শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ০২:০৬:১২ পিএম

খালেদা জিয়ার রায় নিয়ে যা বললো আমেরিকা

জাতীয় | বৃহস্পতিবার, ৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ | ০৮:৪৪:২৮ পিএম

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় নিয়ে সারা দেশের বিরাজমান উত্তেজনাকর পরিস্থিতি নিয়ে শান্তিপূর্ণ আচরণের আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এ মামলার রায়ে বৃহস্পতিবার খালেদা জিয়ার পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র বলেন, যুক্তরাষ্ট্র চায় সব দল শান্তিপূর্ণ ও দায়িত্বপূর্ণ আচরণ করুক। সে কর্মকর্তা বলেন, আমরা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি এবং সব দলকে সহিংসতা এড়িয়ে শান্তিপূর্ণ আচরণের আহ্বান জানাচ্ছি। গণতন্ত্রের জন্য শান্তিপূর্ণ প্রক্রিয়া খুবই জরুরি।

এর আগে বেগম জিয়ার রায়কে কেন্দ্র করে যুক্তরাষ্ট্রে পররাষ্ট্র দফতর ও হোয়াইট হাউসের সামনে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ করেছে বিএনপি সমর্থকরা। এছাড়া লন্ডনে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসও ভাঙচুর করে বিএনপি সমর্থকরা।

এদিকে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, বিক্ষোভে পুলিশিংয়ের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা রক্ষাকারী বাহিনীগুলোকে আন্তর্জাতিক মানদণ্ড মেনে চলতে প্রকাশ্যে নির্দেশ দেয়া উচিত বাংলাদেশ সরকারের।

উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ মামলার রায়ে বেগম খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এবং তার বড় ছেলে তারেক রহমানসহ বাকিদের ১০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। দণ্ডবিধি ১০৯ ও ৪০৯ ধারায় খালেদা জিয়াসহ বাকিদের সাজা দেয়া হয়। বয়স বিবেচনায় খালেদা জিয়ার সাজা কমানো হয় বলে রায়ে উল্লেখ করেন আদালত।

বিশেষ আদালতে খালেদা জিয়ার আইনজীবী সুপ্রিমকোর্ট বারের সাবেক সভাপতি খন্দকার মাহবুব হোসেন, বর্তমান সভাপতি জয়নুল আবেদীন, মীর নাসির উদ্দীন, নিতাই চন্দ্র রায়, সানাউল্লাহ মিয়া, আজিজুর রহমান খান বাচ্চু, আমিনুল ইসলাম ও জয়নুল আবেদীন মেজবাহ উপস্থিত রয়েছেন।

এ ছাড়া দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল, রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাডভোকেট খন্দকার আব্দুল মান্নান, মীর আবদুস সালাম প্রমুখও উপস্থিত হয়েছেন। বিশেষ আদালতের বিচারক ড. আখতারুজ্জামান জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় এ রায় দেন।

এর আগে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার গত ২৫ জানুয়ারি যুক্তিতর্ক শুনানি শেষে ঢাকার বিশেষ জজ-৫ আদালতের বিচারক আকতারুজ্জামান রায়ের জন্য দিন ঠিক করেন ৮ ফেব্রুয়ারি। উল্লেখ্য, ২ কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই দুদক খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে এ মামলাটি করে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন