রবিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৮ ০৫:৫৪:০১ এএম

গোলাপি জার্সিতে ভারতকে হারিয়ে জয়ের রেকর্ড করলো দক্ষিণ আফ্রিকা

খেলাধুলা | রবিবার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ | ১২:৪১:৫৯ পিএম

জোহানেসবার্গে শনিবার ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার মধ্যকার চতুর্থ ম্যাচটি ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার জন্য গুরে দাঁড়ানোর ম্যাচ। ছয় ম্যাচ সিরিজের তিনটিতে হেরে পিছিয়ে আছে দক্ষিণ। তাই সিরিজ ড্র করতে জেতা ছাড়া কোনবিকল্প নেই তাদের।

টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শিখন ধাওয়ানের রেকর্ডিয় সেঞ্চুরি আর অধিনায়ক কোহলির ৭৫ রান এবং শেষ দিকে মহেন্দ্র সিং ধোনির অপরাজিত ৪২ রানে ভর করে ৭ উইকেট হারিয়ে ২৮৯ রান করে ভারত। আর দক্ষিণ আফ্রিকার জেতার জন্য লক্ষ্য দাঁড়ায় ২৯০ রানের।

২৯০ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে প্রোটিয়াদের ইনিংসের অষ্টম ওভারে বৃষ্টি হানা দেয়। বৃষ্টি থামার পর বৃষ্টি আইনে (ডি/এল মেথড) দক্ষিণ আফ্রিকার সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় ২৮ ওভারে ২০২ রান। বৃষ্টি আসার আগে ৭.২ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে তারা সংগ্রহ করেছিল ৪৩ রান।

খেলা শুরু হওয়ার পর ১০২ রান তুলতেই ৪ উইকেট হারিয়ে ফেলে দক্ষিণ আফ্রিকা। সেখান থেকে ৭২ রানের জুটি গড়ে দলকে বিপর্যয় থেকে টেনে তোলেন ডেভিড মিলার ও হেনরিখ ক্লাসেন। মিলার ২৮ বলে ৩৯ রান করে সাজঘরে ফিরে যান। তার জায়গায় নেমে আন্দিলে ফেহলুকওয়ায়ো ৫ বলে ৩ ছক্কা ও এক চারে খেলেন ২৩ রানের ইনিংস। ক্লাসেনকে সাথে নিয়ে ২৫.৩ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে ২০৭ রান করে ম্যাচ জিতিয়ে আসেন ফেহলুকওয়ায়ো। ক্লাসেন ২৭ বলে ৫ চার ও এক ছক্কায় ৪৩ রানে অপরাজিত থাকেন। ভারতের পক্ষে কুলদিপ যাদব ৫১ রানে ২ উইকেট পান। ম্যাচসেরার পুরস্কার পান ক্লাসেন।

জোহানেসবার্গে শনিবার ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচটি ছিল 'পিংক' ওয়ানডে। 'চারলোট্টে ম্যাক্সেকে জোহানেসবার্গ একাডেমিক হাসপাতাল' এর স্তন ক্যান্সার ক্লিনিকের জন্য অর্থ সংগ্রহ করতে স্বাগতিক দেশটি এই ম্যাচ আয়োজন করে থাকে। তাই এ ম্যাচে গোলাপি জার্সিতে খেলতে নামে দক্ষিণ আফ্রিকা।

এর আগে যতবারই এই জার্সিতে মাঠে নেমেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা দল। মজার বিষয় হচ্ছে এ পর্যন্ত গোলাপি জার্সিতে একবারও হারতে হয়নি দক্ষিণ আফ্রিকা। দেশটির ক্রিকেট ভক্তদের দাবি, এটি ‘লাকি জার্সি’। গতকালও জিতে সে রেকর্ড অক্ষুণ্ন রেখে সিরিজের ফিরলো দক্ষিণ আফ্রিকা।

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা এই জার্সি পরে খেলে পাকিস্তান ও ভারতের বিরুদ্ধে জেতে। তারপরে ২০১৫ বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ডিভিলিয়ার্স ৩০ বলে শতরান করে বিশ্বরেকর্ড করেন। ২০১৬ সালে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ও পরের বছর শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে প্রোটিয়ারা জিতেছেন। আর সব ম্যাচেই অবিশ্বাস্য খেলেছেন ডিভিলিয়ার্স। আর গত কাল ২০১৮ সালে আবার ভারতের সাথে জিতে রেকর্ড সৃষ্টি করলো তারা।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন