বৃহস্পতিবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৮ ১১:১৫:১৮ পিএম

আস্তানায় বালিশ-ই সম্বল ছিল জঙ্গি জাহিদের

নগর জীবন | শুক্রবার, ১২ জানুয়ারী ২০১৮ | ০৫:০১:১৭ পিএম

জঙ্গি আস্তানায় জাহিদের সম্বল ছিল শুধু বালিশ। ছাত্র পরিচয়ে ভাড়া নেয়া জঙ্গি আস্তানায় জাতীয় পরিচয়পত্র দেখে এক জঙ্গির নাম পেয়েছে র‌্যাব। তার নাম-ই জাহিদ। তবে এই নাম নিশ্চিত কি না সেটি বলতে পারেনি র‌্যাবের কর্মকর্তারা।

তারা বলছেন, একই ছবিতে পাওয়া আরেকটি পরিচয়পত্রে সজিব লেখা। এ কারণে কোন নাম সঠিক তা নিশ্চিত করে বলতে পারেন নি কর্মকর্তারা। দুই পরিচয়পত্রের মধ্যে জাহিদের পরিচয়পত্রে বাবার নাম লেখা রয়েছে জোবায়ের আহমেদ। ঠিকানা কুমিল্লা। আর সজিবের স্থানে বাবার নাম ঠিক থাকলেও ঠিকানায় লেখা রয়েছে ব্রহ্মণবাড়িয়া।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান বলেন, জাহিদ নামেই গত ২৯ ডিসেম্বর বাসা ভাড়ার ব্যাপারে কেয়ারটেকার রুবেলের সাথে যোগাযোগ হয়। এরপর ৪ জানুয়ারি বাসায় আসে জাহিদ। এরপর ৮ জানুয়ারি অপর দুই সঙ্গিসহ বাসায় আসে জাহিদ। কেয়ারটেকার রুবেল-ই জাহিদকে সনাক্ত করে দেয়।

মুফতি মাহমুদ খান বলেন, জঙ্গিদের আস্তানায় তেমন কিছুই ছিল না। শুধু বালিশ আর কাঁথা ছিল।

বাড়ির বাসিন্দাদের জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে র‌্যাবের মুখপাত্র জানান, জাহিদ কখন বের হতো এটি কেউ দেখতো না। তারা মূলত ওই রুমের ভেতরেই অবস্থান করতো।

তিনি বলেন, ৬ তলা বাড়ির ৫ তলার বামপাশের একটি ইউনিটে তারা থাকতো। ঢাকায় বড় ধরনের হামলা করতেই এই গ্রুপ তৈরী হচ্ছিল।

র‌্যাবের এ অভিযানের মধ্যে দিয়ে তাদের সে পরিকল্পনা নস্যাৎ হয়ে যায়।

তিনি আরো বলেন, ফিঙ্গার প্রিন্টের মাধ্যমে তিনজনের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যাবে। আর নিহত জঙ্গিদের বয়স ২০ থেকে ২৭ বছর বয়সের মধ্যে হবে।

এদিকে বিকেলে সাড়ে ৩টার দিকে নিহত তিন জঙ্গির লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

শুক্রবার ভোরে রাজধানীর পশ্চিম নাখালপাড়ার রুবি ভিলা এক বাসায় র‌্যাব অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় জঙ্গিরা র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ও গ্রেনেড ছুঁড়লে র‌্যাবও গুলি চালায়। এতে করে তিন জঙ্গি নিহত হয়।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন