রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮ ০১:৩৩:১৫ এএম

শয়তানের সবচেয়ে পছন্দের কাজ কোনটি?

ধর্ম | বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৭ | ০৩:৫৯:৩০ পিএম

আমরা জানি, আল্লাহ্ পাক রব্বুল আলামিন মানুষ সৃষ্টির পূর্বেই ইবলিশ কে সৃষ্টি করেছিলেন। মানুষ সৃষ্টির এক পর্যায়ে অহংকার করার কারণে সে হয় সব থেকে অভিসপ্ত ও নিকৃষ্ট। আল্লাহ্ পাক দুনিয়াতে মানুষ পাঠানোর সাথে সাথে পাঠালেন সেই অভিসপ্ত শয়তানকে। তখন থেকেই ইবলিশ মানুষের প্রত্যক্ষ শত্রু। নানান ভাবে সে মানুষকে ধোকার মধ্যে ফেলে দেয়। পৃথিবীর যত অন্যায় কাজ আছে, যত খারাবি আছে যত অনিষ্ট সাধনের কাজ আছে সবই শয়তানের প্রিয়। কিন্তু এসব খারাবিতেও শয়তান সন্তুষ্ট নয়।

সব ধরণের খারাবির মধ্যে শয়তানের কাছে যে কাজটি সবচেয়ে কাছে সবচেয়ে প্রিয় হচ্ছে স্বামী-স্ত্রীর মাঝে মনমালিন্য সৃষ্টি করে বিভেদ সৃষ্টি করা। সর্বশেষ বিচ্ছিন্ন করা।

জাবির (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, ইবলীস পানির উপর তার আরশ স্থাপন করে তার বাহিনী প্রেরণ করে। তাদের মধ্যে তার সর্বাধিক নৈকট্যপ্রাপ্ত সেই যে সর্বাধিক ফিতনা সৃষ্টিকারী। তাদের একজন এসে বলে, আমি অমুক অমুক কাজ করেছি। সে বলে, তুমি কিছুই করনি। অতঃপর অন্যজন এসে বলে, অমুকের সাথে আমি সকল প্রকার ধোঁকার আচরণই করেছি। এমনকি তার থেকে তার স্ত্রীকে বিচ্ছিন্ন না করা পর্যন্ত আমি তাকে ছেড়ে দেই নি। অতঃপর শয়তান তাকে তার নিকটবর্তী করে নেয় এবং বলে হ্যাঁ, তুমি একটি বড় কাজ করেছ। বর্ণনাকারী আ’মাশ বলেন, আমার মনে হয়, তিনি বলেছেনঃ অতঃপর শয়তান তাকে তার বুকের সাথে জড়িয়ে নেয়। (মুসলিম- ৬৮৪৬)

এর পরের হাদিসে আছে, হযরত জাবির (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেনঃ শয়তান তার সৈন্য বাহিনীকে প্রেরণ করতঃ লোকদেরকে ফিতনায় লিপ্ত করে। তাদের মধ্যে সে-ই তার নিকট সর্বাধিক মর্যাদার অধিকারী যে অধিক ফিতনা সৃষ্টিকারী। (মুসলিম (৬৮৪৭)

আল্লাহ্ পাক রব্বুল আলামিন আমাদেরকে অভিসপ্ত ইবলিশ শয়তানের ধোকা থেকে বেঁচে থাকার তাওফিক দান করুন। আমিন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন