রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮ ১০:৪০:১৬ পিএম

খাদ থেকে তুলে হাতি শাবককে বাঁচালেন যুবক

আন্তর্জাতিক | শুক্রবার, ২৯ ডিসেম্বর ২০১৭ | ০৭:০১:২৫ পিএম

ভারতের তামিলনাড়ু প্রদেশে খাদে পড়ে যাওয়া
একটি হাতি শাবক বাঁচালেন বনরক্ষাকর্মী পালানিস্বামি শরতকুমার। নিজের ওজনের
চেয়ে দ্বিগুণ ওজনের হাতি নিজের কাঁদে তুলে নিলেন।


এরপর মা থেকে আলাদা হওয়া হাতির বাচ্চটাকে মায়ের কাছে পৌঁছে দিলেন তিনি।


এই বীরত্বপূর্ণ ও মহান কাজের জন্য এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে প্রশংসায় ভাসছেন শরতকুমার।


গত ১২ ডিসেম্বরে হাতিটিকে উদ্ধারের পর
তামিলনাড়ু প্রদেশের একটি সাপ্তাহিক পত্রিকা গত সপ্তাহে বিষয়টি প্রকাশের পর
আলোচনায় আসেন পালানিস্বামি শরতকুমার। অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জানতে
চেয়েছে, সে কীভাবে প্রায় ১০০ কেজি ওজনের হাতিটাকে কাঁধে তুললো?


পালানিস্বামি শরতকুমার এ প্রসঙ্গে বলেন,
‘খাদ থেকে তুলে আমরা প্রথমে শাবকটিকে হাঁটানোর চেষ্টা করি কিন্তু এতটাই
দুর্বল ও অসুস্থ ছিল যে হাঁটতে পারছিলো না। তাই উপায় না পেয়ে আমি একে কাঁধে
তুলে নিই। ওর ওজন প্রায় ১০০ কেজির মতো ছিল। তবে আমার বিশ্বাস ও মনোবল ছিল
যে এটাকে আমি তুলতে পারব। এক মুহূর্তেই এটাকে আমি কাঁধে তুলে নিলাম। ওর মার
কাছে ওকে পৌঁছে দিতে পেরে আমার খুব আনন্দ লাগছে।’


শরতকুমার তামিলনাড়ুর মেত্তুপালায়াম বনের
এক জন সাধারণকর্মী হিসেবে কার্যরত আছেন। মেত্তুপালায়াম বন ওথি হিল স্টেশন
থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত।



বিবিসি তে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন,
‘শাবকটি তোলা ও বহন করার ভিডিওটি স্থানীয় টেলিভিশন ও সামাজিক যোগাযোগ
মাধ্যমগুলোতে সম্প্রচার করেছে এবং অনেক মানুষ আমাকে ধন্যবাদ জানিয়ে আমার এ
কাজের ব্যাপক প্রশংসা করেছে।’


তিনি আরো বলেন, ‘একই প্রশ্ন আমার গ্রামের
মানুষ এখনও করে যে কীভাবে এত বড় হাতিকে আমার কাঁধে বহন করলাম যার ওজন আমার
চেয়ে দ্বিগুণেরও বেশি। কাঁধে তোলার পর নিয়ন্ত্রণ হারানোর একটু ভয়তো ছিলই।
কিন্তু আমার সহকর্মী ও বন্ধুরা ধরে আমাকে অনেক সাহায্য করেছে।’


খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন