সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮ ০২:৫৪:৫৯ পিএম

ভিআইপি সড়কের প্রস্তাবের কড়া সমালোচনা

খেলাধুলা | মঙ্গলবার, ৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ | ০১:৪০:৩৩ এএম

মানবাধিকারকর্মী সুলতানা কামাল বলেছেন, ‘আমরা যখন স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি করতে যাচ্ছি, তখন শুনতে হচ্ছে মন্ত্রীরা তাদের জন্য সড়কে আলাদা লেন চান। মুক্তিযুদ্ধ করে স্বাধীন হওয়া বাংলাদেশে যদি তাঁদের মনে এমন চিত্র থেকে থাকে, তাহলে তাদের ধিক্কার জানাই।’

গণজাগরণ মঞ্চের পাঁচ বছর পূর্তি উপলক্ষে আজ সোমবার এক আলোচনা সভায় সুলতানা কামাল এসব কথা বলেন। রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে ‘মতপ্রকাশে বাধা, সাম্প্রতিক কালাকানুন; কোন পথে বাংলাদেশ?’ শীর্ষক এই আলোচনা সভা হয়।

সুলতানা কামাল বলেন, ‘এই দেশটিকে একটি বিভাজিত সমাজ এবং দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে চায় আমাদের রাজনৈতিক শক্তি। প্রতিটি ক্ষেত্রে এখন বিভাজনের রাজনীতিকে প্রশ্রয় দেওয়া হচ্ছে। সবচেয়ে দুঃখের বিষয়, এ কথাটি আসছে এমন সময়, যখন বঙ্গবন্ধুর নিজের হাতে গড়া দল ক্ষমতায়। কিছু কুলাঙ্গার ব্যতীত সব মানুষ মিলে আমরা এই দেশ স্বাধীন করেছি। সেই স্বাধীন দেশেরই মন্ত্রীরা বলেন তাঁদের জন্য আলাদা সুযোগ-সুবিধা করে দিতে হবে। তা-ও আবার রাজপথে—যেখানে সাধারণ মানুষ চলাফেরা করে।’

সুলতানা কামাল বলেন, মন্ত্রীরা অনেক সুযোগ-সুবিধা নিয়েছেন। তারা নিজেদের বিশেষ বিশেষ অবস্থানে নিয়ে যেতে পেরেছেন আর্থিক, সুবিধা বা ক্ষমতার দিক থেকে। তারা মুক্তিযুদ্ধকে ব্যবহার করে নিজেদের সব সুযোগ-সুবিধা নিচ্ছেন। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধ আমাদের উত্তরাধিকার। সু-অধিকারী কখনো তার উত্তরাধিকারকে বেচে না। এখন যারা ক্ষমতায় বসেছেন, তারা তাদের উত্তরাধিকারকে বেচে বেচে নিজেদের জীবনের সব সুযোগ-সুবিধা নেওয়ার চেষ্টা করছেন। এটি অত্যন্ত নিন্দনীয়।

মঞ্চের অন্যতম সংগঠক জীবনানন্দ জয়ন্তের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার, উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর সাধারণ সম্পাদক জামসেদ আনোয়ার, সমাজতান্ত্রিক মহিলা ফোরামের সভাপতি শম্পা বসু, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি জি এম জিলানী, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের (বিসিএল) সভাপতি শাহজাহান আলী প্রমুখ বক্তব্য দেন।

এর আগে সেখানে শিশু-কিশোরদের চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা হয়। পরে সবাই মিলে ‘জাগরণ র‍্যালি’ বের করেন। র‍্যালিটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি) ঘুরে আবার শাহবাগে এসে শেষ হয়। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়।

উল্লেখ্য, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, জরুরি সেবার যানবাহন ও ভিআইপিদের চলাচলের জন্য রাজধানীর রাজপথে আলাদা লেন করতে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগে প্রস্তাব পাঠিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এ প্রস্তাবের ওপর ঢাকা যানবাহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ মতামত তৈরির কাজ করছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন