্তাম্বু’। তিনি জীবনকালে বেশ কয়েকটি গজল রচনা করেছিলেন যা পরবর্তীতে বিভিন্ন মানুষ বিভিন্ন আঙ্গিকে গেয়েছেন। দক্ষিণ এশিয়ায় তাকে উর্দু ভাষার সবচেয়ে প্রভাবশালী কবি বলে মনে করা হয়। আজও শুধু ভারত বা পাকিস্তানে নয় সারা বিশ্বেই গালিবের জনপ্রিয়তা রয়েছে।

গালিব কখনো তার জীবিকার জন্য কাজ করেন নি। সারা জীবনই তিনি হয় রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় অথবা ধার-কর্জ করে নতুবা কোনো বন্ধুর উদারতায় জীবনযাপন করেছেন। তাঁর খ্যাতি আসে তাঁর মৃত্যুর পর।

তিনি তাঁর নিজের সম্পর্কে মন্তব্য করেছিলেন যে, তিনি বেঁচে থাকতে তার গুণকে কেউ স্বীকৃতি না দিলেও, পরবর্তী প্রজন্ম তাকে স্বীকৃতি দেবে। ইতিহাস এর সত্যতা প্রমাণ করেছে। উর্দু কবিদের মধ্যে তাকে নিয়েই সবচেয়ে বেশি লেখালেখি হয়েছে।

১৮৬৯ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি মির্জা গালিব শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। দিল্লির নিজামুদ্দিন এলাকায় তার সমাধি দেয়া হয়।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন