বুধবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৮ ০২:৪০:২৩ এএম

‌‌’এই শহরের দিদিমনি’ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

নিজস্ব প্রতিবেদক | সাহিত্য | বৃহস্পতিবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ | ০৯:২২:৪৩ পিএম

লেখিকা রুমানা রশীদ রুমীর দ্বিতীয় ফিকশন বিষয়ক গ্রন্থ ‘এই শহরের দিদিমনি’ অমর একুশে গ্রন্থমেলায় প্রকাশিত হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে একুশে বইমেলায় বাংলা একাডেমিসংলগ্ন সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্থাপিত মঞ্চের অনুষ্ঠানে বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন, বাংলাদেশ উইমেন চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি'র পরিচালক সংগীতা খান এবং পরিচালক ও লেখক জিনাত হাকিম।

বইটি সম্পর্কে লেখিকা বলেন, প্রতিটি প্রতিষ্ঠিত মানুষের পিছনে একটি গল্প আছে, প্রত্যেকে আমরা যে যার জায়গা থেকে সবকিছু শেষে একজন মা। আর 'এই শহরের দিদিমনি' সেই মা'দের কে নিয়ে লেখা, যেখানে কিনা আমরা সবকিছু ভিন্ন করে আমাদের সন্তানদের কাছে ফিরে আসা। আমাদের এই ক্যারিয়ারের পিছনে যেন কখনোই আমাদের সন্তানদের প্রতি দায়িত্বে অবহেলা না করি। মায়েদের টিকে থাকার লড়াই আর সন্তানের দায়িত্ব যেন চলে পাশাপাশি। কোনভাবেই সন্তানদের উপেক্ষা করে নয়। এই মেসেজটি আমি আমার বইয়ের মাধ্যমে প্রতি ঘরে ঘরে সব মায়েদের পৌঁছে দিতে চাই।

তিনি আরও বলেন, "মনে আছে, আমার প্রথম যখন বই বের হল বাসার কেউই জানে না। আমার বাবাকে সাথে নিয়ে বইমেলায় এসেছি। আমার বই লিটল ম্যাগের ওইদিকে আর বাংলা একাডেমির দিকে আমরা ঘুরছি। আমার বাবার আবার হাটু ব্যাথা, বেশি হাটতে পারেন না। আমি মনে মনে দোয়া করি আব্বার পা ব্যাথা শুরু হয় না কেন। বাড়ি যাব। আজও আমি বাবার সামনে বইয়ের মলাট খোলার সাহস পাই নি।

আর ঘরের মানুষটি র নানা অভিযোগ পুরণের জন্যে হয়তো আমিও আজ সত্যি মা হতে প্রাণান্ত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি । আর তাই যে আদর্শ লালন করে লিখেছি তার কৃতিত্ত আমার বাবা- হারুন-অর-রশিদ আর স্বামী ডা. গাজি আব্দুল বারি র উপর দিতেই হয়।

বইটি উৎসর্গ করা হয়েছে ভবিষ্যৎ প্রজন্ম এর প্রতীক স্বরূপ আমার ছেলেমেয়ে অমি আর পুতুলকে।

বইটি প্রকাশ করেছে ‘চৈতন্য’প্রকাশ, (স্টল নম্বর ৬০৪-৬০৫)। প্রচ্ছদ করেছেন মুহাইমেন উর রশীদ। বইটি একাধারে ঢাকা ও সিলেট বইমেলায় পাওয়া যাচ্ছে।

লেখিকার প্রথম বই জয়িতা। জয়িতা প্রকাশ পাওয়ার ৩ বছর পর আবার ২০১৮'র বইমেলায় প্রকাশ পেল লেখিকার ফিকশন বিষয়ক বই 'এই শহরের দিদিমনি'।Image may contain: 6 people, people smiling






খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন