মঙ্গলবার, ২০ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ০৩:৪৯:১৯ পিএম

নীরব থেকে জবাব দেবে জামায়াতে ইসলামী

রাজনীতি | বুধবার, ৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ | ০১:২৯:০৯ এএম

৮ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায় বিপক্ষে গেলে মাঠে সক্রিয় থাকার ইস্যুতে নেতিবাচক মনোভাব রয়েছে বিএনপি জোটের অন্যতম শরিক দল জামায়াতে ইসলামীর।

দলটির দায়িত্বশীলরা বলছেন, মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের একের পর ফাঁসির রায় এবং পরবর্তীতে রায় কার্যকরের সময় জামায়াত বিএনপি পাশে থাকবে দূরের কথা একটা বিবৃতি পর্যন্ত দেয়নি। তাই জামায়াতও এখন নীরব থেকে বিএনপির সেই নিষ্ক্রিয়তার জবাব দিতে চায়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জামায়াতের মজলিসে শূরার এক সদস্য বলেন, বিএনপির দলীয় এজেন্ডা বাস্তবায়নের জন্য জামায়াত জোট করেনি। বিএনপির সঙ্গে জামায়াতের নির্বাচনী জোট। খালেদার মামলার বিষয়টি মোকাবিলা করবেন তাদের নেতা-কর্মীরা। তবে সরকার সাজানো মামলায় তাকে রাজনৈতিকভাবে হয়রানির চেষ্টা করছে। এজন্য আমরা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

তিনি জানান, রায় বিএনপি চেয়ারপারসনের বিপক্ষে গেলে জামায়াতের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে বিবৃতি দেওয়া হবে। জানা যায়, বেগম খালেদা জিয়ার শাস্তির আশঙ্কা করছেন বিএনপির শীর্ষ নেতারা। এ আশঙ্কায় রায় পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবিলায় আইনি লড়াইয়ের পাশাপাশি রাজনৈতিকভাবে জবাব দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে বিএনপি। এ সময় শরিক দলগুলোকে মাঠে চায় বিএনপি। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এ ইস্যুতে একেবারেই নীরব জামায়াত। গ্রেফতারের ভয়ে দলটির নেতা-কর্মীরা বাড়ি ও এলাকাছাড়া। জামায়াতের ছাত্রসংগঠন ছাত্রশিবিরের নেতা-কর্মীরাও এ ইস্যুতে মাঠে নামতে চাইছেন না।

এ ব্যাপারে জামায়াতের একজন নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার মামলা ইস্যুকে পুঁজি করে এক ঢিলে দুই পাখি মারতে চায় জামায়াত। তারা এই পরিস্থিতিতে বিএনপিকে বোঝাতে চায় জামায়াত ছাড়া সরকারকে মোকাবিলা করা সম্ভব নয়। এ ছাড়া ২০-দলীয় জোটে বিএনপি প্রধান ও বড় দল হলেও জামায়াতের সাংগঠনিক শক্তি তাদের চেয়ে কোনো অংশে কম নয়।

তাই খালেদা জিয়ার মামলা ইস্যুতে তাদের নেতা-কর্মীদের মাঠে না নামানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলটি। যাতে সরকারের বিরুদ্ধে পরিস্থিতি মোকাবিলায় বিএনপির দুর্বলতা প্রমাণ হয়। তা ছাড়া তারা এ মুহূর্তে মাঠে নেমে নতুন করে মামলা-মোকদ্দমায় জড়াতে চায় না। খালেদার জন্য মাঠে নেমে নির্বাচনের আগে নিজেদের সাংগঠনিক শক্তি খোয়াতে চায় না জামায়াত।

তারা মনে করছে, এ ইস্যুতে নীরব থাকলে হয়তো সরকার তাদের সাংগঠনিক কর্মকাণ্ড করতে দেবে। দলটির নেতারা জানিয়েছেন, খালেদা জিয়ার মামলার ইস্যুতে বিএনপিকে কড়া জবাব দিতে চায় জামায়াত। যুদ্ধাপরাধের মামলায় নেতাদের ফাঁসির রায় ইস্যুতে সরকারের বিরুদ্ধে বিএনপিকে মাঠেঘাটে চেয়েছিল তারা। কিন্তু পাশে পায়নি তাদের। এ ইস্যুতে একপর্যায়ে জোট ভাঙার উপক্রম হয়। বিডি প্রতিদিন

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন