বুধবার, ২৪ জানুয়ারী ২০১৮ ০১:৫৪:৫৮ পিএম

আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

জাতীয় | সোমবার, ১ জানুয়ারী ২০১৮ | ১২:১৪:০১ পিএম

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে শুরু হলো মাসব্যাপী ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা ২০১৮।

১ জানুয়ারি সোমবার বেলা ১২টার দিকে রাজধানীর শেরেবাংলানগরের মেলা প্রাঙ্গণে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা উদ্বোধন করেন তিনি।

সোমবার মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা গেছে, শেরেবাংলানগরের মেলা প্রাঙ্গণ সেজেছে অপরূপ সাজে। যেখানে এতদিন ছিল বিরান ভূমি, এখন দৃষ্টিনন্দন স্টল। স্টলের চারদিক সাজানো হয়েছে ফুলে ফুলে।

এবারে বাণিজ্য মেলার প্রধান প্রবেশদ্বার করা হয়েছে পদ্মা সেতুর আদলে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত হচ্ছে ২৩তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। তবে বাণিজ্য মেলার সব স্টলের অবকাঠামো নির্মাণ কাজ এখনো শেষ হয়নি। কোনো কোনো স্টলে মালামাল উঠানো শুরু হয়েছে। আবার কোনোটার চলছে পুরোদমে রং করা।

মেলায় দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠানের স্টল ও প্যাভিলিয়ন মিলিয়ে এবার ৫৪০টি প্রতিষ্ঠান অংশ নিচ্ছেন বলে জানা গেছে।

ইপিবি সূত্রে জানা যায়, এবার বাণিজ্য মেলায় বাংলাদেশসহ ১৭টি দেশ অংশগ্রহণ করবে। দেশগুলো হলো ভারত, পাকিস্তান, চীন, ব্রিটেন, দক্ষিণ কোরিয়া, মালয়েশিয়া, ইরান, থাইল্যান্ড, যুক্তরাষ্ট্র, তুরস্ক, সিঙ্গাপুর,, ভুটান, মরিশাস, ভিয়েতনাম, মালদ্বীপ, নেপাল ও হংকং।

মেলার আয়োজক সূত্র জানায়, মেলায় এবারও মা ও শিশু কেন্দ্র, শিশুপার্ক, ই-পার্ক, এটিএম বুথ, রেডিমেড গার্মেন্টস, হোমটেক্স, ফেব্রিকস পণ্য, হস্তশিল্পজাত, পাট ও পাটজাত, গৃহস্থালি ও উপহারসামগ্রী, চামড়া ও চামড়াজাত পণ্য, তৈজসপত্র, সিরামিক, প্লাস্টিক, পলিমার পণ্য, কসমেটিকস হারবাল ও প্রসাধনীসামগ্রী, খাদ্য ও খাদ্যজাত পণ্য, ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিকসামগ্রী, ইমিটেশন ও জুয়েলারি, নির্মাণসামগ্রী ও ফার্নিচার স্টল থাকছে। আয়োজকরা জানান, ২০১৭ সালের বাণিজ্য মেলায় ২৪৩ কোটি টাকার রপ্তানি আদেশ পাওয়া গেছে। আগের বছর ছিল ২৩৫ কোটি টাকার। ২০১৮ সালের মেলায় ২৫০ টাকার রপ্তানি আদেশ পাওয়া যাবে বলে প্রত্যাশা করছে ইপিবি। এবারের মেলায় ডিজিটাল অ্যাক্সপেরিয়েন্স সেন্টার, ইকোপার্কসহ নতুন অনেক কিছুই থাকছে। মেলার অবব্যস্থাপনা রোধে ভ্রাম্যমাণ আদালত ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তার সার্বক্ষণিক নজরদারিতে থাকবেন বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা।

১ জানুয়ারি শুরু হওয়া এ মেলা চলবে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত। মেলায় কোনো সাপ্তাহিক ছুটি নেই। সকাল ১০ থেকে রাত ১০ পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে। প্রবেশ ফি প্রতিজন ৩০ টাকা। ছোটদের জন্য ২০ টাকা।

বিভিন্ন দেশের প্রতিষ্ঠান মেলায় নিজেদের উৎপাদিত পণ্য প্রদর্শন করে। দেশি ও বিদেশি পণ্যসামগ্রী প্রদর্শন, রপ্তানি বাজার অনুসন্ধান এবং দেশি-বিদেশি ক্রেতার সঙ্গে সংযোগ স্থাপনের ক্ষেত্রে এ মেলা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। মেলায় অংশগ্রহণের মাধ্যমে শিল্পপণ্য ও ভোগ্যপণ্য উত্পাদনকারীরা একদিকে তাদের উৎপাদিত পণ্যের গুণগত মান, ডিজাইন, প্যাকেজিং ইত্যাদি প্রদর্শন ও বিপণন করতে পারেন, অন্যদিকে পারস্পরিক সংযোগ স্থাপনসহ অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক বাণিজ্য প্রসারের সুযোগ লাভ করে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন