সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮ ০২:৩৯:৩৬ পিএম

বাংলাদেশের সঙ্গে বেঈমানি করে বসলেন আরেক শ্রীলঙ্কান!

খেলাধুলা | মঙ্গলবার, ৩০ জানুয়ারী ২০১৮ | ০৮:২১:০৫ পিএম

চন্ডিকা হাথুরুসিংহের পর বিবিসি, জাতীয় দল তথা বাংলাদেশ ক্রিকেটের সঙ্গে বেঈমানি করে বসলেন আরেক শ্রীলঙ্কান। তিনি গামিনি ডি সিলভা। মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামের প্রধান কিউরেটর। মানে পিচ নিমার্তা। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে টাইগারদের পছন্দসই তথা বিসিবির নির্দেশমতো উইকেট তৈরীর কথা বলেও সেটা করেননি। এখানেই শেষ নয়, ফাইনালের আগের দিন প্রায় দেড় ঘন্টা কথা বলেছেন শ্রীলঙ্কান কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহের সঙ্গে। উইকেটের গোপন তথ্য প্রদান করে বাংলাদেশের সঙ্গে চরম বেঈমানি করেছেন গামিনি।

ম্যাচের আগের দিন প্রতিপক্ষের কোচ, অধিনায়ক বা টিম ম্যানেজমেন্ট সঙ্গে এভাবে একান্ত কথা বলতে পারেন না অন্য দলের কিউরেটর। অথচ শ্রীলঙ্কার কোচের সঙ্গে দীর্ঘ সময় একান্ত কথা বলে নিয়মভঙ্গের মতো কাজ করেছেন গামিনি।

নভেম্বর ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত বিপিএলে মিরপুরের উইকেট বানানোর দায়িত্ব ছিল গামিনি ডি সিলভার উপর। কিন্তু যে ধরণের উইকেট তিনি বানিয়েছিলেন তা মোটেও টি-টোয়েন্টি বাদ্ধব ছিল না। বিপিএলের উইকেট নিয়ে সব ক্রিকেটারেরই অসন্তোষ ছিল।বাজে উইকেট নিয়ে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে, পিচের সমালোচনা করেছিলেন তামিম ইকবাল। ন্যায্য কথা বলেও বিসিবির মোটা অঙ্কের জরিমানার মুখে পড়তে হয়েছিল তামিমকে। সরাসরি গামিনির পক্ষ নিয়েছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

এবার অবশ্য টনক নড়েছে বিসিবির। তবে দেরিতে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে যেহেতু ফাইনাল, তাই শ্রীলঙ্কান কিউরেটরকে ফাইনাল ম্যাচের পিচ বানানো থেকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি করেছিলেন মাশরাফি, সাকিব তামিমরা। কিন্তু ক্রিকেটারদের এ দাবি অগ্রাহ্য করে বিসিবি। গামিনিকে বিশ্বাস করে বসে থাকে বিসিবি।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে যে পিচে ৩২০ রান করেছিল বাংলাদেশ, ফাইনালও হয়েছে একই উইকেটে। বিসিবি ও ক্রিকেটাকে পক্ষ থেকে গামিনিকে বলা হয়েছিল ফাইনালেও যেন একই আচরণ করে। মানে ব্যাটিং উইকেট। এ কারণে ম্যাচের আগের দিন পিচে পানি নিতে নিষেধ করা হয়েছিল। বিসিবি ও ক্রিকেটারদের কথা না শুনে আগের দিন বিকালে উইকেটে পানি দিয়ে উইকেট আরো জটিল করে দেন শ্রীলঙ্কান কিউরেটর। উইকেটে পানি দেওয়া হয়েছিল হাথুরুর সঙ্গে একান্ত বৈঠকের পর। তাহলে কী হাথুরুর কথামতো ওই কাজ করেছিলেন গামিনি ডি সিলভা?

ফাইনালে যেমনটা আশা করেছিলেন মাশরাফিরা, মাঠে নেমে দেখেন উইকেট সম্পূর্ণ বিপরীত। অপ্রত্যাশিত উইকেটে পরে ব্যাট করতে নেমে বিপদে পড়েন বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা। হারতে হয় বড় ব্যবধানে।

গামিনি ডি সিলভার কাজ কর্মে অবশেষে টনক নড়েছে বিসিবির। তাঁর কাছে ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে। কী ব্যাখ্যা দিবেন শ্রীলঙ্কান কিউরেটর?
-ঢাকাটাইমস

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন