বুধবার, ২৪ জানুয়ারী ২০১৮ ০১:৫৫:৪৪ পিএম

২০১৭ সালে টেস্টে যেসব রেকর্ড অর্জন করল টাইগাররা!

খেলাধুলা | বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৭ | ১১:১৬:৫৯ এএম

ক্রীড়া জগতের আলোকিত একটি বছর চলে যাচ্ছে। অনেক অর্জন ও না পাওয়ার বেদনা ভর করেছে খেলোয়াড় ও দলের ওপর। ২০১৭ সালটা বেশ ব্যস্ত কাটিয়েছে বাংলাদেশ। এ বছর মোট ৯টি টেস্ট খেলেছে এবং সবগুলো সিরিজই হয়েছে শক্তিশালী দলের বিপক্ষে।

ফলাফলের বিচারে একেবারেই সুবিধা করতে পারেনি বাংলাদেশের টাইগাররা। তবে জিতেছে মাত্র ২টিতে আর বাকি ৭টি টেস্টে হারতে হয়েছে সাকিব-মুশফিকদের। যার ফলে রয়েছে অতৃপ্তি।

কিন্তু ২০১৭ তেই প্রথমবারের মতো শক্তিশালী অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর সুখস্মৃতিও আছে মুশফিকদের। আবার বছরের একেবারে শেষ দিকে মুশফিকুর রহিমকে সরিয়ে সাদা পোশাকে দলের নেতৃত্ব দেয়া হয় সাকিব আল হাসানের কাঁধে। সহ-অধিনায়কের দায়িত্বেও আনা হয় পরিবর্তন। তামিম ইকবালের জায়গায় আসেন শততম টেষ্টে বাদ পরা মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের কাধে।

টাইগারদের নিউজিল্যান্ড সফর:

বাংলাদেশি টাইগারদের সদা পোশাকে বছরের শুরুটাই হয়েছিলো খুবই বাজেভাবে। জানুয়ারিতে নিউজিল্যান্ড সফরে নাস্তানাবুদ হয়েছিলো মুশফিক বাহিনী। দুই ম্যাচের সিরিজে হয়েছিলো হোয়াইটওয়াশ। ওয়েলিংটনে প্রথম ম্যাচের প্রথম ইনিংসে আশা জাগালেও দ্বিতীয় ইনিংসে সেই চিরাচরিত ব্যাটিং ব্যর্থতা। প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশের ৮ উইকেটে ৫৯৫ রান করার পথে সাকিব আল হাসান করেন ক্যারিয়ারসেরা ২১৭ রান। আর মুশফিকের ব্যাট থেকে আসে ১৫৯ রানের অনবদ্য এক ইনিংস। ফলাফল ৭ উইকেটের হারে টাইগার বাহিনী। ক্রাইস্টচার্চে দ্বিতীয় ম্যাচে বলতে গেলে পাত্তাই পায়নি বাংলাদেশ। ৯ উইকেটে হারের ম্যাচে সৌম্য সরকারের ৮৬ রানই বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের মধ্যে সর্বোচ্চ রান।

টাগারদের ভারত সফর:

এই বছরেই প্রথমবারের মতো ভারতের মাটিতে টেস্ট খেলার আমন্ত্রণ পায় টাইগার বাহিনী। ফেব্রুয়ারিতে সেই সফরের একমাত্র টেস্টে ২০৮ রানের হার নিয়ে ফেরে মুশফিকরা। হায়দ্রাবাদের ম্যাচটিতে অর্জন বলতে মুশফিকুর রহিমের ১২৭ রানের ইনিংসটিই।

টাগারদের শ্রীলঙ্কা সফর ও শততম টেস্ট:

চান্ডিকা হাথুরুসিংহে ২০১৭ সালের মার্চ মাসে নিজ দেশে সফর করেন টাগারদের নিয়ে। গলে প্রথম ম্যাচে ২৫৯ রানে হারলেও দ্বিতীয় টেস্টে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। কলম্বোয় ম্যাচটি ছিলো বাংলাদেশের শততম টেস্ট। ৪ উইকেটে জিতে সেঞ্চুরী টেস্টকে স্মরণীয় করে রাখে টাইগাররা। ব্যাট হাতে ১১৬ রানের দারুণ ইনিংস খেলেন সাকিব আল হাসান।

টাগারদের অস্ট্রেলিয়া বধ:

শ্রীলঙ্কা থেকে ফেরার প্রায় চার মাস পর অস্ট্রেলিয়াকে আতিথ্য দেয় বাংলাদেশ। নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ঘরের মাঠে অজি বধের কাব্য লেখে এই সিরিজেই। শের-ই বাংলায় স্মিথ বাহিনীকে তারা হারায় ২০ রানে। ম্যাচে ১০ উইকেট তুলে নেন সাকিব আল হাসান। তবে চট্টগ্রামে ঘুরে দাঁড়ায় অজিরা। ডেভিড ওয়ার্নারের দারুণ সেঞ্চুরিতে ৭ উইকেটের জয় নিয়ে সিরিজে হার এড়ায় সফরকারীরা।

হতাশার দক্ষিণ আফ্রিকা সফর:

সাদা পোশাকে প্রথমবারের মতো অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর সুখস্মৃতিতে খুব বেশি দিন ডুবে থাকতে পারেনি মুশফিকরা। সেপ্টেম্বরেই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যায় বাংলাদেশ। ব্যাটে বলে দারুণ ব্যর্থতার পরিচয় দেয় তারা। ফলাফলও একেবারেই হতশ্রী। পচেফস্ট্রুমে প্রথম টেস্টে ৩৩৩ রানের হারের পর ব্লুমফন্টেইনে লজ্জার ষোলকলা পূর্ণ করে মুশফিকরা। ইনিংস এবং ২৫৪ রানে হেরে হোয়াইটওয়াশ হয়ে ফেরে দেশে। এই সিরিজের সময় বিশ্রামে ছিলেন সাকিব আল হাসান। সফরের মাঝ পথেই কোচ চান্ডিকা হাথুরুসিংহে বিসিবির কাছে পদত্যাগপত্র দেন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন