বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ০৪:৫৪:৪১ এএম

যে ভাবে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয় সাদ্দামকে! (ভিডিও)

আন্তর্জাতিক | শনিবার, ৩০ ডিসেম্বর ২০১৭ | ০৪:৪৩:১৮ পিএম

ছবি: সংগৃহিত

একাবিংশ শতাব্দীতে আলোচিত ঘটনা ইরাকের সাবেক প্রেসিডেন্ট সাদ্দাম হোসেনের ফাঁসি কার্যকর। তার শাসনকালে দেশের শিয়া সম্প্রদায়ের ওপর গণহত্যা চালানোর অভিযোগেই মৃত্যুদন্ডে দন্ডিত করা হয়। এই ব্যাক্তি ১৯৮০ সালে আমেরিকা ও পাশ্চাত্যের সহায়তায় ইরানে আগ্রাসন চালায় এবং লক্ষাধিক ইরানী তরুণ ও যুবক এ আগ্রাসনে শহীদ হয়৷ ১৯৯০ সালে সাদ্দাম কুয়েত আক্রমন করে। এসময় সাদ্দাম ইরাকের শিয়া মুসলমানসহ সুন্নী সম্প্রদায়ভুক্ত কুর্দী মুসলমানদের অভ্যুত্থান দমনের নামে লক্ষ লক্ষ ইরাকী শিয়া ও কূর্দী মুসলমানকেও হত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠে। ২০০৩ সালের ইঙ্গ-মার্কিন বাহিনী ইরাক দখলের পর সাদ্দাম আত্মগোপন করেন এবং একই বছরের ১৩ ডিসেম্বর সাদ্দাম হোসেন মার্কিন সেনাদের কাছে ধরা পড়েন।

প্রায় তিন বছর বিচার চলার পর ২০০৬ সালের ৫ই নভেম্বর ইরাকের আদালত ৮০’র দশকে বাগদাদের উত্তরে দুজাইল গ্রামে ১৪৮ জন ইরাকীকে হত্যার দায়ে সাদ্দামকে মৃত্যুদন্ড দেয়। সাদ্দামের বিরুদ্ধে ছিল মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ। ২০০৬ সালের ৩০ ডিসেম্বর ইরাকে সাদ্দাম হোসেনের ফাঁসি কার্যকর হয়। এখন একটা ব্যাপার খেয়াল করতে হবে যখন মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয় তখন থাকে ‘বর্তমান’ সময়, আর যে অপরাধের কারনে দেয়া হয় তা ঘটে ‘অতীতে’ … সময় পেরিয়ে যায় আমাদের যারা ঘটনা জানি পেপার/বই এর মাধ্যমে তারা ঘটনাকে দর্শক হিসেবে দেখি বা তা নিয়ে মন্তব্য করি। কিন্তু যারা victim তারা কিন্তু এভাবে দেখে না। তারা মনের মাঝে সঠিক বিচার পাবার আশা রাখে।

এই কারনে যখন আমি victim এর স্থান থেকে কিছু বিচার করি capital punishment আমার কাছে সঠিক মনে হয়। যত মানুষ সাদ্দামের কারনে মারা গেছেন তাদের একজন যদি আমার আপনার পরিবারের কেউ হত তাহলে কি করতাম বা করতেন?? মাফ করে দিতাম বা দিতেন? মানবাধিকার শুধু অপরাধীর বেলায় প্রযোজ্য? যে victim, যে নিজের বাবা, মা, ভাই, বোন, স্বামী, স্ত্রী কে হারাল তার জন্য মানবাধিকার নাই? তাহলে আইনের কি দরকার? যদি শাস্তি দিতে গেলেই ‘মানবাধিকার’ লঙ্ঘন হয়?? ১৯৭১ এ যতজন কে আমরা হারিয়েছি তার বিনিময়ে ১০০ বার মৃত্যুদণ্ড পাবার কথা পাকিস্তানিদের, রাজাকারদের। কাজেই অপরাধ করলে অপরাধীকে প্রাপ্য শাস্তি দিতেই হবে।-সুত্র: বিবিসি, উইকিপিডিয়া।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন