শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮ ১২:৫২:২৬ এএম

লালমনিরহাটে প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে শিক্ষক গ্রেপ্তার

জেলার খবর | লালমনিরহাট | শনিবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ | ০৬:২০:২২ পিএম

লালমনিরহাট জেলার হাতীবান্ধা উপজেলায় এসএসসি প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগে আওলাদ হোসেন নামের এক শিক্ষককে আটক করা হয়েছে।শনিবার উপজেলার বড়খাতা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে ওই শিক্ষককে আটক করে পুলিশে দিয়েছেন ইউএনও।

আটক আওলাদ হোসেন মধ্য গড্ডিমারী এলাকার আব্দুস ছামাদের পুত্র বলে ও সে বড়খাতা উচ্চ বিদ্যালয়ের ল্যাব এ্যাসিস্টেন্ট। জানা গেছে, শনিবার সকাল ১০টার দিকে ওই পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শনে যান হাতীবান্ধা উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা ও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রন কমিটির সভাপতি আমিনুল ইসলাম।

এসময় আওলাদ হোসেনের চলাফেরায় সন্দেহ হলে তার পকেট সার্চ করেন ইউএনও। এতে আওলাদ হোসেনের প্যান্টের পকেটে থাকা একটি নোট প্যাডে শনিবার অনুষ্ঠিত ‘বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়’ বিষয়ের বহুনিবার্চনী (এমসিকিউ) পরীক্ষার ২৫ টি প্রশ্ন আর সেসবের উত্তর লেখা অবস্থায় দেখতে পান তিনি।পরে তার জমাকৃত মুঠোফোন সার্চ করে ওই একই বিষয়ের ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্রসহ বিগত একাধিক এসএসসির প্রশ্নপত্রও মিলে।ফলে তাকে তাৎক্ষনিকভাবে আটক করে থানা পুুলিশের কাছে সোপর্দ করেছেন ইউএনও আমিনুল ইসলাম।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামীম হাসান সরদার জানান, প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগে আওলাদ হোসেন নামে একজন কে আটক করা হয়েছে।ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে সংশ্লিস্ট কেন্দ্র সচিব মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এদিকে এ বিষয়ে জানতে বড়খাতা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্রর সচিব জাহেদুল বারীর ব্যবহৃত মুঠোফোনে একাধিকার কল দেয়া হলেও ফোনসেটটি বন্ধ পাওয়া যায়।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা (ইউএনও) আমিনুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ‘আটক আওলাদের পকেটে একটি নোট প্যাডে বহুনিবার্চনী (এমসিকিউ) পরীক্ষার ২৫ টি প্রশ্ন এবং সেগুলোর উত্তর লেখা অবস্থায় পাওয়া যায়। এরপর তার জমাকৃত মুঠেফোন সার্চ করে শনিবারের পরীক্ষাসহ এর আগের একাধিক পরীক্ষার প্রশ্ন পাওয়া গেছে। তাই অভিযুক্ত শিক্ষক আওলাদকে তাৎক্ষনিকভাবে আটক করে তার বিরুদ্ধে কেন্দ্র সচিবকে মামলা দায়েরের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

খবরটি গুরুত্বপূর্ণ মনে হলে পেজে লাইক দিয়ে সাথে থাকুন