বৃহস্পতিবার, ২৪ মে ২০১৮ ০৯:১৮:৪৩ পিএম

‘সংসদ নির্বাচনে কালো টাকা ছড়াছড়ি হতে পারে’

অর্থনীতি | রবিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০১৮ | ০৪:১৭:৪৯ পিএম

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ঘিরে কালো টাকার ছড়াছড়ি হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত।

রোববার (২৮ জানুয়ারি) সকালে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন রূপালী ব্যাংক লিমিটেডের বার্ষিক ব্যবসায়িক সন্মেলন-২০১৮ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ আশঙ্কা করেন।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বলেন, ‘আগামী সংসদ নির্বাচনে ব্যাংকিং খাতে কালো টাকার ছড়াছড়ি হতে পারে, এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংকসহ এ খাতের সংশ্লিষ্ঠ সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। ব্যাংকিং খাতে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের ঋণ দিয়ে তুলে আনতে হবে। এতে ক্ষুদ্র উদ্যোক্তাদের উন্নয়নের পাশাপাশি কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে ও সাধারণ মানুষের উন্নয়ন ঘটবে।

রূপালী ব্যাংক ব্যবস্থাপনা পরিচালকের এক বক্তবে সাধুবাদ জানিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ২০১৮ সাল নাগাদ রূপালী ব্যাংক শীর্ষে যাবে এতে আমি আনন্দিত। কিন্তু অন্যান্য ব্যাংকিং খাতের এমন শীর্ষে যাওয়ার প্রতিযোগিতায় বিভিন্ন ধরনের সমস্যাও তৈরি হতে পারে। এদিকে আমাদের সজাগ থাকতে হবে।

মুহিত আরো বলেন, ব্যাংকিং খাত একসময় ক্ষতিগ্রস্থ ছিল। সে জায়গা থেকে উল্লেখযোগ্যভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছি। বর্তমানে এ খাতের অবস্থা খুব ভালো ও প্রশংসিত। এ খাতে সব বিপর্যয় আমরা কাটিয়ে উঠতে সক্ষম, যা অতীত থেকে আমরা শিক্ষা নিয়েছি।

অনুষ্ঠানে রূপালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও মো. আতাউর রহমান প্রধান বলেন, ‘২০১৭ সাল ছিল আমাদের ঘুরে দাঁড়ানোর বছর। ২০১৮ সাল হবে আমাদের শীর্ষে যাওয়ার বছর। এতে আমাদের কিছু অন্তরায় রয়েছে- সে বিষয়ে আমরা অর্থমন্ত্রীর সুদৃষ্টি কামনা করছি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা ২০১৬ সালে ১৪৪টি লস ব্রাঞ্চ থেকে বর্তমানে ৩০টিতে এসেছি। এছাড়া সম্প্রতি ‘শিওর ক্যাশ’ মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ডিজিটাল বাংলাদেশের নতুন মাইলফলক অর্জন করেছি।’

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন_ অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. ইউনুছুর রহমান, রূপালী ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান মনজুর হোসেন, ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সদস্য অর্জিত চৌধুরী, দীনা আহসান, মহিউদ্দিন ফারুকী, ড. মো. হাসিবুর রশিদ, আবু সুফিয়ান, ড. মো. সেলিম উদ্দিন, একেএম দেলোয়ার হোসেন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ দশ সেরা ব্যবস্থাপককে সন্মাননা পদক প্রদান করা হয়। সভায় ব্যাংকটির ৫৬৩টি শাখার ব্যবস্থাপক উপস্থিত ছিলেন।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন