বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ ১২:৩৫:২৯ এএম

বিজিবির ১৮৯ খেলোয়াড়কে সংবর্ধনা

জাতীয় | মঙ্গলবার, ৩০ জানুয়ারী ২০১৮ | ০৯:৩৪:২৮ পিএম

কৃতি খেলোয়াড়ের সংবর্ধনা পেয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) ১৮৯ জন। মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর পিলখানায় বিজিবি সদর দপ্তরের বীর উত্তম ফজলুর রহমান খন্দকার মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এ সংবর্ধনা দেয়া হয়।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন_ যুব ও ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়। উপস্থিত ছিলেন_ বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আবুল হোসেন, বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের মহাসচিব সৈয়দ শাহেদ রেজা ও সহ-সভাপতি অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু, বাংলাদেশ আর্চারি ফেডারেশনের সভাপতি লে. জেনারেল (অব:) মো. মইনুল ইসলাম, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশন, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের উর্দ্ধতন কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন ক্রীড়া ফেডারেশনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ক্রীড়াঙ্গনের বিশিষ্ট ব্যক্তিরা।

অনুষ্ঠানে বিজিবি মহাপরিচালক বলেন, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বীরত্ব ও ঐতিহ্যের ধারক এক সুশৃঙ্খল আধা-সামরিক বাহিনী। দেশের ভৌগলিক সার্বভৌমত্ব রক্ষায় এবং কোটি জনতার নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দৃঢ় প্রত্যয় ও দায়িত্ববোধে উজ্জীবিত হয়ে এ বাহিনীর অকুতোভয় সৈনিকেরা সীমান্তের অতন্দ্র প্রহরী হিসেবে সার্বক্ষনিক নিয়োজিত থাকে।

তিনি বলেন, সীমান্ত রক্ষা ও চোরাচালান প্রতিরোধসহ দেশের অভ্যন্তরীণ আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা প্রদানে বিজিবির অব্যাহত সাফল্যের পাশাপাশি ক্রীড়াঙ্গনে বিজিবির সাফল্য দেশের গৌরব ও মর্যাদা বৃদ্ধি করেছে। বিজিবির কৃতি খেলোয়াড়গণের এই সাফল্যে বিজিবির প্রতিটি সদস্য গর্বিত ও অনুপ্রাণিত।

বিজিবি মহাপরিচালক বলেন, বিজিবি সদস্যদের খেলাধুলা ও ক্রীড়াঙ্গনে সম্পৃক্ত করে তাদের কর্মক্ষম ও উজ্জীবিত রাখার পাশাপাশি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্রীড়াঙ্গনে অবদান রাখার লক্ষ্যে ১৫টি ক্রীড়া দলে বিজিবির খেলোয়াড়গণ সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহন করছে। এগুলো হলো_ভলিবল, হ্যান্ডবল, বাস্কেটবল, কুস্তি, জুডো, কারাত, তায়কোয়ানডো, বক্সিং, ভারোত্তোলন, কাবাডি, সাইক্লিং, এ্যাথলেটিক, আরচ্যারী ফেন্সিং ও উশু। এসব দলের জন্য খেলাধুলার সরঞ্জামাদি ক্রয় ও ক্রীড়া খাতে বাজেট বরাদ্দ বৃদ্ধি করা হয়েছে। এছাড়া বিদেশি কোচের অধীনেও দীর্ঘ সময় প্রশিক্ষণ করানো হচ্ছে। বিজিবির খেলোয়াড়দের উৎসাহিত করার লক্ষ্যে তাদের সম্মানি ও পুরস্কার প্রদান করা হচ্ছে। এসব পদক্ষেপের কারণে ক্রীড়াঙ্গনে বিজিবির খেলোয়াড়দের সাফল্য পূর্বের তুলনায় অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। ভবিষ্যতেও বিজিবির খেলোয়াড়দের মানোন্নয়নে সম্ভাব্য সব কিছু করা হবে।

তিনি বলেন, আমরা ক্রীড়ার উন্নয়নে অনেক পরিকল্পনা ও উদ্যোগ নিয়েছি। আমি বিশ্বাস করি, ভবিষ্যতে বিজিবির খেলোয়াড়গণ আরো ভাল করবে এবং দেশের জন্য সুনাম বয়ে আনবে। আমাদের সামর্থ্য রয়েছে এবং আমাদের এই সামর্থের সর্বোত্তম ব্যবহার করে ভবিষ্যতে আমরা আরো এগিয়ে যাব।

তিনি বলেন, ২০১৮ সাল হতে বিজিবি দিবসে বিজিবির ১৫টি দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে যে সকল খেলোয়াড় জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে খেলাধূলায় অসামান্য কৃতিত্ব অর্জন করবে তাদের মধ্য হতে কমপক্ষে ১ জনকে পদকের ব্যবস্থা করা হবে।

তিনি আরো বলেন, আপনারা জানেন, সরকার আমাকে বাংলাদেশ ভারোত্তোলন ফেডারেশনের সভাপতির দায়িত্ব প্রদান করেছে। এছাড়া বিজিবি ক্রীড়া বোর্ডের সচিব লে. কর্নেল মো. নজরুল ইসলামকে বাংলাদেশ ভারোত্তোলন ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব প্রদান করা হয়েছে। এটা একইসঙ্গে বিজিবির জন্য বিরাট মর্যাদার এবং আমাদের ওওপর গুরু দায়িত্ব। ক্রীড়াঙ্গনে আমাদের সাফল্যের ধারাবাহিকতায় সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা নিয়ে ভারোত্তোলন ফেডারেশনে আমরা সফলকাম হতে পারব। বাংলাদেশ ভারোত্তোলন ফেডারেশনের সাফল্য ও উন্নতির জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।

বিজিবির ১৫টি দল জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে আসছে। ২০১৭ সালে বিজিবি খেলোয়াড়রা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ১৪টি খেলায় অংশগ্রহণ করে ২০টি স্বর্ণ, ১৯টি রৌপ্য ও ১৪টি তাম্র পদক পদক অর্জন করে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জল করেছে। এছাড়া জাতীয় ও ফেডারেশন পর্যায়ে অনুষ্ঠিত বিজিবি ২৩টি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে ১১টি প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন, ৪টি প্রতিযোগিতায় রানার আপ ও ৩টি প্রতিযোগিতায় তৃতীয় স্থান হওয়ার গৌরব অর্জন করে। এছাড়াও ব্যক্তিগত ইভেন্টে ৩২টি স্বর্ণ, ৩১টি রৌপ্য এবং ২৪টি তাম্র পদক অর্জন করে। ক্রীড়াক্ষেত্রে বিজিবির এ সাফল্যের মাধ্যমে বিজিবি তথা দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করেছে ও জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন ক্রীড়াঙ্গনে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত প্রথম ইন্টারন্যাশনাল সলিডারিটি আরচ্যারি চ্যাম্পিয়নশীপ-২০১৭ এ বিজিবি আরচ্যারি দলের খেলোয়াড় ল্যান্স নায়েক সানোয়ার হোসেন এবং সিপাহী মো. নাজমুল হুদা অংশগ্রহণ করে ২টি স্বর্ণ পদক, ভারতে অনুষ্ঠিত সপ্তম সাউথ এশিয়া হাকুকাই কারাতে চ্যাম্পিয়নশীপ-২০১৭ এ ল্যান্স নায়েক মো. নূর হোসেন অংশগ্রহণ করে ১টি স্বর্ণ পদক, মালদ্বীপে অনুষ্ঠিত চতুর্থ সাউথ এশিয়া বাস্কেটবল (সাবা) চ্যাম্পিয়নশিপ-২০১৭ এ বাংলাদেশ জাতীয় বাস্কেটবল দল অংশগ্রহণ করে রানার আপ হওয়ার গৌরব অর্জন করে। বাংলাদেশ জাতীয় বাস্কেটবল দলে বিজিবির ল্যান্স নায়েক মো. মশিউর রহমান অংশগ্রহণ করে বিজিবির সুনাম বয়ে এনেছে।

বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত এশিয়ান সিনিয়র মেন্স সেন্ট্রাল জোন ইন্টারন্যাশনাল ভলিবল চ্যাম্পিয়নশিপ- ২০১৬ প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশ জাতীয় ভলিবল দলে বিজিবির নায়েব সুবেদার সৈয়দ আতিকুর রহমান এবং ল্যান্স নায়েক শ্রী নারায়ন দেবনাথ অংশগ্রহণ করে বিজিবির দেশের জন্য সুনাম বয়ে এনেছেন।

বিজিবির কৃতি খেলোয়াড়দের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ক্রীড়াঙ্গনের বিশিষ্ট ব্যক্তিগণ তাদের বক্তব্যে বিজিবি মহাপরিচালকের গতিশীল নেতৃত্বের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তারা আশা প্রকাশ করেন, ক্রীড়ানুরাগী মেজর জেনারেল আবুল হোসেনের বলিষ্ঠ নেতৃত্ব ও দিক নির্দেশনায় বর্ডার গার্ড ক্রীড়া বোর্ডের খেলোয়াড়গণ ক্রীড়াঙ্গনে আরো সফলতা বয়ে আনবে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন