বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮ ০২:৩৩:৩৯ এএম

বিশ্ব তোলপাড় করা ১০ মোবাইল ফোন

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি | বুধবার, ২৪ জানুয়ারী ২০১৮ | ১২:১০:২৪ এএম

শুধু যোগাযোগের মাধ্যম নয় নিত্যদিনের নানা
কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে স্মার্টফোন। বিশ্বে সব থেকে বহুল ব্যবহৃত গ্যাজেট
স্মার্টফোন। সাধারণ কমিউনিকেশন ডিভাইস থেকে স্মার্টফোনের বিবর্তনের ইতিহাসও
মনে রাখার মতো। জেনে নিন বিশ্ব তোলপাড় করা ১০ মোবাইল ফোনে খবর। যেগুলো এক
সময় ছিল আকর্ষণীয় গ্যাজেট। এগুলো এখনো মানুষের মনে আছে।



মটোরোলা ডায়নাট্যাক ১৯৮৪
১৯৮৪
সালে এই ফোনের হাত ধরেই বাজারে আসে মোবাইল ফোন। এই ফোন চার্জ হতে সময় লাগত
প্রায় ১০ ঘণ্টা। ১০ ঘণ্টার চার্জে এই ফোনে ৩০ মিনিটের টকটাইম পাওয়া যেত।
৩০ টি নম্বর সেভ করা যেত এই ফোনে। সেই সময় ফোনের দাম ছিল ৪০০০ মার্কিন
ডলার।



মটোরোলা স্টারট্যাক ১৯৯৬
এটি
ছিল পৃথিবীর প্রথম ক্যামশেল মোবাইল ফোন। এই ফোনের দাম ছিল ১০০০ মার্কিন
ডলার। এই টুজি ফোনে ছিল একটি মোনোক্রোম গ্রাফিক ডিসপ্লে। ডিসপ্লের
রেজুলিউশন ছিল ৪ বাই ১৫। ক্যারেক্টার রেজুলেশন। এছাড়াও এই ফোনে ছিল
ভাইব্রেশান ও ৫০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি।


 


নকিয়া কমিউনিকেটর ১৯৯৬
১৯৯৬
সালে সময়ের অনেক আগে প্রথম স্মার্টফোন বাজারে আনে নকিয়া। এই ফোনের স্টোরেজ
ছিল ৮ জিবি। এছাড়াও ফোনে আছে ক্যামশেল ডিজাইন সাথে স্ক্রিন ও কি-বোর্ড।
সেই আমলে এই ফোনে ওয়েব ব্রাউজ করা যেত। এছাড়াও এই ফোন থেকে পাঠানো যেত
ইমেল। ফলে সময়ের থেকে অনেকটাই এগিয়ে ছিল এই ফোন।


নকিয়া ৩৩১০
পৃথিবীর
সবথেকে জনপ্রিয় ফোন অবশ্যই নকিয়া ৩৩১০। এই ফোনেই প্রথম ছিল সাইলেন্ট মোডে
ভাইব্রেশানের ফিচার। এছাড়াও এই ফোন বিখ্যাত বিল্ড কোয়ালিটির জন্য।


নকিয়া ১১০০
এটি
অবশ্যই অন্যতম জনপ্রিয় ফিচার ফোন। এখনো বিশ্বব্যাপী বহু গ্রাহক ব্যবহার
করেন এই ফোন। একবার চার্জ দিলে ২০ দিন চলে এই ফোন। এছাড়াও এই ফোন খুব
শক্তপোক্ত বলে ব্যবহারকারীদের কাছে খুব প্রিয়।



ট্রিও ১৮০
পাম ট্রিও কোম্পানির জনপ্রিয় ফোন ছিল ট্রিও ১৮০। এই ফোন চলতো পাম ওপারেটিং সিস্টেমে। এই ফোনে ছিল মোনোক্রোম টাচস্ক্রিন ডিসপ্লে।


মটোরোলা রেজর
সেই সময়ে নতুন প্রজন্মের ফ্যাশন স্টেটমেন্ট ছিল এই ফোনটি। মটোরোলা রেজর এ চার্জিং ও মিউজিকের জন্য ছিল একটি মিনি ইউএসবি পোর্ট।


আইফোন
আইফোন প্রথম
বাজারে আসার পর বদলে গেল স্মার্টফোনের ইতিহাস। এই প্রথম স্টাইলাস ছাড়া
নিজের আঙুল দিয়ে ব্যবহার করা গেল টাচস্ক্রিন। মোবাইল ফোন টেকনোলজিকে অন্য
উচ্চতায় নিয়ে গেল আইফোন। যা পরে অনুসরণ করেছিল সব মোবাইল কোম্পানি।



স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট
আইফোন
ছাড়াও স্যামসাং গ্যালাক্সি নোট সিরিজের ফোনগুলি দেখিয়েছিল নতুন আবিষ্কারের
দিশা। এই ফোনেই প্রথম দেখা যায় আইরিস স্ক্যানার, কার্ভড ডিসপ্লে,
ওয়াটারপ্রুফিং ও স্টাইলাস।


এলজি জি৬
এটি প্রথম ১৮:৯ অ্যাসপেক্ট রেশিওর স্মার্টফোন। যা আজকাল সব মোবাইলেই দেখা যাচ্ছে। এর ফলে ছোট হয়েছে ফোনের বেজেল।


খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন